ফরিদগঞ্জে পরকিয়ার জের, প্রেমিকাসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা

0
15

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
ঘরে স্ত্রী ও ১৩ বছরের সন্তান রেখে প্রবাসে অবস্থান কালীন সময়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়ে সৌদি প্রবাসী আব্দুল। নিজের অর্জিত সকল অর্থ বিলিয়ে দেয় দেয় প্রেমিকা শিউলী ও তার মাকে। প্রেমিকাকে বিয়ে করার আশায় এক মাস পুর্বে দেশে ফিরে আসলেও প্রেমিকার অন্যত্র বিয়ে হওয়ার ঘটনায় স্বপ্ন ভঙ্গ হয় তার।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

এরই জের ধরে বিক্ষুব্ধ প্রেমিক আব্দুল ধারালো অস্ত্র দিয়ে প্রেমিকা শিউলী, তার বোন রহিমা ও তাদের মা খাদিজা বেগমকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। গুরুতর আহত অবস্থায় বর্তমানে তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পুলিশ এই ঘটনায় প্রেমিক আব্দুলকে আটক করেছে। রোববার রাতে ফরিদগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের চরমুথরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

জানা গেছে, গত সাড়ে ১৩ বছর পুর্বে উপজেলার গুপ্টি পশ্চিম ইউনিয়নের ষোলদানা গ্রামের কালু বেপারীর ছেলে আব্দুল ধার দেনা করে সদ্য বিবাহিত ও অন্ত:স্বত্তা স্ত্রী অজুফা বেগমকে রেখে সৌদি আরব যায় কর্মের সন্ধানে। গত ৩/৪ বছর পুর্বে আব্দুল মোবাইল ফোনে গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের চরমুথরা গ্রামের মোল্লা বাড়ির আব্দুল জব্বারের মেয়ে শিউলীর সাথে পরকিয়ার জড়িয়ে পড়ে। প্রেমে আসক্ত হয়ে আব্দুল শিউলী ও তার মায়ের বিকাশে দেদারছে অর্থ দেয়।

পরকিয়া প্রেমে মজা আব্দুল এক মাস পুর্বে প্রেমিকা শিউলীকে বিয়ে করার আসায় দেশে আসে। কিন্তু এসে সে জানতে পারে প্রেমিকা শিউলী অন্যত্র বিয়ে হয়ে গেছে। রোববার রাতে সে শিউলীদের বাড়িতে যেয়ে এই সব বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে শিউলীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে। তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসা শিউলীর বোন রহিমা ও তাদের মা খাদিজাকেও কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে।

আশপাশের লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে আব্দুলকে আটক করে। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ আব্দুলকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। রাতেই শিউলী পিতা আব্দুল জব্বার বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে। তবে বাদী এজাহারে পরিকয়ার কথা স্বীকার করে।

এদিকে গুরুতর আহত তিনকে চাঁদপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের অবস্থা আশংকাজনতক হওয়ায় তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে রেফার করে।

মামলার বাদী আব্দুল জব্বার জানান, আব্দুল তার ঘরে প্রবেশ করে মেয়ে শিউলীর সাথে অনৈতিক কাজে লিপ্ত হওয়ার চেষ্টাকালে বাঁধা দিলে তাদেরকে কুপিয়ে আহত করে।

থানায় আটক আব্দুল জানায়, শিউলী ও তার মা খাদিজা তার সাথে প্রতারণা করেছে। প্রেমে জড়িয়ে পড়ে সে বিয়ের আশায় গত ৩/৪ বছরে বিশ লক্ষ টাকা তাদের বিকাশ একাউন্টে পাঠায়। কিন্তু তারা শিউলীকে অন্যত্র বিয়ে দেয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে সে তাদেরকে কুপিয়েছে।

আব্দুলের মামা সিরাজ বেপারী জানান, সাড়ে ১৩বছর পুর্বে আব্দুল সৌদি আরবে গেলেও সে বাড়িতে কোন অর্থ পাঠায় নি। সর্বশেষ রোববার রাতে সে পরকিয়ায় আসক্ত হয়ে এই কা- ঘটিয়েছে।

ফরিদগঞ্জ থানার ওসি(তদন্ত) রাজীব কুমার দাশ আব্দুলকে আটক ও মামলা দায়েরের কথা স্বীকার করেছেন।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
201 জন পড়েছেন