পড়া না পারলে থুথু খাওয়ান শিক্ষক

0
217
(বাঁ থেকে) অভিযুক্ত শিক্ষক জামাল উদ্দিন ও ভুক্তভোগী দুই শিক্ষার্থী

 

নিজস্ব প্রতিবেদক রংপুর
রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার হারাগাছ চতুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শাস্তি হিসেবে একজনের থুথু অন্যজনকে খাওয়াতে বাধ্য করার অভিযোগ উঠেছে জামাল উদ্দিন নামে এক শিক্ষক্ষের বিরুদ্ধে।

http://picasion.com/

দিনের পর দিন এমন শাস্তির কারণে স্কুলে যেতে শিক্ষার্থীদের অনীহা সৃষ্টি হয়েছে। গত মঙ্গলবার আবারও থুথু খাওয়ানোর ঘটনার ফুঁসে উঠেছেন অভিভাবকসহ শিক্ষার্থীরা।

এ ঘটনার বিচার দাবিতে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ করেছেন তারা।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

ওই স্কুলের ৫ম শ্রেণির শিক্ষার্থী পলি আক্তার, বিলকিছ ও কুলছুমসহ একাধিক শিক্ষার্থীর অভিযোগ, কোনো কিছু হলেই জামাল স্যার মারধর করেন। এছাড়াও একজনের থুথু অন্যজনকে খেতেও বাধ্য করেন। এ কারণে ভয়ে-লজ্জায় তারা স্কুলে যেতে চায় না।

স্থানীয় অভিভাবক আব্দুল জলিল, হাবিব ও আমির হোসেনসহ অনেকে জানান, ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে এর আগেও শিক্ষার্থীদের প্রতি অমানবিক আচরণের অভিযোগ উঠেছে। শিশুদের থুথু খাওয়ানোর কারণে তারা স্কুলে যেতে চায় না। এ ঘটনার বিচার দাবি করেন অভিভাবকরা।

পড়া না পারায় মারধররের পর শিক্ষার্থীদের থুথু চাটানোর বিষয়টি স্বীকার করে জামাল উদ্দিন বলেন, আমার অপরাধ হয়েছে। আমাকে ক্ষমা করবেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক খালেদা আক্তার বলেন, ঘটনার বিষয়ে শনিবার ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের নিয়ে সভা আহ্বান করা হয়েছে। সভার পর অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রকাশিত: ০৫:২৬ পিএম, ০৪ এপ্রিল ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
431 জন পড়েছেন
http://picasion.com/