ফরিদগঞ্জে পুলিশী হামলার অভিযোগ করে এমএ হান্নানের সংবাদ সম্মেলন

0
248

‘অতি উৎসাহী হয়ে পুলিশ হামলা মামলা করে আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করছে ॥ আমি এই ওসি’র প্রত্যাহারের দাবি করছি’

ফরিদগঞ্জ ব্যুারো :
‘বিনা উস্কানিতে পুলিশ আমাদের শান্তিপূর্ণ শোডাউনে অতর্কিত হামলা করেছে। আমাদের নেতাকর্মীদের পিটিয়ে আহত করেছে। গ্রেফতার করেছে। অতি উৎসাহী হয়ে পুলিশ আমাদের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করছে। ফরিদগঞ্জে কোন কলঙ্কজনক অধ্যায় সৃষ্টি হলে এর দায় পুলিশকে নিতে হবে। নির্বাচনী প্রচারণায় পুলিশি হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন চাঁদপুর-০৪ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী এম. এ. হান্নান। সোমবার সন্ধ্যায় ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ সংবাদ সম্মেলনে তিনি এই কথা বলেন।

আরো পড়ুন : ফরিদগঞ্জে পুলিশের সাথে সংঘর্ষ : পুলিশসহ আহত ৩০ ॥ আটক ২

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এম. এ হান্নান বলেন, ‘আজ আমরা মার্কা পেয়েছি। আজ নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় বা মিটিংয়ে বাধা নেই। আমরা শান্তিপূর্ণ প্রচারণা নিয়ে বাজারে পৌঁছলে পুলিশ অতর্কিত হামলা করেছে। গুলি বর্ষণ করেছে। পুলিশের হামলায় উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক শরীফ মোহাম্মদ ইউনুছ, পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আমানত গাজী সহ ২০/২৫ জনকে আহত করেছে। আরিফ হোসেন পাটওয়ারী, ইমাম হোসেন সহ আমার কর্মীদের গ্রেফতার করেছে। এখন পুলিশ উল্টো গল্প তৈরির পাঁয়তারা করছে। আমরা রিটার্নিং অফিসারের কাছে এ হামলার তদন্তপূর্বক বিচার দাবি করছি।’ এ সময় তিনি ওসির প্রত্যাহার দাবি করেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক শরীফ মোহাম্মদ ইউনুছ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মজিবুর রহমান, ফরিদগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র মঞ্জিল হোসেন, পৌর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক আমানত হোসেন গাজী, পৌর কাউন্সিলর জাকির হোসেন গাজী, পৌর যুবদলের আহ্বায়ক মহসিন মোল্লা, জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল মতিন, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রেবেকা সুলতানা, বিএনপি নেতা, ডাঃ আবুল কালাম আজাদ, সাবেক চেয়ারম্যান- মফিজুল ইসলাম, শাহাদাৎ হোসেন নয়ন ও হারুনুর রশীদ, বিএনপি নেতা, আবু জাফর খোসরু মোল্লা, মজিবুর রহমান বকুল, আহসান উল্যা কিরণ, সাবেক জিএস নজরুল ইসলাম, যুবদল নেতা ফারুক হোসেন খান প্রমুখ।

আপডেট : বাংলাদেশ সময় :০৮:৫২ পিএম, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ খ্রি. সোমবার

 

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
247 জন পড়েছেন