প্রেমিক নিয়ে থাকা হলো না প্রবাসীর স্ত্রীর, ঘটনা ফাঁস

0
362

জেলা প্রতিনিধি পাবনা
পাবনার আতাইকুলা থানার চড়াডাঙ্গা গ্রামের প্রবাসী আব্দুল আওয়াল (৩৫) হত্যা মামলায় স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

হত্যাকাণ্ডের প্রায় পাঁচ মাস পর এ ঘটনার রহস্য ফাঁস হয়ে যায়।

পরকীয়া প্রেমিককে নিয়ে প্রবাসী স্বামীকে খুন করা হয়। শনিবার সকালে সাঁথিয়া উপজেলার গোপালপুর থেকে এ ঘটনায় জড়িত স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করা হয়।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন : হাকীম মিজানুর রহমান, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন নিহতের স্ত্রী খাদিজা বেগম গোলাপী (৩০), শ্বশুর গোলজার হোসেন গোলাই (৬৫) ও শাশুড়ি ভানু বেগম (৫৬)। পরকীয়ার জের ধরে ২০১৮ সালের ১৬ ডিসেম্বর রাতে আব্দুল আওয়াল শ্বশুরবাড়িতে খুন হন।

নিহত আব্দুল আওয়ালের বাবা তোফাজ্জল হোসেন জানান, তার ছেলে দেশের বাইরে থাকত। তার পুত্রবধূ খাদিজা বেগম গোলাপী এ সুযোগে শামীম হোসেন নামের এক ছেলের সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে পড়ে। ২০১৮ সলের ১০ ডিসেম্বর তার ছেলে বাড়ি আসে।

১৬ ডিসেম্বর সে শ্বশুরবাড়িতে যায়। ওই দিনই তার পুত্রবধূ, পুত্রবধূর প্রেমিক ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন মিলে তার ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। পরে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার জন্য তার মরদেহ ঝুলিয়ে রাখে তারা।

এ ঘটনায় বাদী হয়ে প্রথমে আতাইকুলা থানায় মামলা করেন নিহতের বাবা। কিন্তু মামলার তদন্ত ঠিকমতো না হওয়ায় তিনি মামলাটি পিবিআইতে স্থানান্তরের আবেদন জানান। পুলিশ হেডকোয়ার্টারের নির্দেশে পিবিআই নতুন করে তদন্ত শুরু করে। অবশেষে হত্যাকাণ্ডের রহস্য ফাঁস হয়ে যায়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) এসআই সবুজ বলেন, দীর্ঘ অনুসন্ধানের পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার ভোর রাতে প্রবাসী হত্যাকাণ্ডে জড়িত স্ত্রী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে গ্রেফতার করা হয়। তাদেরকে শনিবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। খাদিজার পরকীয়া প্রেমিক শামীমসহ মামলার অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান পিবিআইয়ের এসআই সবুজ।

প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ১১ মে ২০১৯

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
232 জন পড়েছেন