ধর্ষণের সময় যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন গৃহবধূ

0
1500

জেলা প্রতিনিধি সিরাজগঞ্জ :
কৌশলে ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলায় এক যুবকের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছেন গৃহবধূ। বুধবার মধ্যরাতে উপজেলার সগুনা ইউনিয়নের নওখাদা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

স্থানীয়রা জানায়, নওখাদা গ্রামের ফজলুর রহমান ফজলু (৩৫) একই গ্রামের এক গৃহবধূর শোয়ারঘরে কৌশলে প্রবেশ করে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। এ সময় ওই গৃহবধূ সম্ভ্রম রক্ষায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফজলুর পুরুষাঙ্গ কেটে দেন।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

পরে ফজলুর চিৎকারে স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তাড়াশ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমি সাংবাদিকদের কাছ থেকে জেনেছি। থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ বা মামলা হলে আইনগত ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।

ধর্ষণের কথা বলে দেয়ায় স্কুলছাত্রীর মা-ভাই নিখোঁজ

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলায় ষষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১১) ধর্ষণ করেছে তিন সন্তানের জনক। ধর্ষণের কথা পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়দের বলার পর থেকে নিখোঁজ হয়েছেন ধর্ষণের শিকার স্কুলছাত্রীর মা ও ছোট ভাই।

উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের বেতেঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বুধবার সন্ধ্যায় বালিয়াকান্দি থানায় ইউনুস আলী মিয়াকে (৫০) আসামি করে মামলা করেছেন নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর বাবা।

ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত ইউনুস আলী মিয়া জামালপুর ইউনিয়নের বেতেঙ্গা গ্রামের বাসিন্দা। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর থেকে পালাতক রয়েছে তিন সন্তানের জনক ইউনুস আলী।

মামলার বিবরণ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ১ এপ্রিল জামালপুর ইউনিয়নের বেতেঙ্গা গ্রামের ওই স্কুলছাত্রী বাড়ির পাশে ঘাস কাটতে যায়। সেখানে আগে থেকেই কাজ করেছিল প্রতিবেশী তিন সন্তানের জনক ইউনুস আলী মিয়া। প্রতিবেশী ইউনুস আলীকে চাচা বলে ডাকতো স্কুলছাত্রী। ওই সময় ঘাস কেটে দেয়ার কথা বলে স্কুলছাত্রীকে ডেকে নিয়ে পাশের পানের বরজের ভেতরে ধর্ষণ করে ইউনুস আলী। এ ঘটনা কাউকে বললে স্কুলছাত্রীর পরিবারের সবাইকে জবাই করে হত্যার হুমকি দেয় ইউনুস আলী।

ভয়ে বিষয়টি স্থানীয়দের জানায়নি স্কুলছাত্রী। পরে মাকে বিষয়টি জানানো হয়। এ ঘটনার পরদিন ছাত্রীর মা ও ছোট ভাই নিখোঁজ হয়। মঙ্গলবার শিশুকে কান্না করতে দেখে স্থানীয়রা কারণ জানতে চায়। তখন পুরো ঘটনা খুলে বলে স্কুলছাত্রী। সেই সঙ্গে ধর্ষণের কথা বাবাকে জানায় ছাত্রী। এ অবস্থায় বুধবার সন্ধ্যায় বালিয়াকান্দি থানায় ইউনুস আলী মিয়াকে আসামি করে মামলা করেন নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর ভ্যানচালক বাবা।

জামালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইউনুস আলী সরদার বলেন, এলাকাবাসীর কাছ থেকে আমি বিষয়টি শুনেছি। নির্যাতিত ছাত্রীর বাবা থানায় ধর্ষণ মামলা করেছেন। যেহেতু মামলা হয়েছে ধর্ষককে গ্রেফতার করার দায়িত্ব পুলিশের। ধর্ষককে দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনা হোক।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বালিয়াকান্দি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম আজমল হুদা বলেন, স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা করেছেন বাবা। ধর্ষককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। একই সঙ্গে নির্যাতিত স্কুলছাত্রীর মা ও ছোট ভাইয়ের সন্ধানে কাজ করছি আমরা।

প্রকাশিত: ০৪:৩৭ পিএম, ১১ এপ্রিল ২০১৯

এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
457 জন পড়েছেন