sex medicine health

যে পুরুষদের প্রতি নারীরা বেশি আকৃষ্ট হয়

কথায় বলে ‘আল্লাহ জোড়ি মিলিয়ে মানুষকে দুনিয়াতে পাঠান’। কিন্তু, সেই জোড়ি হয় কী করে! কেউ বলে, জন্মের সময়েই ঠিক হয়ে যায় একটি মানুষের সঙ্গী কে হবে।

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির সহজ উপায়

কিন্তু, কে কার সঙ্গী হবেন তা জানা তো আর মুখের কথা নয়! তাই জীবনের হিসেব মেলানো হয় রাশির মাধ্যমে। কোন দুই রাশির মধ্যে সদ্ভাব থাকে, তার উপরেই বিচার করা হয় জীবনসঙ্গীর।

এক এক রাশির এক এক রকম গুণ থাকে। কেউ বিশ্বাসভাজন হয়, কেউ আবার হয় একেবারে তার বিপরীত। কেউ তার সঙ্গীকে সব কিছু দিয়ে সুখি করতে চায়, কেউ আবার সুখ খোঁজে অন্যত্র।

gif maker

জেনে নেওয়া যাক, ১২টি রাশির মধ্যে, কোন ৪টি রাশির পরুষদের সব থেকে বেশি আকর্ষণ করে নারীদের—

মকর- এদের সর্বদাই খুব সুখি সুখি ভাব। ব্যক্তিত্বও বেশ চার্মিং। ফলে মেয়েরা খুব তাড়াতাড়ি এদের প্রতি আকৃষ্ট হয়।

সিংহ— এরা মনের দিক থেকে খুব ভাল হয়। অন্যদের তুলনায় বেশ রোম্যান্টিক হয়। এদের সঙ্গে মেয়েরা ফ্লার্ট করতেও পিছ-পা হয় না।

তুলা— প্রেম ও কর্তব্য, দু’টি দিকই এরা সুন্দর ভাবে ব্যালান্স করে চলে। অন্য রাশির তুলনায় এই রাশির পুরুষদের স্টাইল খানিক আলাদা, যা মেয়েদের আকৃষ্ট করে।

মিথুন— মেয়েদের আকৃষ্ট করার ব্যাপারে সব থেকে ‘লাকি’ এই রাশির পুরুষরা। এরা অত্যন্ত নরম স্বভাবের হয়। এবং রোম্যান্টিকও।

অনিদ্রার চিকিৎসা ‘যৌনসঙ্গম’

সারাদিনের ক্লান্তি। পরিবারের কূটকচালি। বসের কড়া নজর। কিন্তু এরপরও চোখে ঘুম নেই। অনিদ্রায় কাটছে রাতের পর রাত। কিভাবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন? সেই বিষয়ে সন্ধান দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকেরা। যৌনসঙ্গমই নাকি অনিদ্রা থেকে মুক্তি পাওয়ার একমাত্র উপায়।

‘সেক্স অ্যাজ স্লিপ থেরাপি’-থিওরিতে উল্লেখ রয়েছে এই গবেষণাটি। ৪৬০জনের সমীক্ষা চালিয়ে জানা গিয়েছে। নারী-পুরুষ সবার কাছে যৌনসঙ্গমের মুহূর্ত ভীষণ আনন্দের। সুস্থ স্বাভাবিক যৌনসঙ্গম নিয়ে আসতে পারে সুন্দর দিন, ফ্রেশ মেজাজ, কাজ করার ক্ষমতা, মগজে ক্রিয়েটিভ চিন্তা।

সমীক্ষায় উঠে এসেছে, যদি নিয়মিত সঙ্গীর সঙ্গে যৌন সঙ্গমে লিপ্ত হওয়া যায়। তাহলে তা আপনার অনিদ্রা ৬৪শতাংশ কাটিয়ে দিতে পারে। পাশাপাশি যৌন সঙ্গমের সময় যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয় সঙ্গী এবং সঙ্গিনীর মধ্যে। তার রেশ সুদূরপ্রসারী।

সিকিউ বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাডিলেড রিসার্চার ড. মাইকেল লাস্টেল্লা, ড. জেসিকা পিটারসন, ড. অ্যামি রেয়নল্ড, ড. ক্যাথি ও মুলান এ গবেষণা চালিয়েছেন। তারা জানান, যৌনসঙ্গমের সময় অতিরিক্ত পরিমাণে অক্সিটোসিন হরমোন ক্ষরণের ফলে অনিদ্রার সমস্যা একেবারে কেটে যায়। শরীর হয়ে ওঠে একেবারে চনমনে। অক্সিটসিন হরমোন লাভ হরমোন নামেও পরিচিত। এই হরমোন সঙ্গীর প্রতি ভালোবাসা বাড়িয়ে যৌন সঙ্গমে আপনাকে চনমনে করে তোলে।

তবে, যৌনসঙ্গম না করেও সঙ্গীকে ভালোবেসে জড়িয়ে ধরেন। তাহলেও তা আপনার অনিদ্রা কাটাবে অনেকাংশে।

পাশাপাশি গবেষকেরা আরো জানান, মর্নিং সেক্স স্বাস্থের পক্ষে খুবই স্বাস্থ্যকর। সকাল সাড়ে ৭টা হল আদর্শ সময়। এই সময় যৌনসঙ্গমে আবদ্ধ হলে তা দিনের অন্যান্য সময়ে কাজ করতে আপনাকে অনেক বেশি এনার্জি যোগাবে।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)

হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : 01742057854, ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : 01762240650

শ্বেতীরোগ, যৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *