বিশাল ব্যবধানে নিরঙ্কুশ জয়ের পথে আওয়ামী লীগ

0
99

চাঁদপুর রিপোর্ট  ডেস্ক :

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ফল গণনা শুরু হয়েছে। রবিবার (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোটগ্রহণ শেষে এই গণনা শুরু হয়েছে। রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় থেকে এই পর্যন্ত দেড় শতাধিক আসনে নিরঙ্কুশ জয়ের পথে এগিয়ে আছে আওয়ামী লীগ। এরমধ্যে ৩৫টি আসনের পূর্ণাঙ্গ ফল পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত ফল অনুযায়ী ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ৩৫ আসনে বিজয়ী হয়েছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আসনগুলো হলো, গোপালগঞ্জ-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ২৯ হাজার ৫৩৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শেখ হাসিনা । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এসএম জিলানী পেয়েছেন ১২৩ ভোট।
কুমিল্লা-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৯৬৩০০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আহম বাহাউদ্দীন বাহার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী হাজী আমিনুর রশীদ ইয়াছি পেয়েছেন ১৮,৫৩৫ ভোট।

কুমিল্লা-১১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৭৯৩০৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মজিবুল হক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষের প্রার্থী ডা. আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ তাদের পেয়েছেন ১১৩৩ ভোট।

নড়াইল-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২,৭১,২১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাশরাফি বিন মর্তুজা। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে অ্যাডভোকেট ফরিদুজ্জামান ফরহাদ পেয়েছেন ৭,৮৮৩ ভোট।

বাগেরহাট-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ১,৭৫,১৮৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১৩, ২৯৫ ভোট।

রংপুর-৫ আসনে নৌকা প্রতীকে ৫০, ৭৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আশিকুর রহমান, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সোলাইমান আলম পেয়েছেন ৭,৬৯৪ ভোট।

পাবনা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২,৮৫, ৮২৭ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুল হক টুকু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবু সাইয়িদ পেয়েছেন ২৪,৩৬৪ ভোট।

পাবনা-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২৪, ২,৩৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আহমেদ ফিরোজ কবীর। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে একেএম সেলিম রেজা হাবীব পেয়েছেন ৫,৩৬৯ ভোট।

পাবনা-৩ আসনে নৌকা প্রতীকে ৩০, ১, ১৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মকবুল হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৫,৬৮২০ ভোট।

পাবনা-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ২, ৪৯,৫৬৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুর রহমান শরীফ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে হাবীবুর রহমান হাবীব পেয়েছেন ৪৯, ৫৬৮ ভোট।

কুমিল্লা-৯ আসনে নৌকা প্রতীকে ২, ৭০, ৬০২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী তাজুল ইসলাম । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১১, ৩০৯ ভোট।

নওগাঁ-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৬৬ হাজার ৪৬২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শামসুল আলম প্রামানিক পেয়েছেন ৪৯ হাজার ৯৭১ ভোট।

নওগাঁ-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৯০ হাজার ৪২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইসরাফিল আলম । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আলমগীর কবির পেয়েছেন ৪৬ হাজার ১৫৪ ভোট।

দিনাজপুর-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৮১ হাজার ৮৯১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শিবলী সাদিক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৬৯ হাজার ৭৬৯ ভোট।

লক্ষ্মীপুর-১ নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৮৫ হাজার ৪৩৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন খান । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৯৯২ ভোট।

খুলনা-৪ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ২৩ হাজার ২১৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সালাম মুর্শেদী । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আজিজুল বারী হেলাল পেয়েছেন ১৪ হাজার ১৮৭ ভোট।

নড়াইল-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৮২ হাজার ৫২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কবিরুল হক মুক্তি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে বিশ্বাস জাহাঙ্গীর আলম পেয়েছেন ৮ হাজার ৯১৯ ভোট।

