Health logo

জেনে নিন আপনাকে গোপনে হিংসা করেন যারা

ফিচার ডেস্ক :

সফলদের দেখলে সবারই হিংসা হয়। অনেকেই হিংসা থেকেও প্রেরণা পান। সফলদের অনুসরণ করেন অনেকেই। তবে কেউ কেউ হিংসা করেন অতিমাত্রায়। এমনকি তা করে থাকেন গোপনে। ফলে সে হিংসা সফলদের ব্যক্তিচরিত্রেও আঘাত হানে। তাহলে আসুন জেনে নেই গোপনে হিংসা করে কারা?

‘দ্য মাইন্ডস জার্নাল’র মতে, দেখে নিন লক্ষণগুলো—

১. আপনাকে কেউ অনুকরণ করছে কিনা। গোপনে ঈর্ষান্বিত ব্যক্তিদের এটা প্রাথমিক লক্ষণ।
২. অযথা কেউ আপনার প্রশংসা করছে কি? বেশি তোষামোদে মানুষের মনে গোপন হিংসা কাজ করে।
৩. আপনার কোনো সাফল্যকে ছোট করে দেখলে ভাববেন তিনি আপনার প্রতি ঈর্ষাকাতর।
৪. সবসময় আপনার ভুল ধরলে জানবেন তারা আপনার প্রতি গোপনে হিংসা করছেন।
৫. আপনার বিরুদ্ধে গুজব ছড়ালে তাকে খুঁজে বের করুন। তিনি গোপন হিংসা থেকেই এটি করেছেন।
৬. আপনাকে কেউ অযাচিত উপদেশ দিলে সেটি গোপন হিংসা হওয়াই স্বাভাবিক।

gif maker

আসুন জেনে নিই, হিংসার করার দ্বারা কি কি ক্ষতি হচ্ছে আমাদের!

হিংসা একটি মারাত্মক সামাজিক ব্যাধি, যার ফল অত্যন্ত বিষময় ও ক্ষতিকর। হিংসা সামাজিক বন্ধনগুলোর মধ্যে ভাঙন সৃষ্টি করে ও মানুষের পারস্পরিক সম্পর্ক নষ্ট করে তাদের অজ্ঞতা ও পশ্চাৎপদতার সর্বনিু স্তরে পৌঁছে দেয়। তাই ইসলাম এ মারাত্মক ব্যাধির বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে। হজরত রাসুলুল্লাহ [সা.] হিংসা প্রসঙ্গে ইরশাদ করেছেন, তোমরা পরস্পরকে হিংসা করো না, একে অপরের সঙ্গে সম্পর্কচ্ছেদ করো না, একজন আরেকজনকে ঘৃণা করো না বরং আল্লাহর বান্দা হিসেবে পরস্পরের ভাই হও। হিংসার পরিণতি হলো দুঃখ ও হতাশা। কেননা মানুষের উল্লেখযোগ্য কোনো অর্জন বা নিয়ামতপ্রাপ্তিতে হিংসুক ব্যক্তির অন্তরে ঈর্ষা, হতাশা ও কষ্টের জন্ম দেয়।

এতে সে কঠিন মর্মপীড়ায় ভুগতে থাকে। দেখা দেয় বিভিন্ন শারীরিক সমস্যাও। যখন কোনো মানুষ অন্য মানুষের প্রতি ঈর্ষাতুর হয়, তখন সে আল্লাহ তায়ালার প্রজ্ঞাকে সন্দেহ করে এবং তার সিদ্বান্তকে প্রশ্নবিদ্ধ করে। কেননা কাকে কোন নিয়ামত দেয়া হবে কিংবা কার প্রতি কতটুকু দয়া দেখানো হবে, তা একান্তই আল্লাহ তায়ালার ইচ্ছাধীন। তারপরও হিংসুক ব্যক্তি চায় ঈর্ষাকৃত ব্যক্তি কর্তৃক উপভোগকৃত নিয়ামতটি যেন হারিয়ে যায় চাই সে নিজে তা উপভোগ করতে পারুক আর নাই পারুক, সে ওই নিয়ামত ভোগ করার উপযুক্ত হোক বা না হোক।

হিংসা থেকে বাঁচার জন্য আমাদের উত্তম আচরণ ও পবিত্র অন্তরের অধিকারী হতে হবে। অন্য লোকরা উপভোগ করছে, এমন নিয়ামত নিজের জন্য প্রত্যাশা করার অনুমতি রয়েছে এই শর্তে যে, উপভোগকারী কোনো ব্যক্তির কাছ থেকে তা কেড়ে নেয়া হোক এটা প্রত্যাশা করা যাবে না এবং অন্য কেউ এই নিয়ামত ভোগ করুক, তা-ও অপছন্দ করা যাবে না।

মানুষের উচিত, অপরকে কী দেয়া হয়েছে, সেটা নিয়ে চিন্তা না করে তাকে যেসব নেয়ামত দেয়া হয়েছে, সেগুলোর কথা চিন্তা করা এবং প্রয়োজনে তা গণনা করা। মানুষ যখন আল্লাহপ্রদত্ত নেয়ামতের কথা অধিক মাত্রায় স্মরণ করে, তখন আল্লাহর প্রতি তার শোকরগুজারির মাত্রা বৃদ্ধি পায়। তাই সবার উচিত হিংসা থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাওয়া যেন আল্লাহ আমাদের অন্তর থেকে যাবতীয় হিংসা-বিদ্বেষ দূর করে দেন।

বাংলাদেশের যে কোনো জেলায় কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমেও দু’ থেকে তিন দিনের মধ্যেই ঔষধ পেতে পারেন।

অফিসের ঠিকানা : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, গাউছিয়া টাওয়ার (৩য় তলা), রামপুরবাজার, হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

Hakim Mizanur Rahman nk night king add

 

 

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

(শতভাগ বিশ্বস্ত ও প্রতারণামুক্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান)

Dr. Mizanur Rahman (DUMS)

Ibn Sina Health care, Hazigonj, Chandpur.

Mobile.

01777988835

01762240650

01777988889

শ্বেতী, যৌনরোগ, হার্পিস, পাইলস, লিকুরিয়া, ব্রেনস্ট্রোক, হার্ট অ্যাটাক, ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, উচ্চ রক্তচাপ, বাত বেদনা, গাউট, পক্ষাঘাত, চর্মরোগ, অ্যালার্জি, জন্ডিস, লিভার সমস্যা, হার্ট ও শিরার ব্লকেজ, স্ত্রী রোগ, স্বপ্নদোষ নিরাময়-সহ সর্বরোগের চিকিৎসা করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *