বোনের মেয়েকে লাগাতার ধর্ষণ করে অন্তঃস্বত্তা বানাল মামা!

0
699

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

রংপুর প্রতিনিধি ::

রংপুরের গঙ্গাচড়ায় লম্পট ধর্ম মামা কর্তৃক এক ভাগ্নি ১৭ সপ্তাহের অন্তঃসত্ত্বা হয়েছে। এ ঘটনায় ওই মামার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছে ভূক্তভোগী মেয়ের মা। লম্পট ধর্ম মামার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে এলাকাবাসী।

উপজেলার মর্নেয়া ইউনিয়নের ছোট রুপাই নীলেরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নাবালিকার মা বাদী হয়ে লম্পট ধর্ষকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, মর্নেয়া ইউনিয়নের চৌদ্দমাথা পাইকারটারী গ্রামের ফজলুল হকের ছেলে লেবু মিয়া (৪০) একজন প্রভাবশালী টাউট ও দালাল প্রকৃতির লোক। সে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিগণের কাছ থেকে বিভিন্ন ভাতার কার্ড বা কাজ দেওয়ার লোভ দেখায়ে দরিদ্র মানুষের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা হাতিয়ে নেয়। ছোট রুপাই নীলেরপাড়ের বুলবুল ইসলাম একজন হতদরিদ্র দিনমজুর। সে স্ত্রী ও ছেলেমেয়েকে নিয়ে বাঁধের মাথায় খাস জমিতে একটি ভাঙ্গা চালায় কোন রকম বসবাস করে আসছে।

বুলবুলের স্ত্রী সুফিয়া বেগম সংসারের অভাব অনাটানের কথা চিন্তা করে একটি সুবিধাভোগী কার্ড বা কাজের জন্য লেবুর কাছে যায় এবং তাকে ধর্ম ভাই বানায় এবং তার ছেলেমেয়ে লেবুকে মামা হিসেবে মানতো ও ডাকতো। এ সুয়োগ কাজে লাগিয়ে লেবু খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য ধর্ম বোনের বাড়িতে প্রায় যাতায়াত করতো।

যাতায়াতের এক পর্যায় ধর্ম বোনের ১৪ বছরের নাবালিকা মেয়ের ওপর কু-দৃষ্টি পড়ে লেবুর। পেটের তাগিদে নাবালিকার বাবা-মা বাইরে থাকার সুযোগে লেবু ধর্ম বোনের বাড়িতে গিয়ে বিভিন্ন প্রলোভন ও বিয়ের প্রস্তাবে ভাগনিকে লাগাতার ধর্ষণ করতে থাকে। দিনের পর দিন দৈহিক সম্পর্কের ফলে এক পর্যায়ে নাবালিকার শারীরিক পরিবর্তন দেখা দিলে লেবু ওই বাড়িতে যাতায়াত বন্ধ করে দেয়।

পরে বাবা-মার কাছে নাবালিকা লেবুর ধর্ষণের বিষয়টি খুলে বলে। বুলবুল ও সুফিয়া এলাকার কয়েকজনের উপস্থিতিতে লেবুকে গত ২৮ এপ্রিল বাড়িতে ডেকে আনে এবং তাদের মেয়েকে ধর্ষণের বিষয় জানতে চায়। লেবু গর্ভের সন্তান নষ্টের খরচ দেওয়ার কথা বলে সেখান থেকে চলে যায়।

এলাকার হারুন, আশরাফুল, রশিদ, সাজু, মাহমুদসহ অনেকে জানান, লেবু নিজে প্রভাবশালী তার ওপর ছাঁয়া হিসেবে আছে আর এক প্রভাবশালী। তাই ইতোমধ্যে আরো অনেক ঘটনা করেও সে অর্থের বিনিময়ে রক্ষা পেয়েছে। এটিও সে প্রভাব খাঁটিয়ে ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না এবার। এলাকার ব্যক্তিরা আর্থিক সহযোগিতা করে দেরীতে হলেও লম্পট লেবুর বিরুদ্ধে গতকাল ৮ মে তারিখে আদালতে মামলা হয়েছে।

মেয়ের মা জানান, আমার দারিদ্রতার সুযোগ নিয়ে লেবু ধর্ম ভাই সেজে আমার নাবালিকা মেয়ের সর্বনাশ করলো। আমি মেয়ের ডাক্তারি পরীক্ষার মাধ্যমে জানতে পারি আমার মেয়ে ১৭ সপ্তাহের গর্ভবতী হয়েছে। তাই প্রভাবশালীর কাছে মাথানত না করে এলাকার কয়েকজনের সহযোগিতায় লেবুর শাস্তির আসায় আদালতে মামলা করি।

এ ঘটনার ব্যাপারে মুঠোফোনে লেবুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারটি রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র। আমার ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য একটি প্রভাবশালী মহল পায়তারা করছে। এ ঘটনার সাথে আমি জড়িত নই।

প্রকাশিত : ০৯ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার : ০২:২০ পিএম

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
279 জন পড়েছেন