ছাত্রলীগ নেতার ছাগল ছিনতাই, যা ঘটেছিল সেই রাতে

0
21

 

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

 

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ঈদুল আযহার আগে ছাগল ছিনতাইয়ের ঘটনায় ওই থানার ছাত্রলীগ সভাপতিসহ মোট আটজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এর মধ্যে র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার হয়ে তিনজন কারাগারে রয়েছে।

মোহাম্মদপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শরিফুল ইসলাম গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, মামলায় যাদের আসামী করা হয়েছে তারা গা ঢাকা দিয়েছেন। তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত, মেহ-প্রমেহ) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) +88 01762240650, +88 01777988889
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

তবে গ্রেফতার হওয়া তিনজন এক দিনের রিমান্ডে ছিলেন জানিয়ে তিনি বলেন, তাদের টেলিযোগাযোগ আইনেও গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে এবং রিমান্ড প্রার্থনা করা হয়েছে।

এদিকে ১০ আগস্ট রাতে ছাগল ছিনতাইয়ের ঘটনার বিস্তারিত জানিয়েছেন মামলার বাদি সাইফুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (১৫ আগস্ট) গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাইফুল ইসলাম বলেন, ১০ আগস্ট রাত আনুমানিক ১২টার দিকে ২১২টি ছাগল নিয়ে তাদের ট্রাক ঢাকায় পৌঁছায়। এসময় ট্রাকে চালক-হেলপার ছাড়াও দুই আড়তদার। সাইফুল ইসলাম ছিলেন যাত্রাবাড়ীতে।

তিনি জানা, ছাগলগুলো নিয়ে যাত্রাবাড়ীতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ট্রাকটি শ্যামলী শিশুমেলার সামনে পৌঁছলে ১০-১২ জন যুবক সেটির পথরোধ করে দাঁড়ান। তখন ওই যুবকদের হাতে ওয়াকিটকি ছিল।

সাইফুল জানান, ওয়াকিটকি দেখে ট্রাক চালক ভেবেছিলেন, তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য। সে কারণে ট্রাক থামিয়েছিলেন। কিন্তু পরে দেখতে পান ঘটনা ভিন্ন।

এসময় মোবাইল ফোনে খবর পেয়ে সাইফুল ইসলাম দ্রুত সেখানে চলে আসেন। সাউফুল জানান, রাত ৩টা পর্যন্ত বিভিন্ন সূত্রের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। ৯৯৯–এ ফোনও করেন। কিন্তু পুলিশের কোনো সহযোগিতা পাননি।

বাদানুবাদের এক পর্যায়ে ছাগলগুলোকে ট্রাক থেকে নামিয়ে একটি ক্লাব ঘরে ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম, বাবু খান, শেখ সোলেমান, মো. নুরুজ্জামান, ফারুক বিশ্বাস, মোহাম্মদ মাসুদ মণ্ডলকে আটকে রাখেন।

এভাবে তারা পরদিন বেলা তিনটা পর্যন্ত জিম্মি থাকেন। পরে তিনটার দিকে র‍্যাবের ম্যাজিস্ট্রেট গিয়ে তাদের উদ্ধার করেন। ঘটনাস্থল থেকে তিন তরুণকে গ্রেপ্তারের পর র‍্যাব ছাগল, ট্রাক, ওয়াকিটকিসহ থানায় হস্তান্তর করেন।

মামলার বিষয়টি সময় নিউজকে নিশ্চিত করেছেন মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গণেশ গোপাল বিশ্বাস (জিজি বিশ্বাস)।

তিনি জানান, এ ঘটনায় মোহাম্মদপুর থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। র‍্যাব পুলিশের কাছে মামলাটি হস্তান্তর করেছে। এরমধ্যে ছাগল ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম চাঁদার দাবিতে ছাগল ছিনতাইয়ের অভিযোগে একটি মামলা করেছেন।

হাতেনাতে আটকরা র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, ছিনতাই চেষ্টার ঘটনার মোহাম্মদপুর থানার ছাত্রলীগ সভাপতি মুজাহিদ আজমী তান্না, জসিম, ইয়াসির আরাফাত, রায়হান, জাহিদ, রাতুল, তানভীর, হীরা, তন্ময় ও পারভেজ নামে কয়েকজন জড়িত।

এ বিষয়ে মোহাম্মদপুর থানার ছাত্রলীগ সভাপতি মুজাহিদ আজমী তান্নাকে ফোন করা হলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

প্রকাশিত : ১৬ আগস্ট ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
38 জন পড়েছেন