ষষ্ঠ বিয়ের জন্য পাগল হয়ে ঘটালেন ভয়ঙ্কর কাণ্ড

0
728

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

বরগুনার আমতলী উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের পূর্ব চুনাখালী গ্রামের লেদু মাতুব্বরের ছেলে নিজাম মাতুব্বর। পেশায় একজন গরু ব্যবসায়ী হলেও স্থানীয়দের কাছে বিয়েপাগল নিজাম নামেই বেশি পরিচিত তিনি।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এরই মধ্যে ষষ্ঠ বিয়েতে বাধা দেয়ায় চতুর্থ স্ত্রীকে কুপিয়ে যখম করেছেন নিজাম। সেই সঙ্গে প্রথম স্ত্রীর এক ছেলেকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছেন। ৬ মে রাতের এ ঘটনার পর শনিবার রাতে আমতলী থানায় মামলা করেছেন নিজাম মাতুব্বরের চতুর্থ স্ত্রী নাসিমা বেগম।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

মামলা সূত্রে জানা যায়, নিজাম মাতুব্বর দীর্ঘদিন ধরে গরু ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবসা করছেন। ব্যবসার আড়ালে তিনি একের পর এক বিয়ে করছেন। ১৯৯৫ সালে জাহানারা বেগম নামের এক নারীকে প্রথম বিয়ে করেন তিনি। প্রথম স্ত্রী দুটি সন্তান জন্ম দেয়ার পর তাকে ডিভোর্স দেন নিজাম। এরপর খাজিদা নামের আরেক নারীকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দ্বিতীয় স্ত্রী তিনটি পুত্র সন্তান জন্ম দিলে তাকে ডিভোর্স দেন নিজাম।

এরপর মারুফা নামের আরেক নারীকে তৃতীয় বিয়ে করেন নিজাম। সেই স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়ে ২০০৭ সালে নাসিমা বেগম নামে আরেক নারীকে চতুর্থ বিয়ে করেন। এরপর চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে চতুর্থ স্ত্রী নাসিমাকে না জানিয়ে পঞ্চম স্ত্রী হিসেবে একই এলাকার ১৩ বছরের নিলা নামের এক মেয়েকে গোপনে বিয়ে করেন নিজাম।

মামলা সূত্রে আরও জানা যায়, নিজাম ষষ্ঠ বিয়ে করার জন্য চতুর্থ স্ত্রী নাসিমা ও পঞ্চম স্ত্রী নিলার সম্মতি চান। পঞ্চম স্ত্রী নিলা সম্মতি দিলেও চতুর্থ স্ত্রী নাসিমা বিয়েতে সম্মতি না দিয়ে বাধা দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ৬ মে নিজাম তার চতুর্থ স্ত্রীকে ঘরের মধ্যে আটকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন। স্ত্রীর ডাক চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে আমতলী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

আহত নাসিমা বেগম বলেন, আমাকে বিয়ে করার আগে আরও চারটি বিয়ে করেছে নিজাম। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ১৩ বছরের নিলা নামের একটি মেয়েকে বিয়ে করেছে সে। এখন আবার বিয়ের জন্য আমার সম্মতি চায়। এতে সম্মতি না দেয়ায় আমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে নিজাম। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

বিয়েপাগল নিজাম মাতুব্বরের প্রথম স্ত্রীর ছেলে রিয়ন জানায়, বাবা এ পর্যন্ত পাঁচটি বিয়ে করেছেন। ৬ষ্ঠ বিয়ে করার জন্য চেষ্টা চালাচ্ছেন। তার ৬ষ্ঠ বিয়েতে বাধা দেয়ায় আমাকে পিটিয়ে হাত-পা ভেঙে দিয়েছেন। বাবার এমন ঘৃণ্য কাজের জন্য আমরা সমাজে মুখ দেখাতে পারি না।

বিয়েপাগল নিজাম মাতুব্বর একাধিক বিয়ে ও স্ত্রী নাসিমাকে মারধরের কথা অস্বীকার করে বলেন, আমার ছেলে এবং স্ত্রী আমাকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিয়েছে।

এ বিষয়ে আমতলী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল বাশার বলেন, নিজাম মাতুব্বর একের পর এক বিয়ে করছে। আবার বিয়ে করতে বাধা দেয়ায় চতুর্থ স্ত্রীকে মারধর করেছে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

প্রকাশিত : ১২ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, রোববার : 06:00 AM

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
384 জন পড়েছেন