ফিটকিরি, চিনি ও পানি দিয়ে মধু তৈরি!

0
27
KONICA MINOLTA DIGITAL CAMERA

জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে ফিটকিরি, চিনি ও পানি দিয়ে তৈরি ভেজাল মধুর বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়ে একজনকে জরিমানা ও ভেজাল মধু নষ্ট করেছে উপজেলা প্রশাসন।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার বড়কুড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৪০ কেজি ভেজাল মধু নষ্ট করা হয়। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ভেজাল মধু তৈরি করায় ইব্রাহিম (২৫) নামে একজনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জাহাঙ্গীর আলম জানান, উপজেলার বড়কুড়া গ্রামে বেশ কিছু বাড়িতে ভেজাল মধু তৈরি হচ্ছে এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ওই গ্রামে অভিযান চালিয়ে ভেজাল মধু ধ্বংস ও একজনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

কিভাবে চিনবেন খাঁটি মধু?

মধু হলো একটি উচ্চ ঔষধিগুণ সম্পন্ন একটি প্রাকৃতিক তরল। মধু প্রকৃতি প্রদত্ত এক বিশুদ্ধ মিষ্টি খাদ্য, যা চিনির চাইতে অনেক গুণ মিষ্টি। মধু হলো খাদ্য উপাদানগুলোর মাঝে একটি, যা কিনা কখনো নষ্ট হয় না। কিন্তু বাজারে থাকা মধুগুলো বেশিরভাগই ভেজাল পদার্থযুক্ত। চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে চিনবেন খাঁটি মধু।

১. মধুতে কখনো কটু গন্ধ থাকবে না। খাঁটি মধুর গন্ধ হবে মিষ্টি ও আকর্ষণীয়। মধুর স্বাদ হবে মিষ্টি, এতে কোনও ঝাঁঝালো ভাব থাকবে না। তাছাড়া এই মধু খাওয়ার সময় আপনার নাকে একটি মিষ্টি গন্ধ লাগবে। বাজারে পাওয়া মধুতে যদি আপনি এই ধরনের কটু গন্ধ পেয়ে থাকেন কিংবা মধুর স্বাদে যদি কিছুটা ঝাঁঝালো ভাব থাকে তবে বুঝবেন এটি খাঁটি মধু না।

২. বেশ কিছুদিন ঘরে রেখে দিলে মধুতে চিনি জমতেই পারে। কিন্তু যদি মধুর পাত্রসহ গরম পানিতে কিছুক্ষণ রাখেন, তাহলে এই চিনি গলে মধু আবার স্বাভাবিক হয়ে আসবে। নকল মধুর ক্ষেত্রে এটা হবে না। খাঁটি মধুর চিনির দানা অনেক বড় বড় হয়ে থাকে। যা দেখলেই স্বাভাবিক চিনির দানার মতো লাগে না। তখন আপনি এই পরীক্ষাটি করে দেখতে পারেন যদি দেখেন যে চিনির দানাগুলো তরল হচ্ছে না তবে বুঝবেন এটি খাঁটি মধু নয়।

৩. খানিকটা পানি নিন গ্লাসে বা বাটিতে, তার মাঝে এক চামচ মধু দিন। যদি মধু পানির সাথে মিশে যায়, তাহলে বুঝবেন যে এটা অবশ্যই নকল। আসল মধুর ঘনত্ব পানির চাইতে অনেক বেশী, তাই সহসা মিশবে না। এমনকি নাড়া না দিলে ২ কিংবা ৩ ঘণ্টাতেও মধু পানিতে মিশবে না। খাঁটি মধুতে লিপিডের পরিমাণ বেশি থাকে, পক্ষান্তরে নকল মধুতে থাকে চিনি যা কার্বোহাইড্রেট।

৪. একটি মোমবাতি নিন ও মোমবাতির সলতেকে ভালোভাবে মধুতে চুবিয়ে নিন। এবার আগুন দিয়ে জ্বালাবার চেষ্টা করুন। যদি জ্বলে ওঠে, তাহলে বুঝবেন যে মধু খাঁটি। আর যদি না জ্বলে, বুঝবেন যে মধুতে মেশানো আছে পানি। আগেই বলেছি খাঁটি মধুতে লিপিডের পরিমাণ বেশি থাকায় তা আগুন ধরে থাকতে সাহায্য করে।

৫. এক টুকরো ব্লটিং পেপার নিন, তাতে কয়েক ফোঁটা মধু দিন। যদি কাগজ তা সম্পূর্ণ শুষে নেয়, বুঝবেন মধুটি খাঁটি নয়। অথবা এক টুকরো সাদা কাপড়ে মধু মাখান। আধ ঘণ্টা রাখুন। তারপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। যদি দাগ থেকে যায়, বুঝবেন মধুটি খাঁটি নয়। ব্লটিং পেপার লিপিড শোষণ করতে পারে না কেননা লিপিড হলো হাইড্রোফোবিক। আর খাঁটি মধুতে লিপিডের পরিমাণ বেশি হয়ে থাকে।

৬. শীতের দিনে খাঁটি মধু দানা বেঁধে যায়। অনেকটা নারকেল তেলের মতো আর কুকুর কখনো খাঁটি মধু খায় না। যদি কুকুরকে মধু দিলে সে তা খেয়ে নেয়, বুঝবেন মধু খাঁটি নয়। কুকুর মিষ্টিজাতীয় খাবার পছন্দ করে কিন্তু মধুতে একটি প্রাকৃতিক গন্ধ রয়েছে যা কুকুর পছন্দ করে না।

প্রকাশিত: ১১:১৪ এএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
137 জন পড়েছেন