শাহরাস্তিতে মামলার ভয় দেখিয়ে হয়রানির চেষ্টা

0
40

শাহরাস্তি প্রতিনিধি :
শাহরাস্তিতে তুচ্ছ গঠনাকে কেন্দ্র করে মামলার ভয় দেখিয়ে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

এলাকা সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, টামটা উত্তর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের পরান গ্রামের এ ঘটনা ঘটেছে। গত ৬ জুলাই শনিবার পরানপুর এলাকায় আমির হোসেনের ছেলে মামুন হোসেন তার স্ত্রীকে মৌখিক তালাক দিলে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় মেম্বার আবু মিয়ার নেতৃত্বে একটি স্থানীয় সালিশ বৈঠক বসেন। যা এলাকার অন্যকোনো ব্যক্তিবর্গ জানেন না। এই নিয়ে আবু মিয়ার পছন্দের গুটি কয়েকজন যেমনঃ আছর উদ্দিনের ছেলে জহির ও নূরে আলম, আরিফ সহ আবু মিয়ার বিল্ডিং এ বসেন। এই নিয়ে পূর্বে মামুন ও তার স্ত্রীকে নিয়ে বহু সালিশ বৈঠক হয়েছিল বলে জানা যায়।

এলাকার লোকজনের ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আবু মেম্বার এলাকার সকল সালিশ দরবার গন্যমান্যব্যক্তিবর্গদেরকে তোয়াক্কা না করে নিজের মনগড়া মত প্রত্যেক বারই আবু মিয়া গুটিকয়েক ছাড়া এ বিষয়ে এলাকার কাউকে মূল্যায়ন না করে নিজের স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে সমযোতার চেষ্টা করেন। এই নিয়ে এলাকার গন্যমান্য ও মুরুব্বি শ্রেণীর লোকদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

গত শনিবার বৈঠকে মির আহম্মেদের ছেলে জহিরুল ইসলাম সহ এলাকার ব্যক্তিবর্গ ঐ বৈঠকে গেলে তাদেরকে অশালিন ভাষায় কথা বলে এবং সালিশ থেকে চলে যাওয়ার জন্য আরিফ ও নূরে আলম ধমক দিয়ে চলে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। এই নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এক পর্যায়ে আছর উদ্দিনের ছেলে জহির মির আহম্মেদের ছেলেকে বেদম মারধর করে।

উপস্থিত আবু মেম্বার উভয় পক্ষকে আপোষ করে উক্ত স্থান থেকে চলে যেতে বলেন। তারপর আছর উদ্দিনের ছেলে শাহরাস্তি থানায় একটি মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে এলাকার বিভিন্ন লোকদেরকে হুমকি ধমকি প্রদান করে বলে এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানায়।

তারা আরো বলেন জহির নূরে আলম আরিফ গং এলাকার বিভিন্ন অসামাজিক কাজের সাথে জড়িত। এই বিষয়ে আবু মেম্বারকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, মেয়ে সংক্রান্ত বিষয়ে আমরা গোপন বৈঠকে বসেছি। সেখানে এলাকার কয়েকজন ব্যক্তি উপস্থিত হলে বিভিন্ন কথার কাটাকাটি হলে হট্টগোল সৃষ্টি হয়। আমি উভয়কে বিষয়টি মিমাংশা করে দেই। পরবর্তীতে থানায় অভিযোগের বিষয়টি আমি জানি না। এলাকাবাসির দাবি, আবু মেম্বারের কারণে এমন ঘটনা ঘটে।

 

প্রকাশিত : ১১ জুলাই ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমআরআর

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
78 জন পড়েছেন