চাঁদপুরে স্থাপিত হচ্ছে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, নির্মাণ স্থান পরিদর্শন

0
19

স্টাফ রিপোর্টার ।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী চাঁদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণের কার্যক্রম শুরু হয়ে গেছে। এটি নির্মাণে প্রাথমিক স্থান হিসেবে চাঁদপুর সদর উপজেলার বাগাদী ইউনিয়নের গাছতলা সেতু সংলগ্ন (মেরিন একাডেমির বিপরীত) ডাকাতিয়া নদীর পাড়ের মনোরম পরিবেশের প্রায় ৩১ একর জায়গা নির্ধারণ করা হয়েছে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

৭ জুলাই শনিবার দুপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণের সেই জায়গা সরজমিনে পরিদর্শন করেছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একটি প্রতিনিধি দল। জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, স্থানীয় সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি, সিভিল সার্জন, পৌর মেয়র ও গণপূর্ত বিভাগের কর্মকর্তা এবং জেলা আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্লানিং, মনিটরিং এন্ড রিসার্চের আয়োজনে চাঁদপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে সম্মিলিত প্রতিনিধি দলের কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ বিষয়ে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণের বিষয়ে সকলে তাদের মতামত তুলে ধরেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ সাইদুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী প্রধান (চিকিৎসা, শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ) রেজওয়ানুল হক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ জামাল হোসেন, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ জেআর ওয়াদুদ টিপু, চাঁদপুর আড়াইশ’ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ মোঃ আনোয়ারুল আজিম, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ডাঃ আরাফাত ও ডাঃ মোঃ সাইফুল ইসলাম, ঢাকা স্থাপত্য অধিদপ্তরের সহকারী প্রধান স্থপতি মোঃ মাসুদ পারভেজ, জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা নুসরাত শারমিন, জেলা আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ সম্পাদক জিল্লুর রহমান জুয়েল, সদস্য আইয়ুব আলী বেপারী, সদর আসনের সংসদ ডাঃ দীপু মনি এমপির প্রতিনিধি অ্যাডঃ সাইফুদ্দিন বাবু, সার্ভেয়ার মোঃ মোস্তফা কামাল, মোঃ শহীদুল ইসলাম, বাগাদী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী পাঠান প্রমুখ।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী প্রধান (চিকিৎসা, শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ) রেজওয়ানুল হক বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের ৫টি জেলায় মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। অন্যান্য মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল যে মডেলের হবে এখানেও একইভাবে নির্মাণ করা হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ জামাল হোসেন বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে যে, এটি প্রধানমন্ত্রীয় প্রতিশ্রুতির একটি প্রকল্প। তাই আমাদের সকলের বিশেষ নজরে এনে বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে হবে। আমাদের কাছে প্রাপ্ত তথ্যের মধ্যে বর্তমানে নির্ধারণ করা স্থানে প্রায় ৩০টির মতো পরিবার রয়েছে। তাদের বিষয়টিও ভাবতে হবে। জমির ন্যায্য মূল্য তাদের নিশ্চিত করতে হবে।

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ বলেন, এই মেডিকেল কলেজটি প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার চাঁদপুরের জনসভায় চাঁদপুরবাসীকে দেয়া অঙ্গীকার। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে যতো দ্রুত সম্ভব এটি যাতে বাস্তবায়ন করা যায় সরকার এ ব্যাপারে খুবই আন্তরিক। এ বিষয়ে আমরা সবাই সর্বোচ্চ সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছি। চাঁদপুর পৌরসভা এবং জেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে। এই কাজে কোনো গাফলতি বা অবহেলা করা যাবে না।

তিনি আরো বলেন, আমাদের সদর আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি এমপি একজন কাজপাগল মানুষ। তিনি চাঁদপুরবাসীর পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি মেডিকেল কলেজ চেয়েছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা সেই দাবি রেখেছেন। আমি বিশ্বাস করি, খুুব শীঘ্রই আমাদের সেই স্বপ্ন পূরণ হবে। তিনি মেডিকেল কলেজটি নির্মাণের ক্ষেত্রে এটিকে দৃষ্টিনন্দন করার দাবি জানান।

জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সদর আসনের এমপি ডাঃ দীপু মনির বড় ভাই ডাঃ জে আর ওয়াদুদ টিপু বলেন, চাঁদপুরে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় আমাদের সদর আসনের এমপি প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি মেডিকেল কলেজ দাবি করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রী তখন তাঁকে কথা দিয়েছিলেন একজন চিকিৎসক হিসেবে এমপি মহোদয়ের এই দাবিটি তিনি রাখবেন। তিনি বলেন, এটি পুরো চাঁদপুরবাসীর দাবি হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই যতো দ্রুত সম্ভব কলেজটি যাতে করা যায় সেই লক্ষ্যে সবাই কাজ করছে। এজন্যে আমরা সাংবাদিক মহলসহ সমগ্র চাঁদপুরবাসীর সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী দেশের ৫টি জেলায় আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত নতুন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নির্মাণ করা হবে। এর মধ্যে চাঁদপুর ছাড়াও অন্য জেলার মধ্যে রয়েছে হবিগঞ্জ, সুনামগঞ্জ, নীলফামারী ও রাঙ্গামাটি। চাঁদপুরে ২৫ থেকে ৩০ একর জমির ওপর নির্মিত হবে মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল। এ প্রকল্পের ডিপিপি প্রণয়নে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য এ দিন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় থেকে উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল চাঁদপুর সফর করেন এবং আলোচনায় মিলিত হন।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
157 জন পড়েছেন