Health logo

Azoospermia বা বন্ধাত্ব যেভাবে দূর হয়

আজও আমাদের সমাজে বন্ধ্যাত্ব এবং স্ত্রীরোগ নিয়ে খোলাখুলি আলোচনা করতে অনেকেই চান না। কিন্তু অন্য আর পাঁচটি শারীরিক সমস্যার মতোই এগুলিও একটি সমস্যা।

অথচ চিকিৎসা করলেই এ সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। কিন্তু ভারতীয় উপমহাদেশে সচেতনতার অভাবে প্রাথমিক অবস্থায় বেশির ভাগ মহিলাই চিকিৎসা করান না।। ফলে সমস্যা বাড়তে বাড়তে জটিল আকার ধারণ করে।

বন্ধ্যাত্বের কারণ গুলি কি কি?

প্রথমেই বলি বন্ধ্যাত্ব শুধু মহিলাদের শারীরিক সমস্যা নয়। এটা মহিলা পুরুষ উভয়েরই সমস্যা হতে পারে। মহিলাদের ক্ষেত্রে বন্ধ্যাত্ব’র কারণ গুলির মধ্যে একটি প্রধান- হল আধুনিক জীবনযাত্রার প্রভাব। এছাড়াও অন্যান্য বড় কারণ গুলি হল বেশী বয়েসে বিয়ে, প্রথম গর্ভস্থ শিশুকে গর্ভে নষ্ট করে দেওয়া, অ্যাবরসন, টিউবাল ব্লকেজ বিবিধ।

আধুনিক জীবনযাত্রার সঙ্গে খুব বেশী জড়িয়ে যাওয়া যে কোন মানুষেরই শরীরে বিরূপ প্রতিক্রিয়া ফেলে। অতিরিক্ত মশল্লা দেওয়া হোটেল রেস্তরার খাবার খাওয়া থেকে শুরু করে, সঠিক বিশ্রাম না নেওয়া, ভাত-রুটি থেকে সরে গিয়ে পিজা-বার্গার এর ভক্ত হয়ে ওঠা এই সব কিছুই সমস্যার কারণ। তার সঙ্গে “কোল্ড ড্রিঙ্ক”-এর অতিরিক্ত ব্যবহার বন্ধ্যাত্বর অন্যতম কারণ।

এছাড়া অ্যাবরসন করা হলে অনেক সময়ই তা সঠিকভাবে করা হয় না। এরফলে হতে পারে সংক্রমণ এবং এটিও বন্ধ্যাত্বর একটি প্রধান কারণ। এছাড়া বিভিন্ন কারণে তৈরি হয় ‘টিউবাল ব্লকেজ’র ফলেও জন্ম নেয় বন্ধ্যাত্বর সমস্যা।

কী পরিমাণ মহিলা বন্ধাত্বর শিকার?

ভারত-বাংলাদেশের হিসাব ধরলে বলা যেতে পারে ৬ জন মহিলার মধ্যে ১ জন মহিলা বন্ধ্যাত্বর শিকার। গোটা পৃথিবীর হিসাবটাও এরই কাছাকাছি।

বেশি বয়েসে মহিলাদের বিয়ের ক্ষেত্রে আপনি যে সমস্যা মনে করেন?

সমাজ বদল হচ্ছে । আজকের নারীরা সমাজে এগিয়ে যাচ্ছে। তারা পড়াশুনা করে নানা গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব সামলাচ্ছেন। শুধু তারা উপার্জন করছেন তাই নয়- তারা দেশ ও সমাজের প্রগতির অঙ্গ হিসেবে পুরুষদের সঙ্গে সমানভাবে কাজ করে চলেছেন।

কিন্তু অনেক সময় জীবনের অন্যদিকের কাজ-কর্মে সময় দিতে গিয়ে দেরী করে তাদের বিয়ে হচ্ছে। সেখানেই শুরু হতে পারে সমস্যা।

কি কারণে বেশি বয়সে এই সমস্যা হয়?

খুব সহজ করে বলতে গেলে মহিলাদের ৩৫ বছর বয়সের পর এই সমস্যা হতে পারে। চিকিৎসার জটিল ভাষা না বলেও বলা যায় MAFH,MAH,TSH এই তিনটি হরমোন গর্ভবতী হবার ক্ষেত্রে খুব গুরুত্ব পূর্ণ কাজ করে।

মহিলাদের ৩৫ বছর হবার পর MAFH হরমোন এর ক্ষরণ বেড়ে যায় ও MAH হরমোন এর ক্ষরণ কমে যায় এর ফলে সমস্যা হয়। এছাড়াও বেশ কিছু কারণ আছে।

অতিরিক্ত ওজন কি সমস্যার কারণ?

