কুমিল্লায় ধর্ষনের অভিযোগে চাচাত ভাই গ্রেপ্তার

0
21

জাহাঙ্গীর আলম ইমরুল, কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লার দেবীদ্বারে কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে মোঃ সোহেল (২৪) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।
সোহেল উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের সাফিকুল ইসলামের ছেলে। পেশায় সে সিএনজি চালিত অটোরিক্সা চালক। সে ভিক্টিমের আপন চাচাত ভাই।
মঙ্গলবার দেবীদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস.আই) নাফিজ আহমেদ সঙ্গীয় ফোর্স উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রাম থেকে তাকে প্রেপ্তার করে থানায় নিয়ে আসে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ভিক্টিম কিশোরীকে হত্যার হুমকি ও নানাভাবে ভীতি প্রদর্শনে প্রায় দেড় বছর ধরে নিয়মিত ধর্ষন করে আসছে সোহেল। ধর্ষক সোহেল পরকিয়া প্রেমের টানে পাশ্ববর্তী মুরাদনগর উপজেলার লক্ষিপুর (দারোরা) গ্রামের ৬ সন্তানের জননী নূরজাহানকে (৫০) নিয়ে পালিয়ে বিয়ে করেন। বিয়ের পর স্ত্রী সৌদী আরবে চলে যান। প্রায় দেড় বছর কর্মজীবন শেষ করে ৭ মাস পূর্বে দেশে আসেন। আসার পর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে পারিবারিক বিরোধ চলতে থাকে।
গত রোববারও ধর্ষনের শিকার হলে ভিক্টিম তার ভাবী নূরজাহানকে বিষয়টি অবগত করেন। এ নিয়ে ধর্ষকের স্ত্রী নূরজাহান বিষয়টি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অবগত করলে ভিক্টিমের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে মিমাংশার প্রস্তাবে কিছু শর্ত জুড়ে দেন। ধর্ষক সোহেল ওই শর্ত মানতে রাজি না হওয়ায় শিশুর মা দেবীদ্বার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়েরের পর সোহেলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
ভিক্টিম কিশোরী জানায়, তাকে নিয়মিত ধর্ষণ করতেন সোহেল। শেষবার গত ৮ জুন তাকে ২০ টাকা হাতে দিয়ে ধর্ষন করেন তিনি। এ ঘটনা কাউকে জানালে তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দেন সোহেল।
দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ জহিরুল আনোয়ার জানান, ভিক্টিমের মা বাদী হয়ে মোঃ সোহেলকে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেন। অভিযুক্ত সোহেল জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষনের দায় স্বীকার করেছে। আজ সকালে আসামি সোহেলকে কোর্ট হাজতে চালান করা হয়েছে এবং ভিক্টিমকে ডাক্তারী পরীক্ষা ও ম্যাজিষ্ট্রেটের নিকট ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য কুমিল্লা প্রেরন করা হয়েছে।

প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমকেজেড

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
83 জন পড়েছেন