হাসপাতালে রোগীর মাকে কুপ্রস্তাব দিয়ে ডাক্তার লাঞ্ছিত

0
300

 

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক শিশু রোগীর মাকে (১৯) কুপ্রস্তাব দিয়েছেন ডাক্তার। বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ওই ডাক্তারকে লাঞ্ছিত করা হয়েছে।

মঙ্গলবার রাতে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এ ঘটনা ঘটে। বুধবার বিষয়টি জানাজানি হয়। রোগীর মায়ের সঙ্গে ডাক্তারের এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয়রা।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

ভুক্তভোগী ওই নারী (১৯) বলেন, ‘আমার ছয় বছরের শিশু সন্তানকে মঙ্গলবার সকালে বাউফল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। শিশুটি প্রচণ্ড অসুস্থ হওয়ায় এবং ভয় পাওয়ায় হাসপাতালের ওয়ার্ডে তাকে দেখাশোনা করার জন্য আসি আমি। সন্তানকে হাসপাতালে ভর্তির সময় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক ডাক্তার আবদুর রউফের দৃষ্টি পড়ে আমার ওপর। পরে আমার মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করে ডাক্তার আবদুর রউফ। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আমার ফোনে একাধিকবার কল দেয় ডাক্তার সে। সেই সঙ্গে আমাকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। একপর্যায়ে ফোন করে আমাকে কুপ্রস্তাব দেয় ডা. আবদুর রউফ। এতে রাজি না হলে মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে নিজের কক্ষে ডেকে নিয়ে আমার সঙ্গে অশালীন আচরণ করে।’

ভুক্তভোগী ওই নারী আরও বলেন, আমার সঙ্গে অশালীন আচরণের পর ডাক্তারের কক্ষ থেকে আমি বেরিয়ে আসি। পরে বিষয়টি আমার আত্মীয়-স্বজনকে জানাই। এরপর আমার কয়েকজন আত্মীয়-স্বজন ও হাসপাতালে থাকা রোগীর স্বজনরা বিষয়টি জেনে ডা. আবদুর রউফের কাছে বিষয়টি জানতে চান। কোনো উত্তর দিতে না পারায় ডা. আবদুর রউফকে অপমানজনক কথাবার্তা বলেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আবদুর রউফের মোবাইল নম্বরে একাধিকবার কল দেয়া হয়। বিষয়টি জানতে চেয়ে ডা. আবদুর রউফকে এসএমএস দেয়া হয়। পরে ফোন রিসিভ না করে বন্ধ করে দেন তিনি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বাউফল থানা পুলিশের ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এরকম কোনো ঘটনার বিষয়ে আমাদের কাছে কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগে পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রকাশিত : ১৫ মে ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার : ০৩:০৬ এএম

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
222 জন পড়েছেন