অবশ্যই। তবে এটা শুধু মহিলাদের নয় পুরুষদেরও সমস্যার কারণ। অতিরিক্ত ওজন কমাতেই হবে। এটি আজকের দম্পতিদের একটি প্রধান সমস্যা।

পুরুষদের ক্ষেত্রে কি কি সমস্যা হতে পারে?

অনেক পুরুষের সমস্যাও বন্ধ্যাত্বের কারণ। যে সমস্যা গুলি বেশি দেখা যায় সেগুলি হোল “স্পার্ম কাউন্ট” কমে যাওয়া। খুব দ্রুত “স্পার্ম” মরে যাওয়া ইত্যাদি। এছাড়া আছে “মামস” বা বিভিন্ন যৌন সংক্রমণ জাতীয় রোগের শিকার হওয়া। এই গুলিও বন্ধ্য‍াত্বের অন্যতম কারণ।

কারণ গুলি কি কি?

আবারও বলতে হবে আধুনিক জীবনযাত্রা আর খাদ্যাভ্যাসের কথা। ধূমপান, অতিরিক্ত পরিমাণে অ্যালকোহল সেবন, ঠাণ্ডা পানীয় খাওয়ার ফলে “স্পার্ম কাউন্ট” কমে যায়। এর ফলে তৈরি হয় বন্ধাত্ব। অপর দিকে বাড়তে থাকে ওজন, সেটি বন্ধ্যাত্বের অপর একটি কারণ।

মহিলাদের আর একটি সমস্যা অনিয়মিত ঋতুচক্র। একজন স্ত্রীরোগ বিশেষঞ্জ হিসেবে আপনি সমস্যাটিকে কি ভাবে দেখেন?

এটি কিশোরী থেকে শুরু করে ৪০ বছরের বেশি বয়সের মহিলাদের মধ্যে প্রচুর পরিমাণে দেখা যায়। এর কারণ অনেকটাই খাদ্যাভাস। এছাড়া আছে বাড়তে থাকা ওজন। বাড়িতে রান্না খাবার ছেড়ে বিরিয়ানি, চপ, কাটলেট-এর প্রতি প্রবল ভালবাসা এটির অন্যতম কারণ।

http://picasion.com/
তবে এই সমস্যাকে ফেলে রাখা একদমই উচিত নয় অনেকেই এটাকে নিয়ে অবহেলা করেন। এই সমস্যার দ্রুত সঠিক চিকিৎসা করা উচিত।

এই বন্ধ্যাত্ব সমস্যা থেকে সমাধানের রাস্তা বলুন?

এসব সমস্যা থেকে দুরে থাকতে হলে পুরুষ এবং মহিলা উভয়কেই সুস্থ জীবন শৈলীতে ফিরে আসতে হবে। সময় মত নিয়ম করে খাওয়া, তেল জাতীয় খাদ্য যতটা সম্ভব কম খাওয়া, প্রচুর পরিমাণে সবুজ এবং তাজা শাক- সবজী খাওয়া। বাইরের মুখরোচক খাবার ছেড়ে ঘরে বানান পুষ্টিকর খাবার খাওয়া।

এছাড়াও নিয়মিত শরীর চর্চা এবং ওজন বাড়তে না দেওয়া। এই গুলি বজায় রাখলে এই ধরণের সমস্যা থেকে দূরে থাকা যায়। তবে এরপরও সমস্যা দেখা দিলে সঠিক চিকিৎসা শুরু করা দরকার।

এই দ্রুততর এবং মানসিক চাপ যুক্ত জীবনে কি এই জীবন শৈলী বজায় রাখা সম্ভব? কাজের চাপ বা মানসিক চাপ কি সমস্যাকে বাড়িয়ে দেয় না?

সুস্থ থাকতে হলে সঠিক সময় পুষ্টিকর খাদ্য খেতে হবে- তা সে যতই কাজের চাপ থাক না কেন। প্রতিদিন শরীর চর্চা করতে হবে। খুব কম করে হলেও ১৫ মিনিট।

ওজন বাড়লে হাজির হবে আরও নানা রকম রোগ। বন্ধ করতে হবে ঠাণ্ডা পানীয় সহযোগে পিজা, বার্গার, চপ, কাটলেটসহ তেল, চর্বি জাতীয় খাবার।

কি ধরনের রোগী আপনার কাছে বেশী আসে?

