ফরিদগঞ্জে একের পর এক মামলার আতংকে হুমায়ুন কবির

0
34

ঘর ভাংচুরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আবারো সেই মামলার ফাঁদে পড়ার আশংকা

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৪নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের চরবড়ালী গ্রামের মরহুম ইসমাইল হোসেনের ৪ সন্তানের মধ্যে ছেলে হুমায়ুন কবির জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গাছ কাটা, মারধরসহ সাতটি মিথ্যা ও হয়রানি মূলক মামলা মাথায় নিয়ে ঘুরছেন। বর্তমানে ওই মামলাগুলোতে জামিনে এসে কিছুটা নির্ভয় থাকলেও সর্বশেষ একটি ঘর ভাংচুরের ঘটনাকে আবারো সেই মামলার ফাঁদে পড়ার আশংকা ব্যক্ত করেছেন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ফরিদগঞ্জ উপজেলার ১৪নং ফরিদগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের চরবড়ালী গ্রামের মরহুম ইসমাইল হোসেনের চা সন্তানের মধ্যে ছেলে হুমায়ুন কবির। ওই গ্রামের বরকন্দাজ বাড়ীতে তাদের পৈত্রিক সম্পত্তি থাকলেও এই সম্পত্তি ক্রয় বিক্রয়ের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিবাদ এবং পরে হয়রানি মূলক মামলা নিয়ে গত ৭/৮ বছর ধরে পথে পথে ঘুরছেন হুমায়ুন।

হুমায়ুন কবির জানান, ‘আমার জেঠাতো ভাই আ: মালেকের সাথে আমার একটি জমি বিক্রয়ের বিষয়ে মৌখিক কথা হয়। সেই অনুযায়ী একটি টাকা মৌখিক কথা অনুযায়ী প্রদান করলেও পরবর্তীতে তার ছেলে শরীফকে বিদেশে পাঠানোর কথা বলে সেই অর্থ নিয়ে যায়। এরই মধ্যে তাদের জমিতে পাকা ভবন নির্মানের সময় আমাদের সম্পত্তিতে আপদকালিন সময়ের জন্য ঘরে তুলে তারা থাকলেও ভবন নির্মাণ কাজ শেষ হলেও তারা আর ওই ঘর সরায় নি এবং দখল করে রাখে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাদের সাথে আমার পরিবারের বিবাদ সৃষ্টি হয়। তারা আমার বিরুদ্ধে ঢাকা সহ অন্যস্থানে দুইটি মামলা দায়ের করে । সর্বশেষ গত ২২ অক্টোবর রাতে আঁধারে আমাদের সম্পত্তির উপর জবর দখল করে থাকা ঘরটি কে বা কারা ভাংচুর করে । এসময় ভাংচুরকারীরা আমার বোনের ঘরে হামলা চালিয়ে আলমিরা ভেঙ্গে ব্যাংক থেকে উত্তোলনকৃত নগদ ২ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়।এব্যাপারে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

এছাড়া একই বাড়ির আরেক অংশীদারের সাথে জমি সংক্রান্ত ঝামেলাকে কেন্দ্র করে আমার বিরুদ্ধে চাঁদপুর আদালতে ও ফরিদগঞ্জ থানায় মিথ্যা ৫টি মামলা দায়ের করে। যার তদন্তে সবগুলোই পর্যায়ক্রমে মিথ্যা বলে প্রমানিত হচ্ছে। এদিকে একের পর মামলা ও হুমকির কারণে নিজ বাড়ি ছেড়ে গত বেশ কয়েক বছর ধরে ফরিদগঞ্জে এসে বসবাস করছেন’।

এব্যাপারে হুমায়ুন কবিরের বোন কহিনুর বেগম জানান, ‘তারা সব সময় আতংকের মধ্যে বসবাস করছেন। তাদের পিতার মৃত্যু রহস্য বিষয়ে জানা কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন বোন ফিরোজাও গত ২ বছর ধরে নিখোঁজ। তার একমাত্র ভাই মামলা মাথায় নিয়ে এলাকা ছাড়া’।

এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম সোহেল জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে এই অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। মামলা মোকাদ্দমা চলছে। তবে সম্প্রতি ঘর ভাংচুরের ঘটনায় কয়েকদিনের মধ্যে সালিশী বৈঠকের ব্যবস্থা হচ্ছে। আশা করছি সুরাহা করতে সমর্থ হবো।

অন্যদিকে আ: মালেকের স্ত্রী সুফিয়া বেগম হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা ও ঘর ভাংচুরের অভিযোগ বিষয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের জানান, ‘হুমায়ুন তাদের কাছে জমি বিক্রির কথা বলে টাকা নিলেও তা নিয়ে জমি বুঝিয়ে দিতে গত বেশ কয়েক বছর ধরে টালবাহানা করছে। তারাই এখন নিজেরা ঘর ভেঙ্গে আমাদের কথা বলছে। হুমায়ুন কবিরের বিরুদ্ধে মামলা দেয়ার কথা তিনি স্বীকার করেন’।

আপডেট : বাংলাদেশ সময় : ০৫:২৭ পিএম, ৩১ অক্টোবর ২০১৮ খ্রি.বুধবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর

নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেইসবুক পেইজে লাইক দিন এবং শেয়ার করুন …

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
747 জন পড়েছেন