তিলের দাগ ও আঁচিল দূর করার উপায়

0
175

 

ডা. মিজানুর রহমান : 

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

অনেকেরই মুখে ছোট ছোট তিল উঠতে দেখা যায়। এই অতিরিক্ত ছোট ছোট তিল হওয়া স্কিন ক্যান্সারের পূর্ব লক্ষণ। তবে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এই তিলের দাগ কিছু প্রাকৃতিক উপায়ে কমানো যেতে পারে। চলুন জেনে নিই-

১. কুসুম গরম পানিতে আটা মিশিয়ে পেস্ট করে মুখে লাগান। এতে শসার রস দিলে আরও ভাল হয়।

২. অতিরিক্ত তিল দূর করতে লেবুর রস অত্যন্ত উপকারী। লেবুর রসের সাথে চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন।

৩. কাচা দুধ দিয়ে মুখ মুছে নিতে পারেন।

gif maker ৪. মধু হালকা গরম করে মুখে লাগান।

৫. প্রতিদিন টক দই ব্যবহার করতে পারেন।

৬. রাতে ঘুমানোর আগে পাকা কলা মুখে ঘষুন দেখবেন কিছুটা কমে যাবে।

৭. নারিকেলের পানি মুখের তিল দূর করতে অনেকটা সাহায্য করে। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠেই নারিকেলের পানি দিয়ে মুখ ধুবেন।

গালের তিল বা আঁচিল তুলতে ব্যবহার করুন ঘরোয়া উপায় ৫টি

আপনার মুখের সৌন্দর্য নষ্ট করছে মুখের আঁচিল। তাহলে সত্যিই সমস্যারই কথা। একটা সামান্য কালো অথবা লালচে তিল বা আঁচিল আপনার যথেষ্ট মেকআপ করা সত্ত্বেও সৌন্দর্যে বাধা হয়ে দাঁড়াতে পারে। এমন সমস্যার সম্মুখীন আপনারা অনেকেই রোজই হয়ে থাকেন। বিশেষত কোনো অনুষ্ঠানে যাওয়ার সময় হাজারো মেকআপ করা সত্ত্বেও শুধু মাত্র ওই একটা কারণেই মন খুঁতখুঁত করে বলুন? অনেকে হয়তো বাজার থেকে অনেক প্রোডাক্ট কিনে ব্যবহার করেও কোনও ফল পাননি।

gif maker

আসলে অতিরিক্ত রোদে ঘোরার কারণে, ত্বকের তেলতেলে ভাবের জন্য অথবা হরমোনাল পরিবর্তন জনিত কারণেও আপনার এমন সমস্যা হতে পারে। আমরা আপনাকে বলতে চলেছি এর খুব সহজ সমাধান, যার জন্য খুব কম পরিশ্রম করে আপনি বাড়িতে বসেই মুখের আঁচিলের হাত থেকে রেহাই পেতে পারেন। আসুন, দেখে নেওয়া যাক এর কিছু ঘরোয়া টোটকা।

১. এক টুকরো আলুতেই আছে আঁচিল দূর করার সহজ সমাধান
আলু

উপকরণ

আলুর একটা ছোট টুকরো।

পদ্ধতি

আলুর একটি ছোট টুকরো নিয়ে মিনিট পাঁচেক সময় ধরে তিলের অংশটিতে ঘষতে থাকুন। অথবা, আলুর টুকরোটিকে কাপড়ের টুকরো দিয়ে তিল হওয়া অংশটিতে চেপে ধরে রাখুন মিনিট দশেক। তিলটিকে সম্পূর্ণ মিলিয়ে দিতে দিনে অন্তত দুইবার এটা করতে থাকুন।

➡ আঁচিল কমান এই ৫ টি ক্রিম দিয়ে।

২. রসুনেই রয়েছে সমাধান
উপকরণ

কয়েকটি রসুনের কোয়া, একটুকরো সুতির কাপড়।

পদ্ধতি

সামান্য পরিমাণ রসুন নিয়ে সেটিকে পেস্ট করে নিন। এই পেস্টটিকে একটা গোটা রাতের জন্য তিলের অংশটিতে লাগিয়ে রাখুন, সম্ভব হলে একটি সুতির কাপড় দিয়ে জড়িয়ে রাখুন। পরপর কয়েকদিন সপ্তাহ তিনেক এটি করতে থাকুন। ফল ঠিক পাবেন।

