ইডেন কলেজছাত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, সাবেক দুলাভাই ধরা

0
257

জেলা প্রতিনিধি সাতক্ষীরা

ঢাকার ইডেন কলেজের এক শিক্ষার্থীর নগ্ন ছবি ফেসবুকে ছড়ানোর অভিযোগে সাবেক দুলাভাইসহ দুইজনকে গ্রেফতার করেছে সাতক্ষীরার কলারোয়া থানা পুলিশ। এ ঘটনায় তথ্যপ্রযুক্তি আইনে একটি মামলা করেছেন ছাত্রীর বাবা।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার কেড়াগাছি ইউনিয়নের বাকসা গ্রামের গ্রামের আব্দুল বারেকের ছেলে সাইফুল ইসলাম বাপ্পা (২৫) ও কাকডাঙ্গা গ্রামের হাফিজুল ইসলামের ছেলে ইমরান সিদ্দিকী জুয়েল (২৪)। সাইফুল ইসলাম বাপ্পা মামলার বাদীর সাবেক জামাই।

কেড়াগাছি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম আফজাল হোসেন বলেন, সাইফুল ইসলাম বাপ্পার সঙ্গে বাঘাডাঙ্গা গ্রামের এক শিক্ষকের মেজো মেয়ের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। একপর্যায়ে তাদের বিয়ে হয়। কিন্তু এক বছর আগে তাদের ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, ওই শিক্ষকের বড় মেয়ে ঢাকার ইডেন কলেজে লেখাপড়া করে। সেখানে এক ছেলের সঙ্গে ওই মেয়ের আপত্তিকর ছবি ও ভিডিও ঢাকা থেকে ফেসবুকে সাইফুল ইসলাম বাপ্পার কাছে পাঠায় একজন।

ছোট বোনের সঙ্গে ছাড়াছাড়ি হয়ে যাওয়ার পর বড় বোনের নগ্ন ছবি ও ভিডিও ব্যবহার করে ব্ল্যাকমেইল করার চেষ্টা করে বাপ্পা। এমন অভিযোগে মেয়ের বাবা থানায় মামলা করেছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাইফুল ইসলাম বাপ্পা ও সিদ্দিকী জুয়েলকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভুক্তভোগী মেয়ের চাচা বলেন, বড় মেয়ের আপত্তিকর ছবি সংগ্রহ করে সেটা দিয়ে মেজো মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে ব্ল্যাকমেইল করে আসছিল বাপ্পা। পরে মেজো মেয়ে পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি জানালে ছেলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ৫ লাখ টাকা দাবি করা হয়। সেই সঙ্গে মেজো মেয়ের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে আপত্তিকর ছবি-ভিডিও বিভিন্নজনকে দিতে থাকে বাপ্পা। এ ঘটনায় থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম বাপ্পা মেজো মেয়ের জামাই ছিল কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, মেয়েকে ষড়যন্ত্র করে ভাগিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। পরে আমরা মেয়েকে ফিরিয়ে নিয়ে আসি।

এ বিষয়ে কলারোয়া থানা পুলিশের পরিদর্শক জেল্লাল হোসেন বলেন, ফেসবুকে নগ্ন ছবি ভাইরাল করার অপরাধে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রযুক্তি আইনে মামলা হয়েছে। তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

প্রকাশিত: ১০:১৯ পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
379 জন পড়েছেন