চাঁদপুরে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু : আটক ২

স্বজনদের দাবি হত্যা

0
100
গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় আটক শাশুড়ি ও ননদ

প্রকাশিত : ০৬ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার : ১০:০৭ পিএম

মো. কামরুজ্জামান সেন্টু :
চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে সোমবার (৬ মে) বিকেলে মারজাহান আক্তার (২৪) নামের এক গৃহবধুর লাশ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। সে কচুয়া উপজেলার আশরাফপুর গ্রামের নিলাম বাড়ির সুমন হোসেনের স্ত্রী।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

নিহতের স্বজন সূত্র জানায়, ৬ মাস পূর্বে একই উপজেলার আমুজান গ্রামের মৃত জহিরুল ইসলামের কন্যা ভিকটিম মারজাহানের সাথে আশরাপুর গ্রামের আবু তাহেরের পুত্র ভ্যানচালক সুমনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দেয়ার কথা ছিলো। ইতোমধ্যে ৭০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে। বাকী টাকার জন্য প্রায়ই ভিকটিমের শাশুড়ি সুফিয়া বেগম ও ননদ লিপি আক্তারসহ স্বামী পরিবারের লোকজন তার উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো। ঘটনার দিন দুপুর আড়াইটায় শাহরাস্তি উপজেলা হাসপাতালে ভিকটিম গুরুতর অসুস্থ মর্মে শাশুড়ি সুফিয়া বেগম তার পিত্রালয়ে মুঠোফোনে জানায়। পরিবারের লোকজন হাসপাতালে এসে ভিকটিমের মৃতদেহ দেখতে পায়।

ভিকটিমের চাচা মৃত এলাহি বক্সের ছেলে মোঃ বাবুল জানান, বিয়ের পর হতেই তার ভাতিজিকে যৌতুকের জন্য শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালানো হতো। আমরা পর্যন্ত ৭০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছি। তাদের দাবীকৃত বাকী টাকা না পেয়ে আমার ভাইজিকে হত্যা করে ফাঁসির খবর রটাচ্ছে। আমার ভাতিজি ও তাকে হত্যাকারি শাশুড়ি সুফিয়া বেগমের মুখে নখের আঁচড়ের দাগ রয়েছে। আমরা এ হত্যার বিচার চাই।

এদিকে নিহতের পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে শাহরাস্তি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ কুতুব উদ্দিন খান লিয়ন নিহতের শাশুড়ি সুফিয়া বেগম ও ননদ লিপি আক্তারকে আটক করেছে। পরবর্তীতে কচুয়া থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আবু হানিফ আইনী প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে নিহতের লাশ ও আটককৃতদের কচুয়া থানায় নিয়ে যায়।

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
212 জন পড়েছেন