স্ত্রীকে বোরকা পরিয়ে ফরিদগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে তড়িঘড়ি দাফন

0
361

 

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি:
ঢাকা থেকে মৃত স্ত্রীকে বোরকা ফরিয়ে ফরিদগঞ্জে গ্রামের বাড়িতে দাফন সম্পন্ন করেছেন তার স্বামী জীবন হোসেন মুন্না।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

আজ ০৬ এপ্রিল শনিবার উপজেলার ১১নং চরদুঃখিয়া পূর্ব ইউনিয়নের পূর্ব সন্তোসপুর গ্রামের আব্দুল মতিন পাটওয়ারী এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা যায়, পূর্ব সন্তোষপুর গ্রামের আব্দুল মতিনের ছেলে জীবন হোসেন মুন্না (২৭) গত দুই সাপ্তাহ পূর্বে তার গ্রামের বাড়ি থেকে দ্বিতীয় স্ত্রী রুজিনা আক্তার (২৫) ও দেড় বছরের বাচ্চা জিসানকে নিয়ে ঢাকার কামারপাড়ায় বাসা ভাড়া করে থাকতেন।

হঠাৎ করে শনিবার ভোর রাতে অ্যাম্বুলেন্সযোগে গ্রামের বাড়িতে মুন্না তার স্ত্রীর লাশ নিয়ে আসে। এ নিয়ে গ্রামের বাড়িতে ব্যাপক গুঞ্জন শোনা যায়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আমির হোসেনকে জানিয়ে তার স্ত্রীর লাশ দ্রæত দাফন সম্পন্ন করে মুন্না।

জানা যায়, মুন্নার স্ত্রী রুজিনা খুলনা জেলার ফকিরহাট উপজেলার ফকিরহাট গ্রামের। মৃত রুজিনার পিতা আব্দুল কালাম মুঠোফোনে বলেন, বিয়ে হয়েছে ৬বছর হয়েছে কিন্তু তাদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বৈবাহিক সর্ম্পক ভালো যাচ্ছিল না। গতকাল আমার জামাতা মুন্না রুজিনার আবস্থার কথা ফোনে আমাকে জানায়, রুজিনা অসুস্থ। কিছুক্ষণ পর আবার ফোন দিয়ে বলেন, রুজিনাকে মেডিকেল থেকে ছেড়ে দিয়েছে। তখন আমরা মনে করেছিলাম রুজিনা ভালো হয়েছে। সে যে মারা গেছে তা আমরা জানি না। পরে জানতে পারি, রুজিনা মারা গেছে এবং তাকে দ্রæত তার গ্রামের বাড়িতে নিয়ে গেছে এবং দাফন সম্পন্ন করেছে।

এ ব্যাপারে রুজিনার স্বামী জীবন হোসেন মুন্না বলেন, ছুটির দিনে আমি ও আমার স্ত্রী সন্তানসহ ঘুরতে বের হই। হঠাৎ রুজিনা অসুস্থ হয়ে পড়ে। আমি সাথে সাথে তাকে উত্তরা শহীদ মুনসুর আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাই। কর্মরত ডাক্তার তার উন্নত চিকিৎসার জন্য বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। মেডিকেলের কর্মরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। তাই রুজিনাকে আমি আমার গ্রামের বাড়িতে দাফন করার জন্য নিয়ে আসি।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমার শশুরের পরিবারকে ফোন করলে তারা আসবে না এবং দাফন করার জন্য অনুমতি দিয়েছেন।

ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

প্রকাশিত : ০৬ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
255 জন পড়েছেন