চাঁদপুরে দুই বন্ধু মিলে কিশোরীকে ধর্ষণ

প্রকাশিত : ০৩ আগস্ট, ২০১৮

মতলব উত্তর প্রতিনিধি : অসহায় ও দরিদ্র পরিবারের এক কিশোরীকে রাতের অাঁধারে ঘর থেকে ডেকে নিয়ে দুই বন্ধু মিলে রাতভর ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটে মতলব উত্তর উপজেলার এখলাছপুর ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পশ্চিমপাড়ের বোরোচরে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলেও ধর্ষণকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভুক্তভোগীর পরিবার দুদিন যাবৎ গৃহবন্দী অবস্থায় আছে। বিচারের দাবিতে যেতে পারছে না কোথাও।

গত মঙ্গলবার রাত আনুমানিক ১১টার দিকে বোরোচর গ্রামের মৃত মুকবিল সরকারের ছেলে রাব্বী সরকার (২৫) ওই কিশোরীকে (১৫) কৌশলে ঘর থেকে ডেকে নির্জন জায়গায় নিয়ে যায়। পরিকল্পনানুযায়ী সাথে যোগ হয় স্থানীয় প্রভাবশালী বাবুল বেপারীর ছেলে রাজন বেপারী (২৮)। দুই বন্ধু রাতভর মেয়েটিকে ধর্ষণের পর ভোররাতে তাকে বাড়ির কাছে নিয়ে দিয়ে আসে। খবরটি এলাকায় কানাঘোষা হলেও রাব্বী সরকার ও রাজন বেপারী প্রভাবশালী পরিবারের সন্তান হওয়ায় কেউ মুখ খুলছে না। তাছাড়া মেয়ের পরিবারকে হুমকি দেয়ায় তারাও রয়েছে অনেকটা গৃহবন্দী। স্থানীয় কয়েকজন প্রভাবশালী একজোট হয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে। খোঁজখবর নিয়ে জানা যায়, রাব্বীর সাথে ওই মেয়ের সুসম্পর্ক থাকায় রাতে মেয়েটিকে ঘর থেকে বের করে আনা সহজ হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার জানান, বিষয়টি জেনেছি এবং এ বিষয়ে আমি থানার অফিসার ইনচার্জের সাথে কথা বলছি। থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ারুল হকের সাথে কথা হলে তিনি জানান, এ বিষয়ে কেউ আমাকে অবহিত করেনি। তবে কিছুক্ষণ আগে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আমাকে বিষয়টি জানালেন।

705 জন পড়েছেন

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অনুমতি ব্যতীত এই সাইটের কোনো সংবাদ, ছবি অন্য কোনো মাধ্যমে প্রকাশ আইনত দণ্ডনীয়