অসামাজিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে গাজীপুরে হোটেলে অভিযান : ৩৭ যুবক-যুবতীকে গ্রেফতার

0
102

জেলা প্রতিনিধি গাজীপুর

অসামাজিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে গাজীপুরের দুইটি হোটেলে অভিযান চালিয়ে ৩৭ যুবক-যুবতীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রোববার সন্ধ্যায় গাজীপুর মহানগরের বাংলাবাজার এলাকায় ওই অভিযান চালানো হয়।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

গাজীপুর সদর থানা পুলিশের ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর জানান, রোববার সন্ধ্যায় গাজীপুর মহানগরীর বাংলাবাজার এলাকার নামহীন দুইটি আবাসিক হোটেলে অভিযান চালানো হয়। এ সময় অসামাজিক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ১০ যুবক ও ২৭ যুবতীকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে হোটেল কর্তৃপক্ষ পালিয়ে গেছে। নামহীন হোটেল মালিকদের বিরুদ্ধে হোটেল ব্যবসার নামে দেহ ব্যবসা চালানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে বলেও জানান ওসি।

প্রতিবেশী নারীকে ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ার মিরপুরে প্রতিবেশী এক নারীকে ধর্ষণের দায়ে মো. নান্টু নামে এক ব্যক্তির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সোমবার দুপুর ১২টার দিকে কুষ্টিয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা ও দায়রা জজ) মুন্সি মো. মশিয়ার রহমান এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত নান্টু আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, আসামি নান্টু এবং ওই নারী কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার চিথলিয়া গ্রামের শাফায়েত হোসেনের বাড়ির ভাড়াটিয়া ছিলেন। পাশাপাশি ঘর হওয়ায় নান্টু প্রায়ই ওই নারীকে কুপ্রস্তাব দিতেন। এতে রাজি না হওয়ায় ২০১৫ সালের ৩০ মার্চ রাতে নান্টু ওই নারীকে ঘরে ঢুকে ধর্ষণ করেন। এ সময় তাকে শারীরিকভাবে আঘাত করেন নান্টু। তার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে নান্টু পালিয়ে যান। পরবর্তীতে ওই নারীকে উদ্ধার করে আহত অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঘটনার পাঁচ মাস পর ওই নারীর মৃত্যু হয়। এদিকে ঘটনার পরের দিন বাড়ির মালিক শাফায়েত হোসেন বাদী হয়ে মিরপুর থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী জানান, বিজ্ঞ আদালত সাক্ষ্যগ্রহণ ও দীর্ঘ শুনানি শেষে আসামির বিরুদ্ধে ধর্ষণে জড়িত থাকার অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। রায় ঘোষণার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। পরে তাকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

প্রকাশিত: ০৮:৫০ এএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
222 জন পড়েছেন