pneumonia

নিউমোনিয়ার চিকিৎসা

এ সময়ে শিশুরা বেশি করে নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে। নিউমোনিয়া শব্দটির সঙ্গে আমরা প্রায় সবাই পরিচিত। এতে ফুসফুসে ইনফেকশন হয় এবং চিকিৎসা না করালে মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। শীতে শিশু এবং বয়স্কদের মৃত্যুর অন্যতম কারণ এই নিউমোনিয়া। তবে এ অসুখ বছরব্যাপী হতে পারে। তাই এ সম্পর্কে আমাদের যথাযথ ও পর্যাপ্ত জ্ঞান এবং সচেতনতা জরুরি।

রোগের কারণ
সাধারণত শীতে ভাইরাস থেকে নিউমোনিয়া হয়। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বা ইমিউনিটি কম অর্থাৎ যারা শিশু ও বৃদ্ধ তাদের ভাইরাসজনিত জটিলতায় সুযোগসন্ধানী ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ করে এবং নিউমোনিয়া ঘটায়। তাই বেশিরভাগ নিউমোনিয়াই ব্যাকটেরিয়াঘটিত এবং কিছু ক্ষেত্রে ভাইরাসজনিত হয়।

যেভাবে বুঝবেন
নিউমোনিয়া হয়েছে কি-না তা বোঝার প্রধান লক্ষণ তিনটি।
১. জ্বর, ২. কাশি। সঙ্গে শ্বাসকষ্ট থাকতেও পারে বা নাও থাকতে পারে। ৩. বুকে ব্যথা বা শ্বাসকষ্ট। বড়দের ক্ষেত্রে ওপরের লক্ষণগুলো হয়ে থাকে। খুব ছোট বাচ্চাদের ক্ষেত্রে নিচের লক্ষণ থাকে।

১. জ্বরের সঙ্গে শ্বাসকষ্ট। ২. বাচ্চা টক্সিক বা নিস্তেজ হয়ে পড়া অর্থাৎ খেলাধুলা না করা, খেতে
না চাওয়া ইত্যাদি।

রোগ জটিলতা
কোনো কোনো রোগী নিউমোনিয়ার বিভিন্ন জটিলতা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে আসেন। এ থেকে জটিলতায় নিউমোনিয়া-পরবর্তী ফুসফুসে স্থায়ী ক্ষত বা ব্রঙ্কিয়েকটেসিস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। রোগের জটিলতা হলো রেসপিরেটরি ফেইলুর বা ফুসফুস অকার্যকর হয়ে যাওয়া, ফুসফুসের চারপাশে তরল জমা, ফুসফুসে পুঁজ, এরডিএস, মেনিনজাইটিস এবং সেপটিসেমিয়া অর্থাৎ সারাদেহে জীবাণুর সংক্রমণ। শ্বাসকষ্ট নিউমোনিয়া বা অ্যাজমার জন্যও হয়। এটি নির্ণয়ের জন্য চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে এবং তিনিই পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে নির্ধারণ করবেন রোগী অ্যাজমা না নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত।

চিকিৎসা পদ্ধতি
জ্বর কমানোর ওষুধ, খাবারের নির্দেশিকা, কাশির জন্য নেবুলাইজেশন এসব হলো নিউমোনিয়ার উপসর্গভিত্তিক চিকিৎসা। নিউমোনিয়ার নির্দিষ্ট বা স্পেসিফিক চিকিৎসা হলো রোগের কারণভিত্তিক চিকিৎসা। ভাইরাস, ব্যাক্টেরিয়া, ফাঙ্গাশ যে কারণে হোক তদানুযায়ী চিকিৎসা নিতে হবে। বড় বা ছোটদের শ্বাসকষ্ট এবং কাশির সঙ্গে রক্ত গেলে, উচ্চমাত্রার জ্বর সঙ্গে কাশি ও শ্বাসকষ্ট, বুক ব্যথা হলে সরাসরি হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয়।

প্রতিরোধে করণীয়
যেহেতু শীতেই নিউমোনিয়া বেশি হয়ে থাকে, তাই শীত না লাগার যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে। এজন্য-
গরম জামা-কাপড় পরতে হবে। শিশুদের সর্দি-কাশি হলে মোটেই অবহেলা করবেন না। শিশুদের যথাযথ পুষ্টির দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে। বড়রা যারা এতে শ্বাসকষ্টের রোগ আক্রান্ত হোন তারা নিউমোকক্কাসের ভ্যাকসিন নিয়ে রাখবেন। এছাড়া বাচ্চাদের এ সিজনে ইনফ্লুয়েঞ্জার ভ্যাকসিনও দিয়ে রাখা ভালো।

Hakim Mizanur Rahman

হাকীম মুহাম্মদ মিজানুর রহমান (বিএসএস, ডিইউএমএস)

মুঠোফোন :  01834880825

+88 01777988889 (Imo-whatsApp)

+88 01762240650

( যোগাযোগ : সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ১টা এবং  ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা, নামাজের সময় ব্যতীত)

ফেইসবুক পেজ : web.facebook.com/ibnsinahealthcare

সরাসরি যোগাযোগ : IBN SINA HEALTH CARE, Hazigonj. Chandpur.

ই-মেইল : [email protected]

শ্বেতীযৌনরোগহার্পিসপাইলসডায়াবেটিস,  অ্যালার্জি, লিকুরিয়াব্রেনস্ট্রোক, হার্ট ও শিরার ব্লকেজউচ্চ রক্তচাপ,হার্ট অ্যাটাকচর্মরোগক্যান্সার, আইবিএস, বাত বেদনা জন্ডিসলিভার সমস্যাস্ত্রী রোগআইবিএস, বন্ধাত্ব, গাউট, পক্ষাঘাত, স্বপ্নদোষ নিরাময়-সহ সর্বরোগের চিকিৎসা করা হয়।

আপডেট : বাংলাদেশ সময় : ১১:৪৪ এএম, ২৪ অক্টোবর ২০১৮ খ্রি.বুধবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর

নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন এবং শেয়ার করুন …

 

1,273 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন