মতলবের আউলিয়াবাগ দাখিল মাদরাসা ১৩ বছরেও এমপিওভুক্ত হয়নি

0
233

সফিকুল ইসলাম রানা, মতলব উত্তর প্রতিনিধি :
গত ১৩ বছরে সরকারি অংশে বেতনভাতা পাচ্ছেন না চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ছেংগারচর পৌরসভার আউলিয়াবাগ দাখিল মাদরাসা শিক্ষক ও কর্মচারীরা। এমপিও প্রক্রিয়াধীন থাকায় দীর্ঘদিন বেতনভাতা না পেয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করলেও এসব নিয়ে যেন মাথা ব্যথায় নেই ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের। বারবার আবেদন করার পরেও প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্তি না করায় বিস্ময় প্রকাশ করেছেন স্থানীয় শিক্ষক-অভিভাবক ও সুধী মহল।

জানা যায়, উপজেলার ঠাকুরচর এলাকায় শিক্ষা বিস্তারে একমাত্র মাদরাসাটি এমপিওভুক্ত না হওয়ায় শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘিœত হচ্ছে এবং শিক্ষকদেরও পোহাতে হচ্ছে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ। এ দিকে মাদরাসটি নানা প্রতিকূলতাকে উপেক্ষা করে টানা ১২ বছর ধরে জেডিসি ও দাখিল পরীক্ষায় শতভাগ পাসসহ উল্লেখ্যযোগ্য ছাত্রছাত্রী জিপিএ-৫ পেয়ে সাফল্যের ধারাবাহিকতা রক্ষা করে চলেছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

জানা গেছে, উপজেলার সদর থেকে মাত্র দেড় কিলোমিটার দূরে উপজেলা পরিষদ-জেলা সদর আঞ্চলিক সড়কের পশ্চিম পাশে ১৯৯৭ সালে মাদরাসাটি প্রতিষ্ঠিত হয়ে টিনের ঘর তৈরি করে মাদরাসাটি নির্মাণ করার পর প্রথম শ্রেণী থেকে দাখিল পর্যন্ত পাঠ দান চলছে।

মাদরাসার সুপার মাওলানা মোশারফ হোসেন জানান, তিনিসহ মোট ১৩ জন শিক্ষক ও ২ জন কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। বর্তমানে মাদরাসায় ৪শতাধিক ছাত্রছাত্রী অধ্যয়নরত। আমরা বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে একাধিকবার জানিয়েও কোনো ফল পাওয়া যায়নি। দ্রুত এমপিওভুক্ত করা উচিত।

শিক্ষকরা জানান, ১৯৯৭ সাল থেকে বেতনভাতা থেকে বঞ্চিত আছেন শিক্ষক-কর্মচারীরা। তারা যথাযথভাবে প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্ব পালন করছেন। তারা পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তি হিসেবে স্ত্রী, সন্তানদের ভরণ-পোষণ করবেন কিভাবে?

এ বিষয়ে কাউন্সিলর শাহাদাত হোসেন ঢালী খোকন জানান, এ মাদরাসাটি দীর্ঘদিন ধরে এমপিও প্রক্রিয়াধীন বিষয়টি হতাশাজনক। শিক্ষকেরা বিনা বেতনে চাকরি করে মানবেতর জীবনযাপন করছেন। তাদের আর্থিক দিক বিবেচনা করে মাদরাসাটি এমপিওভুক্ত করতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার জানান, দীর্ঘ ১৩বছর ধরে বিনা বেতনে চাকরি করছেন শিক্ষকেরা বিষয়টি দুঃখজনক। এ ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি সুরহা করার চেষ্টা করব।

আউলিয়াবাগ দাখিল মাদরাসার পরিচালনা কমিটির সদস্য লিটন সরকার বলেন, মাদরাসাটি এমপিওভুক্ত করার জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনেকবার আবেদন জানিয়েও। তবে স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল ধৈর্য ধারণ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রকাশিত : ২৮ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমকেজেড

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
522 জন পড়েছেন