বিভিন্ন ধরনের জটিল রোগীরা আসেন। কারো বাচ্চা জন্মানোর পর কোন সমস্যা নিয়ে, কারো বা তার আগের কোন সমস্যা নিয়ে। অনেক গর্ভবতী মা-র সুগার, মৃগী রোগ, উচ্চরক্ত চাপের সমস্যা থাকে তারাও আসেন। এছাড়া স্ত্রীরোগ এবং বন্ধ্যাত্ব সমস্যার রোগীরা তো আছেনই।

ইতোমধ্যেই রোগীরা আসতে শুরু করেছেন কলকাতার চারু চন্দ্র প্লেসের তার চেম্বারে। এছাড়াও তিনি আরও চারটি জায়গায় রোগি দেখেন। মাত্র দশ জন রোগি দেখেন ডাক্তার পি কে সেন ।

তিনি আগেই জানিয়েছিলেন অনেক রোগী আসেন বাংলাদেশ থেকে। মনে হচ্ছিল সেই রকম এক জন কারো সঙ্গে দেখা হলে ভালো হত। কথা শেষ করে বেড়িয়ে এলাম তার ঘর থেকে। বাইরে কয়েকজন বসে আছেন। জানতে চাইলাম কোথা থেকে এসেছেন?

পেয়েও গেলাম একজনকে। শেখ সাহেব ও ফ্যান্সী বিবি। এসেছেন ঢাকা থেকে। প্রশ্ন করলাম কি করে সন্ধান পেলেন এই ডাক্তারের? স্বাভাবিক কারণেই একটু ইতস্তত ভাব। শেখ সাহেব পোশাক ব্যবসায়ী, বয়স ৪১ ফ্যান্সী বিবির বয়স ২৫। জানালেন ঢাকা হাইকোর্টের এক মহিলা উকিলের কাছ থেকে সন্ধান পেয়ে এখানে এসেছেন।  সেই উকিল এই ডাক্তারবাবুর কাছে চিকিৎসা নিয়ে আজ “মা” হয়েছেন।

Azoospermia কী?

আজোস্পারম্মিয়া একজন ব্যক্তির স্বাস্থ্যগত অবস্থা, যার বীর্য কোন শুক্রাণু নেই। এটি বন্ধ্যাত্ব সঙ্গে যুক্ত করা হয়, কিন্তু অনেক ফর্ম চিকিৎসা চিকিত্সাযোগ্য হয়। মানুষের মধ্যে, azoospermia পুরুষ জনসংখ্যার 1% প্রভাবিত করে এবং পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব অবস্থার 20% পর্যন্ত দেখা যেতে পারে।

তালিকাভুক্ত হিসাবে আজোস্পেরমিয়াটি তিনটি প্রধান ধরনের শ্রেণীভুক্ত করা যায়। তালিকাভুক্ত অনেক শর্তের এছাড়াও azoospermia এর পরিবর্তে oligospermia বিভিন্ন ডিগ্রী হতে পারে।

Pretensular azoospermia অন্যথায় স্বাভাবিক testicles এবং জিন ট্র্যাক্ট অপর্যাপ্ত উদ্দীপনা দ্বারা চিহ্নিত করা হয়। সাধারণত, শুক্রবিন্দু-উদ্দীপক হরমোন (এফএসএইচ) স্তর কম (হাইপোগোনাডোট্রোপিক) সংমিশ্রণে শুক্রাণু উৎপাদনে পরীক্ষার অপর্যাপ্ত উদ্দীপনার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। উদাহরণ হাইপোপ্রিটাইটিয়ারিজম (বিভিন্ন কারণের জন্য), হাইপারপ্রোলাইটিসিনিমিয়া, এবং টেসটোসটের দ্বারা বহিরাগত FSH দমন অন্তর্ভুক্ত। কেমোথেরাপি শুক্রাণু উত্পন্ন করতে পারে। প্রিভেনশিয়াল azoospermia azoospermia প্রায় 2% দেখা হয় প্রিটেসিটারিয়াল অজোশার্মিয়া হল একটি ধরনের অ-প্রতিরোধকারী এওোওস্কার্মিয়া।

