haimchor

চিকিৎসক সংকটে হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্যসেবা হুমকির মুখে

সাহেদ হোসেন দিপু, হাইমচর প্রতিনিধি :
জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দিতে সরকার নিরলস পরিশ্রম করলেও চিকিৎসক সংকটে হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য সেবা হুমকির মধ্যে রয়েছে। ১৬ জন চিকিৎসকের মধ্যে মাত্র ২জন চিকিৎসক দিয়ে টেনেহিঁচড়ে চলছে হাইমচরের একমাত্র সরকারি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর স্বাস্থ্য সেবা। চিকিৎসক সংকটের এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে হাইমচরের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যসেবা পড়বে চরম হুমকির মুখে।

সরজমিনে ১ জুলাই ২০১৯ খ্রি. সোমবার হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায় ১ জন চিকিৎসক রোগীদের সেবা দিচ্ছেন। তার আশেপাশে প্রায় শতাধিক রোগী দাড়িয়ে এবং বসে আছে। জানতে চাইলে ওই আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মামুন রায়হান জানান, হাইমচর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ ৬টি ইউনিয়নের সাবসেন্টারে মোট ১৬জন চিকিৎসক থাকার কথা থাকলেও বর্তমানে ২জন চিকিৎসক দিয়েই চলছে হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসা সেবা। ইতিপূর্বে বেশ কয়েকজন চিকিৎসক নিয়োগ পেলেও অল্প কয়েকদিন কমপ্লেক্সে থেকে আবার তদবীর করে অন্যত্র চলে যায়। সর্বশেষ আজ সোমবারও একজন চিকিৎসক ডেপুটেশনে ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চলে গেছেন। এভাবে চলে যেতে যেতে মাত্র ২জনে এসে দাড়িয়েছে। আমরা ২জন স্বাস্থ্য সেবা দিয়ে দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছি। আমরাও তো মানুষ, আমাদেরও বিশ্রামের প্রয়োজন রয়েছে। আমরা তা পাচ্ছি না।

তিনি বলেন, পাশ্ববর্তী উপজেলা ফরিদগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অনেক চিৎিসক রয়েছে। হাইমচরে মাত্র ২জন। এছাড়া ২জন চিকিৎসক ডা. প্রনতি দাশ ও ডা. দিপনদে প্রায় ৫ বছর ধরে কর্মস্থলে অননোমোদিত অনুপস্থিত রয়েছে।

হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাইমচর উপজেলাবাসীর একমাত্র স্বাস্থ্য সেবার মাধ্যম হলেও চিকিৎসক না থাকায় রোগীদের চরম দুর্দিন যাচ্ছে।
এ প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় রোগী কমলাপুরের আমেনা, আবুল হোসেন, চরভাঙ্গার আলামিন, রহিমা এবং তাছলিমার সাথে। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা দীর্ঘক্ষণ এসে বসে আছি। একজন ডাক্তার চিকিৎসা দিচ্ছেন, আমরা সিরিয়াল পাচ্ছি না। আরো ডাক্তার থাকলে আমরা তারাতারি চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি যেতে পারতাম।

এ ব্যাপারে কথা হয় ইউএইচএফপিও ডা. মো. বেলায়েত হোসেনের সাথে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকট রয়েছে। আমি চিকিৎসক পাওয়ার ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে বার বার যোগাযোগ অব্যাহত রেখেছি।

চিকিৎসক সংকটের ব্যাপারে হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূর হোসেন পাটওয়ারী বলেন, আমি জেনেছি হাইমচর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকট চলছে। দ্রæত চিকিৎসক পাওয়ার ব্যাপারে আমি আমাদের সংসদ সদস্য মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনির সাথে কথ বলবো।

ডা. দীপু মনির কাছে হাইমচর উপজেলাবাসীর জোরালো দাবি, হাইমচরবাসীর একমাত্র স্বাস্থ্য সেবা নেয়ার জায়গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসক সংকট নিরসনে জরুরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

প্রকাশিত : ০১ জুলাই ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

 139 সর্বমোট পড়েছেন,  1 আজ পড়েছেন

শেয়ার করুন