গণধর্ষণের পর হত্যা, ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

0
28

আপডেট: ০৩:০৭ পিএম, ২৮ মে ২০১৮

জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার আলোচিত পোশাক শ্রমিক আসমা আক্তারকে গণধর্ষণের পর হত্যার মামলায় ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) 01777988889 অথবা
01762240650
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।
http://picasion.com/

একইসঙ্গে দণ্ডপ্রাপ্ত প্রত্যেকের কাছ থেকে এক লাখ টাকা করে জরিমানা আদায় করে নিহতের পরিবারকে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

এছাড়া এ মামলায় ৪ জনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মো. জুয়েল রানা আসামিদের উপস্থিতে এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- বন্দর উপজেলার কুশিয়ারা এলাকার নুরুদ্দিনের ছেলে নাসির উদ্দিন বিটল (৪০), মৃত আ. সালামের ছেলে খোকন মিয়া (৩২), আবু মিয়ার ছেলে ছুফুন (৩৪)।

আর খালাস প্রাপ্তরা হলেন- সালামত, মিজান, হাসান কবির মেম্বার ও আ. মজিদ।

আদালতের স্পেশাল পিপি রকিব উদ্দিন জানান, ২০০৮ সালের ১২ মার্চ বন্দর উপজেলার ভদ্রাসন এলাকায় পোশাক শ্রমিক আসমা আক্তারকে (২৮) অপহরণ করে গণধর্ষণ ও হত্যার পর মরদেহ ডোবায় ফেলে দেয় আসামিরা।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা রাজা মিয়া বাদী হয়ে প্রথমে অপহরণ মামলা করেন। মরদেহ পাওয়ার পর তদন্তে হত্যার রহস্য খুঁজে পায় পুলিশ।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
240 জন পড়েছেন
http://picasion.com/