প্রেমিক-প্রেমিকার মরদেহ ঝুলছিলো একই রশিতে

0
524
মনির হোসেন এবং একই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল করিমের মেয়ে কল্পনা আক্তার

প্রকাশিত: ০১:২২ পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮

জেলা প্রতিনিধি শেরপুর  :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এক রশিতে ঝুলন্ত অবস্থায় প্রেমিক-প্রেমিকার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের পশ্চিম পিরিচপুর গ্রাম থেকে শুক্রবার সকালে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন- শ্রীবরদীর পশ্চিম পিরিচপুর গ্রামের আব্দুল বারিকের ছেলে মনির হোসেন (২৬) এবং একই গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল করিমের মেয়ে কল্পনা আক্তার (২২)।

শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রহুল আমিন তালুকদার জানান, স্থানীয়দের কাছ থেকে সংবাদ পেয়ে দুই তরুণ-তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা রেকর্ড করে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুটি জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মনির হোসেন এলাকায় কৃষিকাজের সঙ্গে জড়িত। তার সঙ্গে কল্পনা আক্তারের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। কিন্তু দুই পরিবারের কেউই তাদের এ সম্পর্ক মেনে নেয়নি। এক পর্যায়ে মনিরকে তার পরিবার বিয়ে দেয় এবং তার ঘরে এক সন্তান রয়েছে। কিন্তু তাদের মাঝে গোপন যোগাযোগ ছিল।

কিছুদিন আগে কল্পনাকেও তার পরিবার হিম্মত আলী নামে গাজীপুরে চাকরিরত এক ছেলের সঙ্গে বিয়ে দেয়। এরপর থেকে তাদের মাঝে যোগাযোগ কমে যায়। কয়েক দিন আগে কল্পনা আক্তার বাবার বাড়ি বেড়াতে আসেন এবং মনিরের সঙ্গে গোপনে যোগাযোগ করেন।

অবশেষে বৃহস্পতিবার রাতে তারা পার্শ্ববর্তী আব্দুল খালেকের বাড়ির পাশের জাম্বুরা গাছের ডালে এক রশিতেই ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। শুক্রবার সাকালে আশপাশের লোকজন তাদের মরদেহ ঝুলতে দেখে থানায় খবর দেয়। পুলিশ সকাল ৮টার দিকে ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
305 জন পড়েছেন