ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র ‘সাহিত্য উৎসব ২০১৯’র উদ্বোধন

সমাজের স্বার্থে লেখকদের পৃষ্ঠপোষকতা করা প্রয়োজন : রূপসা জমীদার বংশধর মেহেদী হাসান চৌধুরী

0
23

ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি : চাঁদপুর জেলার জনপ্রিয় সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র ‘সাহিত্য উৎসব ২০১৯’ এর শুভ উদ্বোধন হয়েছে গতকাল ১৮ জুলাই রোজ বৃহস্পতিবার। শান্তির পায়রা উড়িয়ে ৮ দিন ব্যাপী অনুষ্ঠান মালার উদ্বোধন করেন মেঘনা পাড়ের জমিদার খ্যাত রূপসার জমিদারদের বংশধর, ঢাকার বিশিষ্ট্য ব্যবসায়ী মেহেদী হাসান চৌধুরী।

http://picasion.com/

এ সময় তিনি বলেন,‘দেখতে দেখতে উপজেলাবাসীর প্রিয় সংগঠন ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র ১৫ বছর হয়ে গেছে। মফস্বল এলাকায় একটি সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংগঠন ১৫ বছর ধরে রাখা অনেক কঠিন কাজ। সে কঠিন কাজটি সফলভাবে করে যাচ্ছে সংগঠনের সদস্যরা। আমি বিস্মিত, অভিভূত। সংগঠনের সাবেক উপদেষ্টা, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এম.এম মতিন সাহেব গত হয়েছে বেশ কয়েক বছর আগে। ১১ বছর পরও সংগঠন তাকে ভুলেনি। সংগঠনের নেতৃবৃন্দের এই কৃতজ্ঞতাভোদ তাদেরকে আরো এগিয়ে নিয়ে যাবে। সাহিত্য উৎসব ২০১৯ এ আমি উদ্বোধক হতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি। ইতিহাসের স্বাক্ষী হতে পেরেছি বলে ভালো লাগছে।’ তিনি আরো বলেন,‘লেখকরা হলেন সমাজের অলঙ্কার। সমাজের স্বার্থে কবি- সাহিত্যিকদের এবং এ ধরনের সংগঠনকে পৃষ্ঠপোষকতা করা প্রয়োজন।’

ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম’র প্রতিষ্ঠাতা ও মহাপরিচালক নূরুল ইসলাম ফরহাদ’র সভাপতিত্বে এবং সাবেক সভাপতি বাচিক শিল্পী রাসেল হাসান’র উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি, আলোকিত ফরিদগঞ্জের সম্পাদক নুরুন্নবী নোমান, ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক, ফরিদগঞ্জ কণ্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক প্রবীর চক্রবর্তী, সাহিত্যিক মোস্তফা কামাল মুকুল, রূপসা বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি মো.ফারুক খান প্রমুখ।

ফরিদগঞ্জ লেখক ফোরাম এবং ফরিদগঞ্জ প্রেসক্লাব কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মধ্যে ছিলো, আবৃত্তি, চিত্রাঙ্কন ও একক অভিনয় প্রতিযোগিতা। সকাল ১০টায় দু’টি স্থানে শুরু হয় চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা। তিনটি বিভাগে উপজেলার শতাধিক শিক্ষার্থী এ প্রতিযোগিতা অংশগ্রহণ করে। এরপর শুরু হয় একক অভিনয় এবং আবৃত্তি প্রতিযোগিতা। তিনটি বিভাগে একক অভিনয়ে অংশগ্রহণ করে প্রায় অর্ধশত প্রতিযোগী এবং পাঁচটি বিভাগে আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী। আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় ইয়েস কার্ড প্রাপ্তরা হলেন- ‘ক’ বিভাগে : ফরিদগঞ্জ মডেল সরকারি প্রা.বি. এর সাবিহা ও জান্নাতুল মাওয়া। ইকরা মডেল মাদ্রাসা এন্ড একাডেমির ইমরোজ রহমান, মারিয়া সুলতানা। বর্ণমালা কিন্ডারগার্ডেনের জাকিয়া আফরা জারা। ‘খ’ বিভাগে : ফরিদগঞ্জ মডেল সরকারি প্রা.বি. এর সামিয়া বিনতে মাহফুজ। ইকরা মডেল মাদ্রাসা এন্ড একাডেমির উম্মে সায়মা, আল আবির রহমান, নুসরাত জাহান ও উম্মে হাবিবা। ‘গ’ বিভাগ: কেরোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের আনজুমান আরা। গৃদকালিন্দিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেকুন্নাহার। গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের আজমীর পাটোয়ারী ও তানভির ইসলাম। কড়ৈতলী উচ্চ বিদ্যালয়ের ফারজানা আক্তার। ‘ঘ’ বিভাগ : গৃদকালিন্দিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ইসমাইল হোসেন ও মিরাজ হোসেন। কেরোয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের তানজিনা আক্তার। ‘ঙ’ বিভাগ : ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সরকারি কলেজের লাভলী আক্তার, নাসরিন আক্তার ও নাজমুল হাসান। গৃদকালিন্দিয়া হাজেরা হাসমত অর্নাস কলেজের সাদিয়া ইসলাম ও সাবিনা আফরিন।

আবৃত্তি প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন- হোসনা ইয়াছমিন সূচনা, অমৃত ফরহাদ, রাসেল হাসান, মোস্তফা কামাল মুকুল, খাদিজা আক্তার রিভা। একক অভিনয় প্রতিযোগিতার বিচারক ছিলেন- মোস্তফা কামাল মুকুল, ফাতেমা আক্তার শিল্পী ও বাঁধন কুমার শীল।

প্রকাশিত : ১৯ জুলাই ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
107 জন পড়েছেন
http://picasion.com/