comilla love

কুমিল্লায় ত্রিভুজ প্রেমের ভয়ঙ্কর পরিণতি

জেলা প্রতিনিধি কুমিল্লা :
কুমিল্লায় রাশেদ হোসেন (১৫) নামে এক ফ্যাক্টরির শ্রমিককে গলা কেটে হত্যার ১৬ ঘণ্টার মধ্যেই হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে এ হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুই বন্ধুকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন নিহত রাশেদের একই ফ্যাক্টরির সহকর্মী জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মানিকপুর গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মো. রাসেল (১৮) এবং একই উপজেলার বানীপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে আরিফ (১৮)।

Night King Sex Update
নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

জিজ্ঞাসাবাদে দুই বন্ধু পুলিশকে জানিয়েছে, এক মেয়ের সঙ্গে দুই ছেলের প্রেমের দ্বন্দ্বের জের ধরেই রাশেদ হোসেনকে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে গ্রেফতারকৃতদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির বরাত দিয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম।

পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম বলেন, নগরীর গোবিন্দপুর এলাকার মৃত আবদুর রশিদের ছেলে রাশেদ হোসেন সদর দক্ষিণ উপজেলার ফরিদ গ্রুপের ফরিদ নেটস নামে একটি ফ্যাক্টরিতে শ্রমিকের কাজ করতো। রোববার বিকেলে ফ্যাক্টরি থেকে বের হয়ে বাসায় ফেরেনি রাশেদ। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সদর দক্ষিণ উপজেলার ফুলতলী এলাকা থেকে গলা কাটা অবস্থায় রাশেদের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় রাশেদের বোন নিপা আক্তার বাদী হয়ে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় অজ্ঞাতদের আসামি করে মামলা করেন। এরপরই অভিযানে নামে পুলিশ। তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ঘটনার সঙ্গে জড়িত দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সুপার নুরুল ইসলাম আরও বলেন, গ্রেফতারকৃত রাসেল জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে এক মেয়ের সঙ্গে রাশেদ হোসেনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। ওই মেয়েকে রাসেলও ভালোবাসতো। তাই প্রেমিকার জীবন থেকে রাশেদকে সরিয়ে দেয়ার জন্য রাসেল ও তার বন্ধু আরিফ রোববার বিকেলে ফ্যাক্টরি থেকে কৌশলে রাশেদকে ডেকে নিয়ে যায়। ওই দিন রাতে রাশেদকে গলা কেটে হত্যা করে তারা। ঘটনাস্থল থেকে একটি চাকু, হ্যাকস-ব্লেডসহ বিভিন্ন আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। পরে তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল মামুন, আজিম উল আহসান, নাজমুল আহসান রাফি, ডিআইও-১ মাহবুব মোরশেদ, সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশের ওসি মামুন অর রশিদ ও জেলা ডিবি পুলিশের ওসি নাসির উদ্দিন মৃধা প্রমুখ।

প্রকাশিত : ৩০ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার : ০৬:৫৭ পিএম

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

489 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন