ঝড়ে লন্ডভন্ড নিঝুম দ্বীপ, নিখোঁজ ২০

0
46

 

জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার নিঝুম দ্বীপে কালবৈশাখী ঝড়ে অর্ধশতাধিক বাড়িঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। এ সময় মেঘনা নদীতে ২০ জেলেসহ পাঁচটি মাছ ধরা নৌকা নিখোঁজ হয়েছে। পাশাপাশি ২০ হাজার মণ শুঁটকি নষ্ট হয়ে গেছে।

সোমবার সকাল ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত এ কালবৈশাখী ঝড় হয়। কালবৈশাখী ঝড়ে কাঁচা-পাকা ঘর এবং বিভিন্ন গ্রাম লন্ডভন্ড হয়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেহরাজ উদ্দিন বলেন, এক ঘণ্টার ঝড়ে দ্বীপের তিন শতাধিক কাঁচা-পাকা ঘর বিধ্বস্ত ও বিভিন্ন স্থানে খোলা মাঠে শুকাতে দেয়া অন্তত ২০ হাজার মণ শুঁটকি নষ্ট হয়ে যায়। এ সময় নদীতে মাছ ধরা অবস্থায় ২০ জেলেসহ পাঁচটি নৌকা নিখোঁজ হয়। এখনো তাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

এদিকে, হাতিয়ার তমরদ্দিঘাট থেকে চেয়ারম্যান ঘাটে আসার পথে ধানবোঝাই একটি ট্রলার মেঘনা নদীতে ডুবে যায়। এই ট্রলারে ১০০ বস্তা ধান ছিল।

হাতিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নূর এ আলম বলেন, কালবৈশাখী ঝড়ে নিখোঁজ জেলেদের উদ্ধারের বিষয়ে কাজ করা হচ্ছে।

ক্ষয়ক্ষতির হিসাব নিরূপণ করা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সরকারিভাবে সহায়তা দেয়ার বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে।

সাগরে নিম্নচাপের প্রভাবে এই কালবৈশাখী ঝড় হয়েছে।

প্রকাশিত: ০৫:৪৫ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
161 জন পড়েছেন