চাঁদপুরে স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা, আটক ১

0
8

হাইমচর প্রতিনিধি :
হাইমচর উপজেলার ৪নং নীলকমল ইউনিয়নের আলি হোসেন মাঝি কান্দির কবির আহসান কবিরের স্ত্রী রহিমা কবির রানু (৪৫) তার স্বামীর পরকীয়ায় বাধা দেওয়ায় ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে হত্যার চেষ্টাকারীকে জনতা আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। এ নিয়ে হাইমচর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

ঘটনা সূত্রে জানাযায় গতকাল ১১ জুন বেলা ৩টা ৩০ মিনিটে হাইমচর উপজেলার ৪নং নীলকমল ইউনিয়নে আলি হোসেন মাঝি কান্দিতে কবির হাসান কবিরের স্ত্রী ঘুমন্ত অবস্থায় পাশ্ববর্তী কান্দীর মৃত হাবিব মাঝির ছেলে আলআমিন মাঝি (৩২) আকষ্মিক ঘরে ডুকে গলায় বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। আহত রানু বেগম চিৎকার দিলে ঘাতক আলআমিন রানু বেগমকে বিভিন্ন স্থানে কামরাতে থাকে। রানুর ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোকজন আলআমিনকে ঘর থেকে আটক করে।

এ ব্যাপারে আহত রহিমা কবির রানু জানান, আমার স্বামী বিগত এক থেকে দেড় বছর ধরে পাশ্ববর্তী কান্দির মৃত আলাউদ্দিন মৃর্ধার স্ত্রী খোরশেদা বেগম-এর সাথে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। আমার স্বামী প্রায় সময় রাতে তার বাড়িতে যাতায়াত করতো। আমি এলাকার মুরব্বীদেরকে বিষয়টি জানালে সে ক্ষিপ্ত হয়ে একাধিকবার মারধর করে। আমার স্বামী একবছর ধরে আমার সংসারে কোন ধরনের খরচের জন্য কোন টাকা পয়সা কিংবা খোজ খবর রাখেনি। প্রতিনিয়ত ওই মহিলার বাড়িতে বাজারসহ যাবতীয় খরচাদি বহন করে থাকে। আমি তার পরকীয়ার বাধা দেয়ায় গতকাল দিনে ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দ্বারা আমাকে হত্যার চেষ্টা চালায়।

এ ব্যাপারে আহত রানু বেগমের ছেলে রাকিবুল জানান, আমার বাবা এক বছর ধরে অন্য এক মহিলার সাথে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত রয়েছে। আমার বাবার অপকর্মের বিরুদ্ধে বলতে গেলে ওই মহিলার বড় মেয়ের জামাই আব্দুল্লাহ ও বড় ছেলে কালু মৃর্ধা আমাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়। আমাদের জায়গা জমিন তারা বাবা’র সহায়তায় জোর করে দখল করে আছে।

এ ব্যাপারে রানু বেগমের স্বামী কবির হাসান কবির জানান, আমি ওই মহিলাকে এক মাস পূর্বে বিয়ে করেছি। আমার ১ম স্ত্রীকে কে বা কারা মারার চেষ্টা করেছে তা আমি জানি না। আমি ঘটনার সময় মাছের আড়তে ছিলাম।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
28 জন পড়েছেন