কিৎসা
প্রাক- এবং post-testicular azoospermia প্রায়শই সংশোধন করা হয়, testicular azoospermia সাধারণত স্থায়ী হয়, যখন। সাবেক azoospermia কারণ বিবেচনা করা প্রয়োজন এবং এটি সরাসরি এই পরিস্থিতি পরিচালনা করতে সম্ভাবনা আপ খোলার। সুতরাং hyperprolactinemia কারণে azoospermia সঙ্গে পুরুষদের hyperprolactinemia বা যাদের শুক্রাণু উত্পাদনের exogenous এন্ড্রোজেন দ্বারা দমন করা হয় অর্রেন খাওয়ার এর অবসান পরে শুক্রাণু উত্পাদন আশা করা হয় পুরুষদের চিকিত্সা পরে শুক্রাণু উত্পাদন পুনরায় শুরু করতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে যেখানে testes স্বাভাবিক কিন্তু অস্বাভাবিক, gonadotropin থেরাপি শুক্রাণু উত্পাদন প্রবৃদ্ধি হতে পারে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে একটি বড় অগ্রগতি আইসিএস-এর সাথে আইভিএফ এর প্রবর্তন হয়েছে যা গর্ভাধানের টিস্যু থেকে সরাসরি প্রাপ্ত অপ্রাপ্য শুক্রাণু বা শুক্রাণু দিয়েও সফল গর্ভাধানের অনুমতি দেয়। আইভিএফ-আইসিএসআই দম্পতিদের গর্ভধারণের জন্য অনুমতি দেয়, যেখানে লোকটি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ অজস্রাব্ম্মিয়া পর্যন্ত দীর্ঘস্থায়ী হয়, যেহেতু testes থেকে শুক্রাণু উপাদান পুনরুদ্ধার সম্ভব। এইভাবে অ মূষিক Klinefelter এর সিন্ড্রোম সঙ্গে পুরুষদের IVF-ICSI ব্যবহার করে শিশুদের জন্ম দিয়েছে গর্ভাবস্থা এমন পরিস্থিতিতে ঘটেছে যেখানে অজোস্পেরমিয়ায় ক্রিপ্টরচিজম এবং শুক্রাণু সাথে যুক্ত হয় যেখানে testicular শুক্রাণু নিষ্কাশন (টিইএসই) দ্বারা প্রাপ্ত।

Posttenseller azoospermia সঙ্গে পুরুষদের মধ্যে অনেক পন্থা উপলব্ধ। প্রতিরোধকারী azoospermia জন্য IVF- আইসিএসআই বা সার্জারি ব্যবহার করা যেতে পারে এবং চিকিত্সার পছন্দ জন্য বিবেচনা করা প্রয়োজন পৃথক কারণ। ক্ষতিকারক বিমোহিতকরণের জন্য ঔষধ সহায়ক হতে পারে।

রোগীর অবস্থা শুনে ও দেখে সারাদেশের যে কোনো জেলায় বিশ্বস্ততার সাথে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

Hakim Mizanur Rahman New ad

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে বিশ্বস্ততার সাথে ঔষধ ডেলিভারী দেওয়া হয়।

ঔষধ পেতে যোগাযোগ করুন :

হাকীম মিজানুর রহমান (ডিইউএমএস)
হাজীগঞ্জ, চাঁদপুর।
একটি বিশ্বস্ত অনলাইন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠান।

মুঠোফোন : 01742-057854

(সকাল দশটা থেকে বিকেল ৫টা)

ইমো/হোয়াটস অ্যাপ : 01762-240650

শ্বেতীরোগ একজিমাযৌনরোগ, পাইলস (ফিস্টুলা) ও ডায়াবেটিসের চিকিৎসক।

সারাদেশে কুরিয়ার সার্ভিসে ঔষধ পাঠানো হয়।

আরো পড়ুন : অর্শ বা পাইলস হলে কী করবেন ?

আরো পড়ুন : অ্যালার্জি দূর করবে ৫টি খাবার

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ, লক্ষ্মণ ও চিকিৎসা

আরো পড়ুন : যৌন রোগের কারণ ও প্রতিকার

আরো পড়ুন : ডায়াবেটিস প্রতিকার ও প্রতিরোধে শক্তিশালী ঔষধ

আরো পড়ুন : মেহ প্রমেহ ও প্রস্রাবে ক্ষয় রোগের কার্যকরী সমাধানসমূহ

আরো পড়ুন : গেজ, অশ্ব,পাইলসের সহজ চিকিৎসা

 338 সর্বমোট পড়েছেন,  3 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন

Leave a Reply