৩. নিয়মিত ব্যবহার করুন নারকেল তেলও
নারকেল তেল

উপকরণ

শুধুমাত্র সামান্য নারকেল তেল।

পদ্ধতি

এক্ষেত্রে তেমন কিছুই করার নেই আপনার নারকেল তেলটিকে নির্দিষ্ট জায়গায় লাগিয়ে রাখা ছাড়া। আঁচিলের অংশটিতে লাগিয়ে রাখুন প্রায় ৩০ মিনিট। সম্ভব হলে সকালে ও রাতে– এভাবে দিনে দু’বার করে ব্যবহার করুন। আপনার আঁচিলের কোনও দাগই থাকবে না। নারকেল তেল ত্বকের জলীয়ভাবকে রাসায়নিকভাবে উন্নত করে, তাই খুব সহজেই আপনি এর থেকে মুক্তি পেতে পারেন।

৪. অ্যালোভেরা ব্যবহার করে দেখুন
উপকরণ

অ্যালোভেরা জেল ও সুতির কাপড়ের ছোট টুকরো।

gif maker

পদ্ধতি

প্রথমে আঁচিল হওয়া অংশটিকে ভালো করে পরিষ্কার করে নিন জল দিয়ে। এরপর ফ্রেশ অ্যালোভেরা জেল জায়গাটিতে লাগিয়ে একটি সুতির কাপড় দিয়ে ঘন্টা দুয়েক জড়িয়ে রেখে দিন। অ্যালোভেরা ত্বকের ক্ষেত্রে ভারতীয় আয়ূর্বেদ চিকিৎসায় বহুদিন থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে। কারণ এর মধ্যে থাকে পলিস্যাকারাইড, এনজাইম, ভিটামিন ও মিনারেলের রাসায়নিক সমন্বয়। তাই এক্ষেত্রেও খুব সহজেই আপনি এর সাহায্যে তিল বা আঁচিলেরও সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। তাড়াতাড়ি ফল পেতে সম্ভব হলে দিনে দু’বার এই পদ্ধতি প্রয়োগ করুন।

৫. কলার খোসা ব্যবহার করুন
কলা

উপকরণ

কলার খোসা, সুতির কাপড়।

পদ্ধতি

কলার খোসা তো আপনি ফেলেই দেন। চাইলে এর থেকেও আপনি আঁচিলেরও সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারেন। তার জন্য একটি কলার খোসা নিয়ে তার ভেতরের দিকটি আঁচিলের দিকে মুখ করিয়ে, আঁচিলকে স্পর্শ করিয়ে রাখুন। এরপর এটিকে সুতির কাপড়ের ব্যান্ডেজ দিয়ে জড়িয়ে রেখে দিন সারা রাত। খুব সহজেই আপনি আঁচিলের থেকে মুক্তি পেতে পারেন যদি আপনি যতদিন না আঁচিলেরও দাগ মিশছে, এর ব্যবহার বন্ধ না করেন। কলার খোসায় থাকে প্রাকৃতিক এনজাইম। এ ছাড়াও থাকে অক্সালিক ও অ্যাসকরবিক অ্যাসিড। এই দুটির মিশ্রণ খুব সহজেই আপনার মুখের দাগকে মিশিয়ে দেয়।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে প্রতিটি উপকরণ আপনি পেয়ে যাবেন হাতের কাছেই। ফলে অল্প পরিশ্রমেই খুব সহজেই আপনি এতদিনের একটি সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পেতে পারেন। শুধু প্রয়োজন একটু ধৈর্য আর সময়।

তবে যারা এসব উপাদান যোগাড় করে সময়ের অভাবে ব্যবহার করতে না পারেন, তাঁরা রীতিমতো দু’একমাস ঔষধ ব্যবহার করলে এসব সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন।

অর্ডার করলে কুরিয়ার সার্ভিসযোগে সারাদেশে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ পাঠানো হয়।

ডা. মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।

মুঠোফোন : 01762240650, 01834880825

প্রকাশিত : ২১ অক্টোবর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
880 জন পড়েছেন