দেবতাকে গরম থেকে ‘বাঁচাতে’ মন্দিরে এসি-ফ্যান

0
59

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

তীব্র দাবদাহে পুড়ছে ভারতের উত্তরপ্রদেশ। প্রদেশটিতে তাপমাত্রা প্রায় চল্লিশের কাছাকাছি পৌঁছেছে।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

তাছাড়া দেশটিতে চলছে লোকসভা নির্বাচনের রাজনৈতিক উত্তাপ। গরমে খুব কষ্ট হচ্ছে বলে মন্দিরে থাকা দেবতাদের জন্য এসি-ফ্যানের ব্যবস্থা করেছেন প্রদেশটির পুরোহিতরা।

দেবতাদের গরম লাগছে মর্মে ভক্তদের কাছ থেকে চাঁদা নেয়ার এমন ঘটনা ঘটেছে উত্তর প্রদেশের কানপুর শহরে। তবে ভক্তরা বলছেন, দেবতার নাম করে নিজেদের গরম থেকে স্বস্তির জন্য এমন ফন্দি তৈরি করেছেন পুরোহিতরা।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

পুরোহিতদের দাবি, দেবতাদের এতই গরম লাগছে যে তারা মন্দিরে থাকতে পারছেন না। তাই দেবতাদের গরমের কবল থেকে বাঁচাতে এসি, এয়ারকুলার ও ফ্যান লাগানোর মাধ্যমে বিশেষ এই ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারা বলছেন, এতে করে দেবতারা সুস্থ থাকবেন।

কানপুরের সিদ্ধিবিনায়ক গণেশ মন্দিরের প্রধান পুরোহিত সুরজিত কুমার দুবে বলছেন, ‘ভগবানেরও তো গরম লাগে। দেবতারাও আমাদের মতো কষ্ট পান। তাই মন্দিরের পরিবেশ ঠাণ্ডা রাখার জন্য এমন আয়োজন। তাছাড়া তাকে (দেবতাকে) হালকা জামাকাপড় পরানো হয়েছে।’

তবে শহরটিতে বসবাসরত হিন্দু ধর্মাবলম্বী সাধারণ মানুষের অভিযোগ, পুরোহিতরা ভগবানের কথা বলে নিজেদের জন্য এই ব্যবস্থা করেছেন। পুরোহিতেরা মন্দিরের ভেতরে যাতে গরম ছাড়া আরামে থাকতে পারেন তাই মানুষের চাঁদার টাকায় এমন ব্যবস্থা করেছেন।

প্রকাশিত : ১১ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার : 04:37 PM

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
662 জন পড়েছেন