অকালে পাকা চুল! জেনে নিন সহজ ১০টি সমাধান

ডা. মিজানুর রহমান :

প্রাকৃতিক নিয়মানুযায়ী বয়স বাড়তেই থাকে। ধীরে ধীরে কালো চুল, পাকতে শুরু করে। কিন্তু এই পাকা চুল কারোরই পছন্দ না। এর চেয়েও বড় অপছন্দের বিষয় হলো অকালেই পাকা চুল দেখা দেওয়া।

কিন্তু সহজ কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করেই আপনিও এই সমস্যার থেকে দূরে থাকতে পারেন। চলুন সেগুলো জেনে নিই-

অকালে চুল পেকে যাওয়ার ঘরোয়া চিকিৎসা

ঘরে বসেই পাকা চুল সমস্যার সমাধান করতে পারেন। কীভাবে?

১। কেরাটিন নামক এক ধরনের প্রোটিন দিয়ে আমাদের চুল গঠিত। তাই প্রোটিনযুক্তখাবার খেয়ে চুল পাকার সমস্যা সমাধান করতে পারেন।

২। ভিটামিন এ, বি-১২, আয়রন, কপার এবং জিংক পাকা চুল প্রতিরোধে সহায়তা করে। মাংস, মাছ, বাদাম ইত্যাদিতে এসব ভিটামিন পাওয়া যায়।

৩। পাকা চুল বৃদ্ধি হওয়া কমানোর সবচেয়ে কার্যকরী উপায় হচ্ছে পর্যাপ্ত আয়োডিন গ্রহণ করা। শুধুমাত্র লবণ-ই আয়োডিনের একমাত্র উৎস নয়; কলা, গাজর ও বিভিন্ন ধরনের মাছ আয়োডিনের ঘাটতি পূরণে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

৪। চায়ের লিকারের সাথে লবণ মিশিয়ে চুলে লাগালে পাকা চুলের পরিমাণ কমে আসে। এক কাপ রঙ চা ও এক চা-চামচ লবণ একসাথে মিশান। চা কিন্তু ঠাণ্ডা হতে হবে। এবার চুলে ও চুলের গোঁড়ায় ভালভাবে লাগান। এক ঘণ্টা রাখুন এভাবে। পরিষ্কার পানিতে চুল ধুয়ে ফেলুন। শ্যাম্পু করবেন না।

৫। নিয়মিত নারকেল তেল ব্যবহার করুন। এটি চুলের যাবতীয় ক্ষতি এবং পাকা চুল থেকে দূরে রাখবে আপনাকে।

৬। যতটা সম্ভব মানসিক চাপ এড়িয়ে চলুন। নিয়মিত ব্যায়াম করুন। আনন্দে থাকুন।

৭। চুলে মেহেদি পাতা বেটে লাগান। উপকার পাবেন।

৮। আদা এবং মধু একসাথে মিশিয়ে খান রোজ। নিয়ম করে খাবেন, দিনে ১ বার। এটি চুল পাকার সমস্যা সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে।

৯। নিম তেল চুলে এবং মাথার ত্বকে লাগান।।

১০। আয়ুর্বেদিক ঔষধ ব্যবহার করে দেখতে পারেন। কিন্তু সেটা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী।

এড়িয়ে চলুন……

অতিরিক্ত চা, কফি। ধূমপান করা যাবে না। অতিরিক্ত ক্ষারীয় কিছু চুলে ব্যবহার করে চুল ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পাকা চুল দেখা দেয়।

668 জন পড়েছেন

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়