লিভার সমস্যা ডায়াবেটিস রক্তদূষণ রোধসহ নানা রোগে থানকুনি পাতার ব্যবহার

0
148

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

আমাদের বাড়ির চারপাশেই জন্ম নেওয়া এই থানকুনি পাতার রয়েছে নানা উপকারিতা। ক্ষত সারাতে বা পেটের সমস্যায় থানকুনি পাতা বেশ কার্যকর। শুধু তাই নয় চুল পড়া কমাতেও রয়েছে এর অসাধারণ গুণ।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

অনেকে থানকুনি পাতা চাটনি বানিয়ে খান। এছাড়া পিঁয়াজুর সঙ্গে অথবা ভজি করেও খাওয়া যায় থানকুনি পাতা।

জেনে নেওয়া যাক এর অজানা নানা গুণ—

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

-ক্ষত সারাতে এর পাতা অনেক কার্যকরী। পুরনো ক্ষতে পাতা সিদ্ধ করে পানিটা ক্ষতের উপর দিলে ক্ষত নিরাময় হয় আর নতুন ক্ষতে পাতা বেটে ক্ষতের উপর লাগাতে হয়। চুলকানি ও খোস পাঁচড়া রোধে এই রস কাঁচাহলুদের রসের সঙ্গে মিশিয়ে শরীরে মাখলে তা ভালো হয়।

-প্রায়ই ভুলে যাওয়ার সমস্যা থাকলে স্মৃতিশক্তি বর্ধক হিসেবে দুধে এক চামচ শুকনো থানকুনির গুড়ো গুলিয়ে খেলে অথবা থানকুনি পাতার রস দুই চামচ করে দুপুরের খাবার আগে খেলে উপকার হয়।

-চুল পড়া কমাতে ও দেহের তারুণ্য ধরে রাখতে ১ গ্লাস গরুর দুধের সঙ্গে ৫-৬ চা চামচ পাতার রস দিয়ে খেতে হয়।
-পেটের নানাবিধ সমস্যায় থানকুনি পাতা ব্যাপক কার্যকরী। ডায়রিয়া, আমাশয়, বদহজম ইত্যাদিতে এই পাতার রসের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে দুই চামচ করে দিনে দুইবার খেলে পেট ভালো হয়।

-ডায়বেটিকস, রক্তাল্পতায় থানকুনির রস দিনে দুইবার খেলে ভালো ফল পাওয়া যায়।

-রক্ত দূষণ রোধে ৪ চা চামচ রসের সঙ্গে ১ চা চামচ মধু মিলিয়ে ১ সপ্তাহের মত খেলে রক্ত পরিষ্কার হয় ও রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।

-দৃষ্টির অস্পষ্টতা রোধে শুকনো গরুর দুধের সঙ্গে থানকুনির গুড়া ১/২ চামচ, ১ চামচ মধু মিশিয়ে খেলে ভালো উপকার পাওয়া যায়।

-জ্বর উপশমে থানকুনি পাতার রস অনেক উপকারি। প্রতিদিন সকালে এটি সেবনে জ্বর দ্রুত সেরে যায়।
-লিভারের সমস্যায় (বিশেষ করে বাচ্চাদের) থানকুনির ১ চামচ রসের সাথে ৫-৬ ফোঁটা কাঁচা হলুদ, সামান্য চিনি ও মধু মিশিয়ে প্রতিদিন সকালে খেলে সমস্যা দূর হয়।

-দাঁত ও মাড়ির রোগে থানকুনি পাতা সিদ্ধ পানি কুলকুচা করলে ভালো ফল হয়।

-মাঝেমাঝে দেখা যায় ছোট বাচ্চারা কথা বলাতে দেরী করে, এ অবস্থায় ১ চামচ পাতার রস গরম করে তা ঠাণ্ডা হলে সঙ্গে ২০ ফোঁটা মধু দুধের সঙ্গে মিশিয়ে খাওয়ালে কিছুদিনের মধ্যে সমস্যা দূর হয়।

প্রকাশিত : ০৫ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, রোববার : ০১:০৩ এএম

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
885 জন পড়েছেন