বউ-শ্বাশুড়ি খুন, নেপথ্যে পরকীয়া!

0
17

১৪ মে, ২০১৮ ২০:১৯:১২
ছবি: প্রতিনিধি

নবীগঞ্জে বউ-শাশুড়ি নির্মমভাবে খুন হয়েছেন। নিহতরা হচ্ছেন- উপজেলার কুর্শি ইউনিয়নের সাদুল্লাপুর গ্রামে লন্ডন প্রবাসী মৃত রাজা মিয়ার স্ত্রী মালা বেগম (৫০) ও তার পুত্রবধূ রুমি বেগম (২২) নিহতের ঘটনায় এ পর্যন্ত সাতজনকে আটকের খরব পাওয়া গেছে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) 01777988889 অথবা
01762240650
মূল্য : নাইট কিং- ১০৫০/- টাকা, নাইট কিং গোল্ড ১৩৫০/- টাকা।

পুলিশ পাঁচজনকে আটকের কথা স্বীকার করলেও বাকি ২ জনের কথা স্বীকার করেনি। এখনো থানায় কোন মামলা হয়নি। খুনের ঘটনায় সন্দেহভাজন হিসেবে আটককৃত চারজন হচ্ছেন সাদুল্লাপুর গ্রামের ক্বারী আব্দুস সালাম (৬০), তার পুত্র শাহিদুর রহমান (৩৫), একই গ্রামের যুবক শুভ রহমান (৩০) ও আবু তালেব (২০)।

পুলিশ বলছে, তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। তাদের কাছে খুনের মোটিভ পাওয়া গেলে তাদেরকে গ্রেফতার দেখানো হবে।

নাম প্রকাশ না করে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, নারী ঘটিত ব্যাপার থেকে খুনের ঘটনাটি সংঘটিত হয়েছে। নিহত রোমির ফেসবুক আইডির সূত্র ধরে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। মামলার এজাহার তৈরির কাজ চলছে। রাতেই মামলা দায়ের হবে। তিনি নিহত রোমির মৃত্যূর ৩০ মিনিট পূর্বে ফেসবুকে এক বন্ধুকে ছবি লেনদেন করে। তাই তার ফেসবুকের ইনবক্সে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাসেজ পাওয়া গেছে। তার সুত্রধরেই রোমির ঘনিষ্ট বন্ধু শুভ রহমানকে আটক করা হয়েছে।

তিনি বলেন, পরকীয়া প্রেম থেকেই খুনের সূত্রপাত বলে প্রাথমিক ধারণা পাওয়া গেছে। নবীগঞ্জ বাহুবল সার্কেল এসপি পারভেজ আলম বলেন, আমরা হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের কাছাকাছি আছি। তদন্তের স্বার্থে অনেক কিছু এখন বলা যাবে না। এজাহার প্রস্তুত করা হয়েছে পরীক্ষা নিরীক্ষার পর রাতেই রের্কড করা হবে।

হবিগঞ্জ পুলিশ সুপার বিধান ত্রিপুরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে সাংবাদিকদের বলেন, কোন নিরাপরাধ লোককে আসামী করা হবে না। নিরপেক্ষ ভাবে তদন্ত করে আসল অপরাধিদের বাহির করা হবে।

এব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ওসি এস,এম আতাউর রহমান বলেন, খুনের ঘটনাটি নিয়ে আমরা তদন্ত করছি এখনো কোন মোটিভ উদ্ধার হয়নি। তিনি আরো বলেন, আমরা খবর পেয়ে রাতেই লাশ দুটি উদ্ধার করে হবিগঞ্জ মর্গে প্রেরণ করেছি। আমরা পাঁচজনকে আটক করেছি এখনো জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আমাদের ধারণা এখানেই খুনি রয়েছে। আশা করছি আজকে রাতের মধ্যে মূল মোটিভ উদ্ধার হবে। তিনি এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, নারীঘটিত ব্যাপার থেকে খুণের সম্ভাবনা রয়েছে।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
101 জন পড়েছেন