৪০ লাখ টাকার জন্য বোনকে পাগল সাজিয়ে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

0
405

 

নরসিংদী সংবাদদাতা :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

সম্পত্তি আত্মসাতের চেষ্টায় আপন বোনকে পাগল সাজিয়ে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

নির্মম এই ঘটনাটি ঘটেছে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার চামড়াব গ্রামে। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হলে গত শনিবার (৮ জুন) পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মকবুল হোসেন মোল্লা ঘরের তালা ভেঙে শিকলে বাঁধা অবস্থায় কিশোরী স্মৃতি পালকে (১৮) উদ্ধার করেছেন।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত, মেহ-প্রমেহ) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

উদ্ধার করে তার স্বাস্থ্যগত অবস্থার অবনতি থাকায় তাকে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অভিযুক্ত স্মৃতি পালের ভাই রনি পাল (২৫) পালিয়ে যায়। এ সময় স্মৃতি পালের চাচা রিপন পালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ আটক করে। স্মৃতি পৌর এলাকার চামড়াব গ্রামের মৃত দেবেশ চন্দ্র পালের মেয়ে।

স্থানীয় লোকজন ও পলাশ থানার পুলিশ জানায়, ঘোড়াশাল পৌর এলাকার চামড়ার গ্রামের মৃত দেবেশ চন্দ্র পাল প্রায় ৮ বছর পূর্বে ও তার স্ত্রী বিনা রানী পাল প্রায় ৫ বছর আগে মারা যান। তাদের রেখে যাওয়া প্রায় ১২০ শতাংশ জমি একমাত্র ছেলে রনি পাল ও একমাত্র মেয়ে স্মৃতি পাল ভোগ করে আসছিলেন। বোন স্মৃতি রানী পাল ২০১৮ সালে পলাশের রাবান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করে এলাকায় বিনা বেতনে ছোট ছেলেমেয়েদের লেখাপড়া করায়। ভাই রনি পাল সকল সম্পত্তি একাই আত্মসাৎ করার লক্ষ্যে নিজ বোনকে কোনো কলেজে ভর্তি না করে পাগল সাজানোর চেষ্টা চালায়।

গত ১ মাস যাবৎ তাকে একটি রুমে খাটের সাথে পায়ে শিকল দিয়ে বেঁধে ঘরের দরজা-জানালা, ফ্যান ও বাতি বন্ধ করে অন্ধকারে ফেলে রাখে। মাঝেমধ্যে রনি পাল স্মৃতিকে মানসিক নির্যাতন চালাতে দেহে ইনজেকশন এবং বিভিন্ন ঘুমের ওষুধ খাওয়াত বলে নির্যাতিত কিশোরী স্মৃতি জানায়। নির্যাতনের সময় বন্দী অবস্থায় তাকে নিয়মিত খাবার দেওয়া হয়নি। এ সুযোগে রনি পাল তার চাচা রিপন পালের শ্যালক পৌর এলাকার ভাগদী গ্রামের বাসিন্দা অপু পালের কাছে তার সমস্ত সম্পত্তি বিক্রির উদ্দেশ্যে ৪০ লাখ টাকা বায়না করে। বাকি টাকা নিয়ে ১ সপ্তাহের মধ্যে বাড়িসহ জমি রেজিস্ট্রি করে দেওয়ার কথা ছিল বলে তার চাচা রিপন পাল জানায়।

স্মৃতি রানী পালকে শিকলবাঁধা অবস্থায় পুলিশ উদ্ধারের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহেদ আহম্মেদ, পলাশ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ জাবেদ হোসেন ও পৌর মেয়র শরিফুল হক।

এ বিষয়ে পলাশ থানার অফিসার ইনচার্জ মকবুল হোসেন মোল্লা জানান, সকালে খবর পেয়ে কিশোরী স্মৃতি রানী পালকে শিকলবাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে পলাশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সে মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিল। একটু সুস্থ হলে বিকেলে থানায় নিয়ে আসা হয়। স্মৃতি রানী পাল পুরোপুরি সুস্থ হলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

প্রকাশিত : ১০ জুন ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
969 জন পড়েছেন