orisha fony

ওড়িশায় ফণীর তাণ্ডব, পুরীতে নিহত ১

 

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট শক্তিশালী ঘুর্ণিঝড় ‘ফণী’ আঘাত হেনেছে ভারতের ওড়িশা রাজ্যের পুরী ও গোপালপুরে উপকূল অঞ্চলে। প্রবল শক্তিতে লণ্ডভণ্ড করছে সেখানকার বসতঘর।

শুক্রবার স্থানীয় সময় সকাল পৌনে ৯টার সময় সেখানে আঘাত হানার সময় ফণীর গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২০০ থেকে ২১০ কিলোমিটার।

Night King Sex Update
নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01742057854, +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুরীতে ফণীর তাণ্ডবে একজন নিহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। ঝড়ের প্রভাবে গাড় উপড়ে পড়ায় ওই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম।

কাতারে কাতারে মানুষ ত্রাণশিবিরে, বহু জায়গায় বন্যার আশঙ্কা

১০.১৪.০২- বিভিন্ন জায়গায় বন্যার আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

১০.১১.১১- ৫০টি স্পেশাল বাস চালাচ্ছে এসবিএসটিসি৷ ওডিশার ১১ টি জেলা বিদ্যুৎ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে৷ ওডিশার পর বাংলায় আছড়ে পড়বে এই ফণী৷ চন্দ্রকোণা, ঘাটালে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জোড়া সভা বাতিল করা হয়েছে৷

০৯.৩৫.০১- ঝড়ের পাশাপাশি পুরীতে প্রবল বৃষ্টি৷ কার্যত লন্ডভন্ড ওডিশা৷ সবথেকে ক্ষতিগ্রস্ত ওডিশার গঞ্জাম জেলা৷ পাশাপাশি গজপতিও ক্ষতিগ্রস্ত৷ কাতারে কাতারে মানুষ ত্রাণশিবিরে প্রবেশ করছে৷

৯.১৫.১০- ওডিশায় ফণীর গতিবেগ ১৭৫-১৯৫ কিমি৷ পুরীর পর এবার দূঘাগামী ট্রেনও বাতিল করা হল৷ আগামিকাল এই রাজ্যে ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা বাড়তে পারে৷ বাতিল হাওড়া-দীঘা সুপার এক্সপ্রেস৷ এখনও পর্যন্ত ২৩৩ ট্রেন বাতিল করা হয়েছে৷ ক্যুইক রসপন্স টিম প্রস্তুত রেখেছে রেল৷

০৮.৫২.১৭- দীঘায় শুরু বৃষ্টি৷ পুরীতে ওয়াল গার্ড ছাপিয়ে গেল জলোচ্ছ্বাস৷ সমুদ্র জল এল রাস্তায়৷ রাত থেকে বিদ্য়ুৎহীন পুরী৷ প্রায় ৩ ঘন্টা তাণ্ডব চালাতে পারে ফণী৷

০৮.৪৪.০৫- আছড়ে পড়ল ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় ফণী৷ পূর্বাভাসকে সত্যি করে শুক্রবার সকালেই ধেয়ে এল ফণী৷

০৮.৩০.২৫- ফণীর প্রভাব যে ধীরে ধীরে স্পষ্ট হচ্ছে আকাশের অবস্থা তা প্রমাণ দিচ্ছে। শুক্রবার ৫০ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের সম্ভাবনা রয়েছে সঙ্গে কয়েক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। স্বাভাবিক নিয়মেই কমেছে পারদ। শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে রাতের মধ্যে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এমনটাই জানাচ্ছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর। ফনী ঘূর্ণিঝড় এগিয়ে এসেছে। খুব বেশিদূর নেই। তার প্রভাব আজ বিকাল থেকে ধীরে ধীরে বোঝা যাবে।

