চাঁদপুরে বাস-মাইক্রো সংঘর্ষে নিহত ৭, বর-কনেসহ আহত ১৭

0
33

মতলবের ষাটনলে শোকের মাতম ॥ বৌভাতের সাজে সজ্জিত পুরো বাড়ী

সফিকুল ইসলাম রানা :
একেই বলে নিয়তি। বৌ-ভাতের অনুষ্ঠানের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন। পুরেবাড়ী বিভিন্ন সাজে সজ্জিত। দেখলে বুঝাই যায় যে এটি একটি বিয়েবাড়ী। কিন্তু বৌ-ভাতের অনুষ্ঠানের জন্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হলেও বৌ-ভাত যে আর হচ্ছে না। সড়ক দুর্ঘটনায় বর-কনে এখন হাসপাতালের আইসিইউতে। বাড়ীতে বরের বৃদ্ধা মা’কে বাকরুদ্ধ অবস্থায় বসে থাকতে দেখা গেছে, তিনি কোন কথা বলতে পাড়ছেনা।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল মালোপাড়ার কৃঞ্চ বর্মনের ছেলে রাজিব বর্মন রাজু (২৫)নরসিংদী থেকে বিয়ে করে বৌ নিয়ে ফেরাত পথে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের শিবপুরে সোনাইমুড়ি ইটাখোলা নামক স্থানে যাত্রীবাহী বাসের সাথে তাদের মাইক্রেবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

১৪ আগস্ট মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৩জনসহ ৭জন নিহত হবার খবর পাওয়া যায়। আহত হয় অন্তত ১৭জন। এর মধ্যে বর-কনে দুজনই বর্তমানে হাসপাতালের আইসিইউতে আছে বলে জানান ষাটনল মালোপাড়ার স্থানীয় ইউপি সদস্য ফুলচান বর্মন।

দুর্ঘটনায় নিহত চাঁদপুরের মতলব উপজেলার ষাটনল মালো পাড়া এলাকার সুজন বর্মন (৩২), তার স্ত্রী ভুলুরানী মিতু(২৬) তাদের মেয়ে স্নিগ্ধা বর্মন (৭)। এরা বরের বোন, বোনের জামাই ও ভাগ্নি।

এছাড়াও নিহত হয়- আড়াইহাজারের ধুুপতারা এলাকার নির্মল বর্মনের মেয়ে বৃষ্টি বর্মন (৬) এবং নরসিংদীর নবোয়ারচর এলাকার সুবল বর্মনের মেয়ে প্রান্তিকা বর্মন (৫)। বাকী ২জনের ঠিকানা এখনো জানা যায়নি।

দুর্ঘটনায় আহত বর রাজিব বর্মন রাজু (২৫) ও কনে রমা বর্মনসহ (২০) অন্তত১৭ জন। তারা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী ।

আহত বাকীরা হলো- চাঁদপুরের মতলব উত্তরের নিলতা বর্মণ (৩০), অনিক চন্দ্র বর্মন (১৫), বিক্রম চন্দ্র বর্মন (৪২), সজল (৩০), শুভ বর্মন (২৫), রাজিব বর্মন (২৫), নরসিংদীর রায়পুরার আমজাদ (৩৫), রুমা বর্মন (২৩), সোমা বর্মন (২৫), সায়ন্তিকা (৫), ডেমরার দেলোয়ার হোসেন (২৪), আড়াইহাজারের সৌরভ বর্মন (১০), জামান (৩২), মুন্সীগঞ্জের সোহাগ (২৮) এবং কিশোরগঞ্জের জমশেদ (৩৫)। আহতদের প্রথমে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ও পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা।

নিহতদের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল সোমবার দিবাগত রাতে মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল মালোপাড়া এলাকার রাজিব বর্মন রাজুর সাথে নরসিংদীর মরজাল ইউনিয়নের নভোয়ারচর এলাকার রুমা বর্মনের বিয়ে হয়। বর যাত্রীর ৪টি মাইক্রোবাসের মধ্যে বর-কনের বাসটিই দুর্ঘটনার শিকার হয়।

এ নিউজ লেখা পর্যন্ত বরের বোন ভুলুরানী মিতুর লাশ বাড়ীতে এসে পৌঁছলে স্বজনদের কান্নায় এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে। মিতুর স্বামী সুজন বর্মন ও তাদের কন্যা ¯িœগ্ধা’র লাশ কাছাকাছি এসে পোঁছেলে বলে জানায় স্থানীয় মৎস্য প্রতিনিধি ইমাম হোসেন।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
451 জন পড়েছেন