বেশিরভাগ মানুষই তাকে অবহেলা করতো

0
73

 

মিজানুর রহমান রানা :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

হ্যা, হেডলাইনটা এমনই হলো, কারণ তাকে বেশিরভাগ মানুষই অবহেলা করতো। অথচ মানুষটা অনেক পরিশ্রমী, মেধাবী এবং সাহসী। সে সত্যিই তার মেধা ও সাহসের পরিচয় দিয়ে দিলো। অবশ্যই আপনারা তার নামটা জানতে চাচ্ছেন।

তার নাম কবির হোসেন মিজি। অবহেলা, লাঞ্ছনা সয়ে সয়ে সে এতটা দূর এসেছে। এখন তার জয়ের পালা। নিজকে মেলে ধরার সংগ্রামে সে এগিয়েছে অনেকটা দূর।

কবির মিজির সাথে আমার পরিচয় দীঘদিনের। সে যখন তার কাঁচা হাতের লেখা নিয়ে আমার কাছে আসে তখন আমি চাঁদপুরের স্থানীয় পত্রিকা দৈনিক চাঁদপুর কণ্ঠের সাহিত্য পাতা, পাঠক ফোরামের বিভাগীয় সম্পাদক। তার কবিতা, গল্পগুলো দেখে আমি বুঝতে পারি এ ছেলে একদিন এগিয়ে যাবে অনেকদূর। পাঠক ফোরাম বিভাগে তার বিষয়ে সাক্ষাৎকারও প্রকাশ করেছিলাম।

তাকে আমিই প্রথম উৎসাহিত করি জাতীয় পত্রিকায় লেখা পাঠাতে। সে পাঠিয়েছি। আমারদেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হবার পর সে তা দেখেনি। দেখেছি আমি। যখন তাকে বলেছি, তার সে কি খুশি।

সেই কবির মিজি আজ একে এসে সে জয় করছে অনেকখানিই, অনেক অঙ্গনে।

সেই দশ বছর আগে যেমন করে জয় করেছিলো আমারদেশ পত্রিকার পাতায় তার অনেকের কাছেই অবহেলিত, তিরস্কৃত লেখা প্রকাশিত হয়ে। ঠিক তেমনই আজ সে দেখিয়ে দিলো, সেও পারে। সত্যিকার ভাবেই পারে।

যদিও অনেক আগেই সে ‘লাল বেনারশি’ নামের গানটি এসডি রুবেলের কণ্ঠে নিজেই লিখে গীতিকার হয়ে সঙ্গীতাঙ্গনে পা রেখেছিলে কিন্তু গায়ক ও গীতিকার হিসেবে এই প্রথম আত্মপ্রকাশ।

বেশ চমৎকার লেগেছে কবির মিজির লেখা ও কণ্ঠে ঈদ নিয়ে তার গানটি। জয় হোক কবির মিজির।

প্রকাশিত : ০৫ জুন ২০১৯ খ্রি. সময় : ০৫:৫২

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
182 জন পড়েছেন