‘সমস্ত নেতা থানা ঘেরাও করো’, রনির ফোনালাপ ফাঁস

0
64

প্রকাশিত: ১২:২৬ এএম, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

স্ত্রীর পরিবারকে হামলার জেরে পটুয়াখালীর গলাচিপা থানা ঘেরাওয়ের নির্দেশ দেন পটুয়াখালী-৩ আসনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী গোলাম মাওলা রনি। ইউটিউবে ভাইরাল হওয়া একটি অডিওক্লিপে রনি বিএনপির একজন নেতাকে সুযোগ কাজে লাগিয়ে হাজার হাজার নেতাকর্মীকে জড়ো করে থানা ঘেরাওয়ের নির্দেশ দেয়ার কথা শোনা যায়।

১৫ ডিসেম্বরের স্থানীয় বিএনপি নেতা শাহজাহান খানের সঙ্গে কথোপকথনের অডিও ক্লিপে শোনা যায়, রনি তাকে বলছেন- ‘তোমরা আগে গাড়িটা নিয়ে থানায় যাও। থানায় গিয়ে এই সুযোগে প্রার্থীসহ সবার নামে মামলা দিয়ে দাও। আমি ওপরে প্রেসার ক্রিয়েট (চাপ সৃষ্টি) করতেছি। তোমরা সমস্ত নেতারা থানা ঘেরাও করো। এভরিবডি (প্রত্যেকে) থানা ঘেরাও করো। ওখানে বসে তোমার ভাবিকে বাদী করো। তার ওপর হামলা হয়েছে, তার গাড়ির ওপর হামলা হয়েছে বলে সবাইকে (সবার বিরুদ্ধে নাম) মামলায় দিয়ে দাও। মামলা না নেয়া পর্যন্ত তোমরা ওখান থেকে নামবা না। এটা কিন্তু আমাদের সুযোগ এবং সব জায়গায় ফোন দিয়ে হাজার হাজার মানুষ নিয়ে থানা ঘেরাও করো। এটা আমাদের সুযোগ। ঠিক আছে।’

অডিওক্লিপটি সম্পর্কে গলাচিপা থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) হুমায়ুন জাগো নিউজকে বলেন, ‘টেলিফোন আলাপে থানা ঘেরাওয়ের বিষয়ে শুনেছি। তদন্ত হবে।’

ফোনালাপ ও থানা ঘেরাওয়ের নির্দেশের বিষয়ে গোলাম মাওলা রনি সাংবাদিকদের বলেন, আমার স্ত্রী কামরুন্নাহার রুনুর গাড়িতে হামলার পর পুলিশ মামলা না নেয়ায় আমি নেতাকর্মীদের থানায় অবস্থান নিয়ে পুলিশকে মামলা নিতে বাধ্য করার চেষ্টা করছিলাম।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

এর আগে, ১৫ ডিসেম্বর (শনিবার) রনির স্ত্রী কামরুন্নাহার রুনু নেতাকর্মীদের নিয়ে পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু তালেব মিয়ার বাড়ি থেকে ফেরার পথে তার মাইক্রোবাসে ভাঙচুর করা হয়।

নসিমন চালককে পেটানো সেই পৌর মেয়র আটক

রাস্তায় প্রকাশ্যে এক নসিমন চালককে পিটিয়ে সমালোচনার মুখে পড়া নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পৌরসভার মেয়র সাদেকুর রহমানকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সোমবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে সোনারগাঁ উপজেলার গোয়ালী এলাকার নিজ বাসা থেকে তাকে আটক হয়।

জেলা গোয়েন্দা পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর এনামুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আটক মেয়রকে বর্তমানে ডিবি কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।

গত ১৫ ডিসেম্বর (শনিবার) একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে মহাজোট মনোনীত জাতীয় পার্টির প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকার পক্ষে গণসংযোগ শেষ করে নিজ গাড়িতে চড়ে বাসায় ফিরছিলেন মেয়র সাদেকুর রহমান সাদেক। এ সময় সোনারগাঁ জাদুঘরের সামনে বিপরীত দিক থেকে আসা বাঁশবোঝাই নসিমনের সঙ্গে তার গাড়ির সংঘর্ষ হয়। এতে মেয়রের গাড়ির এক পাশের রঙ উঠে দাগ পড়ে যায়।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়র সাদেকুর রহমান গাড়ি থেকে বের হয়ে নিজের হাতে থাকা লাঠি দিয়ে নসিমন চালক যুবককে মারতে শুরু করেন। ওই যুবক অপরাধ শিকার করে বার বার মেয়রের পা ধরে ক্ষমা চেয়েও রক্ষা পাননি। পরবর্তীতে মেয়রের সমর্থকরাও ওই যুবককে মারধর করে গাড়িসহ আটকে রাখে।

এ ঘটনার ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। শুরু হয় নিন্দার ঝড়। সবখানে মেয়রের শাস্তির দাবি ওঠে। পরবর্তীতে সোমবার দিবাগত রাতে নিজ বাসা থেকে পৌর মেয়র সাদেকুর রহমানকে আটক করলো ডিবি।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
175 জন পড়েছেন