বিয়ের কথা বলে বাসায় আটকে রেখে ধর্ষণ

0
481

জেলা প্রতিনিধি মানিকগঞ্জ
মানিকগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে তিনদিন বাসায় আটকে রেখে এক নারীকে (২৫) ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে ওই নারী অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ভুক্তভোগী ওই নারী জানান, মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার হাসেম বেপারীর ছেলে রাশেদের সঙ্গে তার দুই বছরের প্রেমের সম্পর্ক। বুধবার বিয়ের কথা বলে রাশেদ তাকে ধামরাই উপজেলার শ্রীরামপুরের ভাড়াবাসায় নিয়ে যায়। সেই বাসায় তাকে তিনদিন আটকে রেখে একাধিকবার ধর্ষণ করে রাশেদ। কিন্তু বিয়ে করার কথা বললে রাশেদ রাজি হয় না। শুক্রবার সকালে তিনি ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে রাশেদ তাকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে। কিন্তু ওষুধ আনার কথা বলে সে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আরো পড়ুন : শ্বেতী রোগের কারণ লক্ষণ ও প্রতিকার

অভিযুক্ত রাশেদ ধামরাই উপজেলার শ্রীরামপুর এলাকায় পাল পেপার মিলে নিরাপত্তাকর্মী হিসেবে চাকরি করেন।

মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভুক্তভোগী ওই নারীর মা জানান, তাদের বাড়ি মানিকগঞ্জের পাচুরিয়া গ্রামে। তার মেয়ে স্বামী পরিত্যাক্তা। বিয়ের নাম করে রাশেদ তার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে। এরপর আটকে রেখে ধর্ষণ করেছে। তিনি রাশেদের শাস্তি দাবি করেন।

আরো পড়ুন : ফুচকার সঙ্গে কীটনাশক খাইয়ে স্ত্রীকে হত্যা

মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. লুৎফর রহমান জানান, নির্যাতনের শিকার ওই নারীকে সঠিকভাবে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। মেডিকেল বোর্ড গঠন করে তার অভিযোগের তদন্ত করা হবে।

মানিকগঞ্জ সদর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) হানিফ সরকারে জানান, যেহেতু ঘটনাস্থল ধামরাই থানা এলাকায় সে কারণে ওই নারী সংশ্লিষ্ট থানায় অভিযোগ করতে হবে ।

প্রকাশিত: ০৮:১৬ পিএম, ০৪ জানুয়ারি ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
422 জন পড়েছেন