০৮.০৫.২০১৯- গতকাল রাতে ১২টা নাগাদ পুরী থেকে বিশেষ ট্রেন শালিমারে এসে পৌঁছায়। দুপুর দেড়টা নাগাদ ওই স্পেশাল ট্রেন ছাড়া হয়েছিল। ট্রেনটি হাওড়ার শালিমার স্টেশনের এক নম্বর প্লাটফর্মে রাত ১২টা নাগাদ ঢোকে। এই ট্রেনে বহু পর্যটক এবং বেশ কিছু কলেজ পড়ুয়া পুরী থেকে ফেরেন। স্টেশন থেকে এদের গন্তব্যস্থলে যাওয়ার জন্য সরকারি বাসের ব্যবস্থা করা হয়েছিল। এরা জানান সেখানে খুব ভয়ঙ্কর অবস্থা। সকলেই আতঙ্কের মধ্যে ফিরেছেন। মোট ১১৭৬ জন পর্যটক ওই ট্রেনে ফিরেছেন।

০৭.৫৪.০৯- রাত থেকে বিদ্যুৎহীন পুরী৷ কার্যত অন্ধকার অবস্থা৷

০৭.৪১.১৭- ভয়ঙ্কর হয়ে উঠছে পুরী৷ ঝোড়ো হাওয়া, সঙ্গে বৃষ্টি৷ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ভুবনেশ্বর বিমানবন্দর৷

০৭.২০.২২- ফুঁসছে ফণী৷ কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা৷ সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ সকাল থেকেই মেঘলা আবহাওয়া৷ ঝাড়গ্রামে শুরু হয়ে গিয়েছে বৃষ্টি৷

০৬.৫৭.০৩- গোপালপুর থেকে মাত্র ৬৫ কিলোমিটার দূরে ফুঁসছে ফণী৷

০৬.৫৪.০৯- গত ২৪ ঘন্টা ১ মিলিয়নেরও বেশি মানুষকে ওডিশার কিছু কিছু জেলা থেকে সরিয়ে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ গঞ্জাম, পুরীর ৩ লক্ষ এবং ১.৩ লক্ষেরও বেশি মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে আসা হয়েছে৷ প্রায় ৫,০০০ রান্নাঘরে শুরু হয়েছে কাজ, যাতে সকলকে খাবার যথাসময়ে দেওয়া যেতে পারে৷

০৬.৪৬.১০- ওডিশা উপকূলে রয়েছে নৌসেনার ২ টি জাহাজ৷

০৬.৪৫.০১- ওডিশার ত্রাণ শিবিরে ১১ লক্ষ মানুষ৷ উপকূলে নজরদারিতে রয়েছে কোস্ট গার্ড৷ উত্তরবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হতে পারে৷ দীঘা-শঙ্করপুর-মন্দারমণিতে হোটেল খালি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে পর্যটকদের৷ ৫০টি বাস চালাবে এসবিএসটিসি৷

০৬.৪৩.১০- ৫ তারিখ থেকে দুর্যোগ সম্পূর্ণ রূপে কেটে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তবে তার আগের দুদিনের দুর্যোগের মোকাবিলায় সতর্কতা জারি করা হয়েছে৷ সকাল ৯.৩০ মিনিট নাগাদ পুরীতে ফমী আছড়ে পড়বে বলে জানা যাচ্ছে৷ এখানে ঘন্টায় ২০৫ কিলোমিটার বেগে ঝড় বইবে৷

০৬.৪০.০৯- ৩ তারিখ সন্ধ্যা থেকে ৪ তারিখ সন্ধ্যা পর্যন্ত দুর্যোগের আশঙ্কা সবথেকে বেশি৷ ৯০ থেকে ১০০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় ঝোড়ো হাওয়া বইবে বলে জানা যাচ্ছে৷ পশ্চিমবঙ্গে সকল মৎস্যজীবী-পর্যটকদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করা হয়েছে৷

০৬.৩০.২০- ধেয়ে আসছে ফণী৷ সকাল থেকেই দীঘার সমগ্র ছবিটাই যেন বদলে গিয়েছে৷ ওডিশা ছুঁয়ে আজই বাংলায় আছড়ে পড়বে ফণী৷

সূত্র: কলকাতা২৪

প্রকাশিত : ০৩ এপ্রিল ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার : ১২:০১ পিএম

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

426 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন