ফরিদগঞ্জে মনোনয়ন প্রত্যাশী তোফায়েল ভূঁইয়ার মতবিনিময়

0
34

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি :
আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ মো: তোফায়েল আহম্মেদ ভূঁইয়া ফরিদগঞ্জে কর্মরত সংবাদকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেছেন।

শনিবার রাতে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় সংবাদকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, ছাত্রজীবন থেকে আজ পর্যন্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু আদর্শে লালিত সংগঠন করে এসেছি। হয়ত কর্মের টানে এলাকা ছেড়ে ঢাকা পাড়ি জমিয়েছি, কিন্তু কখনো রাজনীতি ও এলাকার মানুষকে ভুলিনি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এতদিন আমার চেয়ে অনেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ নির্বাচনে অংশ নেয়ায় আমি জনপ্রতিনিধি হওয়ার আশা থাকলেও দল ও তাদের জন্য কাজ করে গিয়েছি। কিন্তু আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রতিনিধি হিসেবে মানুষের সেবা করার গোপন ইচ্ছা বাস্তবায়নের জন্য মাঠে নেমেছি। বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা তার একক নেতৃত্বে যেভাবে এদেশকে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন, তাতে আমরা যারা ছাত্র লীগের মাধ্যমে রাজনীতি শুরু করে ছিলাম, তারাতো আর ঘরে বসতে পারিন না। তাই মাঠে ছুটে এসেছি, দলের হয়ে কাজ করার জন্য।

এক্ষেত্রে দল যদি আমাকে মূল্যায়ন করে তবে আমি জননেত্রীর মতো দৃঢ় চিত্তে ফরিদগঞ্জবাসীর উন্নয়নে নিজেকে বিলিয়ে দিবো।

ওয়ানষ্টপ সার্ভিস সেবার মাধ্যমে নাগরিকদের সেবা প্রদান সহজ করার চেষ্টা করবো। অনিয়ম দুর্নীতি ঘুষ এবং দালালী বন্ধ করতে সৎ ও পরিশ্রমি নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সর্বদা কাজ করবো।

৯০এর দশকে স্বৈরাচার এরশাদ বিরোধী আন্দোলনে রাজপথ কাঁপানো এই নেতা বলেন, বর্তমানে রাজনীতি বিপরীতে হিংসা বিদ্বেষ ছড়ানো । তাই এসব থেকে দলকে মুক্ত রাখতে হলে সকলকে এক হয়ে দল ও দেশের হয়ে কাজ করতে হবে। একজনকে মনোনয়ন দেবে দল, কিন্ত যারা মনোনয়ন প্রত্যাশী তাদের সকলের লক্ষ্য থাকতে হবে দলের প্রার্থীর জন্য এক হয়ে কাজ করা। কারণ তাতেই দলের মঙ্গল। দল যদি ভাল থাকে তবে আমরা ভাল থাকবো।

উপজেলার রূপসা দক্ষিণ ইউনিয়নের পশ্চিম গাব্দেরগাও গ্রামের মরহুম সালামত উল্ল্যা ভূঁইয়ার ছেলে তোফায়ের আহাম্মেদ ভূঁইয়া ১৯৮৪ সালে ফরিদঘঞ্জ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের ছাত্র লীগের সভাপতি, ১৯৮৫ সালে ফরিদগঞ্জ থানা ছাত্র লীগের সাধারণ সম্পাদক , ১৯৮৬ সালে থানা ছাত্র লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৮৫-৮৬ সালে ফরিদগঞ্জ থানা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক ছিলেন।

পরবর্তীতে ১৯৮৭-৮৮ সালে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্র লীগের আহ্বায়ক কমিটি(হিরু-নির্মল)’ন সদস্য এবং বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন। এছাড়া ওই সময়েই ঢাকাস্থ ফরিদগঞ্জ ছাত্র কল্যাণ সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে তিনি ফরিদগঞ্জ আওয়ামী গুণিজন স্মৃতি সংসদের প্রধান পৃষ্ঠ পোষকসহ উপজেলার বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠানের সাথে সংশ্লিষ্ট।

ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি নুরুন্নবী নোমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদকের পরিচালনায় এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কালির বাজার কলেজের সহযোগি অধ্যাপক ও ফরিদগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর পাটওয়ারী, ফরিদগঞ্জ গুণিজন স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সাংবাদিক আবুল হাসনাত, সাধারণ সম্পাদতক মাহবুব মোর্শেদ, আওয়ামী লীগ নেতা মো: শাহ আলম, উপজেলা যুব লীগ সদস্য জহিরুল ইসলাম প্রমুখ। সাংবাদিকদের মধ্যে ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি মামুনুর রশিদ পাঠান শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন।

প্রকাশিত : ২১ জানুয়ারি ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
169 জন পড়েছেন