জয়পুরহাট-১ নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ১৮ হাজার ৫৮২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুল আলম দুদু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী পেয়েছেন ৮৪ হাজার ২১২ ভোট।

মাগুরা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৭৪ হাজার ১৩০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাইফুজ্জামান শিখর। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আনোয়ার খান পেয়েছেন ১৬ হাজার ৪৬৭ ভোট।

যশোর-০৩ (সদর) আসনে নৌকা প্রতীকে ৩ লাখ ৬১ হাজার ৩৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কাজী নাবিল আহমেদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে অনিন্দ্য ইসলাম অমিত পেয়েছেন ৩১ হাজার ৭১০ ভোট।

কুমিল্লা-১ আসনে নৌকা প্রতীকে ১ লাখ ৩৪ হাজার ৯৭২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সুবিদ আলী ভুঁইয়া। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ড. মোশাররফ হোসেন পেয়েছে ৯১ হাজার ৬৭৬ ভোট।

রংপুর-৩ আসনে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৪২ হাজার ৯২৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে রিটা রহমান পেয়েছেন ৫৩ হাজার হাজার ৮৯ ভোট।

রংপুর-৬ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৩৪ হাজার ৪২৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন ২৪ হাজার ৫৩ ভোট।

মাগুরা-২ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৩০ হাজার ১১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বিরেন শিকদার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নিতাই রায় চৌধুরী পেয়েছেন ৬৫ হাজার ৮২৮ ভোট।

কুষ্টিয়া-৩ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯৬ হাজার ৫৯০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মাহবুবউল আলম হানিফ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নাসির হোসেন সরকার পেয়েছেন ১৪ হাজার ৩৮১ ভোট।

যশোর-৫ আসনে নৌকা প্রতীকে ২ লাখ ৪৩ হাজার ৩৮২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী স্বপন ভট্টাচার্য। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মুফতি ওয়াক্কাস পেয়েছেন ২৪ হাজার ২০ ভোট।

যশোর-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইসমত আরা সাদেক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবুল হোসেন আজাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ৬৭৩ ভোট।

যশোর-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৬৫ হাজার ৫০৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইসমত আরা সাদেক। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে আবুল হোসেন আজাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ৬৭৩ ভোট।

কক্সবাজার-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ১ লাখ ৯৬ হাজার ৯৭৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শাহীন আক্তার। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শাহজাহান চৌধুরী পেয়েছেন ৩৭ হাজার ১৮ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-১ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯৭৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে রেজাউল করিম খান চুন্নু পেয়েছেন ৭২ হাজার ৫২১ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-২ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৯ হাজার ৬১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নূর মোহাম্মদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে মেজর (অব.) আখতার পেয়েছেন ৭১ হাজার ৮৮৭ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৩ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৩৩৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মুজিবুল হক চুন্নু। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ড. সাইফুল ইসলাম পেয়েছেন ৩১ হাজার ৫৬২ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৫৮ হাজার ২২৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রেজওয়ান আহমেদ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ফজলুর রহমান পেয়েছেন ৪ হাজার ৮৭০ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৫ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ১ হাজার ৯৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এমএ আফজাল। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শেখ মুজিবর রহমান ইকবাল পেয়েছেন ২৯ হাজার ১৯১ ভোট।

কিশোরগঞ্জ-৬ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ লাখ ৪৭ হাজার ৯৩৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নাজমুল হাসান পাপন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে শরীফুল আলম পেয়েছেন ২৭ হাজার ৮৯০ ভোট।

উল্লেখ্য, নির্বাচন কমিশনের (ইসি) পুনর্নির্ধারিত তফসিল অনুযায়ী, প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমার শেষ তারিখ ২৮ নভেম্বর, মনোনয়নপত্র বাছাই ২ ডিসেম্বর, মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ৯ ডিসেম্বর এবং ভোট গ্রহণ ৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়।

প্রকাশিত: ২০:২৯, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৮ | সর্বশেষ আপডেট: ২১:৩৪, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৮ 358

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
200 জন পড়েছেন