চান্দিনায় নারী আসক্ত মাও. আনিছ গ্রেফতার

0
44

টি. আর. দিদার, চান্দিনা (কুমিল্লা) প্রতিনিধিঃ
বহু নারীর সাথে মেলামেশার অভিযোগে স্ত্রীর দায়ের করা মামলায় গ্রেফতার হয়েছেন কুমিল্লার চান্দিনার প্রখ্যাত আলেম মাও. আনিছুর রহমান। বিকৃত রুচির বহুগামী ওই আলেম এর বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর রয়েছে আরও বহু অভিযোগ।
স্বামীর হীন কর্মকান্ডে বাধ্য হয়ে স্ত্রী রোজিনা আক্তার বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করার পর মাও. আনিছুর রহমানকে গ্রেফতার করে শুক্রবার (৩০ আগষ্ট) বিজ্ঞ আদালতে পাঠায় চান্দিনা থানা পুলিশ।
মাও. আনিছুর রহমান কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার মাইজখার ইউনিয়নের আওরাল গ্রামের অহিদুল ইসলাম এর ছেলে। তিনি কুমিল্লা সহ দেশের বিভিন্ন জেলা-উপজেলায় ওয়াজ-মাহফিল করে বেশ সুনাম অর্জন করেছেন। কিন্তু নারীদের প্রতি রয়েছে বেশ দুর্বলতা। কি বৈধ আর কি অবৈধ। সব নারী নিয়েই কুরুচি সম্পন্ন ভাবে যৌণ কাজে লিপ্ত হওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
মামলার এজাহারে স্ত্রী রোজিনা আক্তার জানান, ২০০৯ সালের ৩ জুলাই ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক তাদের বিবাহ হয়। বিবাহের পর মাও. আনিছ বিদেশ (আবুদাবী) যান। সেখানে নারী কেলেঙ্কারীতে গ্রেফতার হয়ে বাংলাদেশে ফেরত আসেন। তার প্রাতিষ্ঠানিক কোন সনদপত্র না থাকা সত্বেও দেশে এসে তিনি নিজেকে আলেম পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জেলায় ওয়াজ-মাহফিল শুরু করেন। মাহফিল করার সুবাদে ঢাকায় লীজা নামে এক বিধবা মেয়েকে বিবাহ করেন। তার কিছুদিন পর চান্দিনার ফতেহপুরের সিরাজুম মনিরা নামে তিন সন্তানের জননীকে বিবাহ করেন। সামাজিক চাপে ওই নারীকে তালাক দিলেও ঢাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে আবারও ওই নারী নিয়ে অবৈধ মেলামেশা শুরু করেন। মাও. আনিছ ধর্মী বিধি বিধান উপেক্ষা করে নীল ছবি দেখে যৌন কাজে লিপ্ত হন বলে অভিযোগ করেন তার স্ত্রী।
স্ত্রী রোজিনা আক্তার আরও জানান, মাওলানা আনিছুর রহমান এর ভাষায় পুরুষ হচ্ছে বাদশার জাত।
তবে এ ব্যাপারে গ্রেফতার হওয়া মাও. আনিছুর রহমান এর সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।
এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মো. আবুল ফয়সল জানান, স্ত্রীর দায়ের করার মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা থাকায় ২৯ আগস্ট বৃহস্পতিবার মাও. আনিছুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকালে বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

প্রকাশিত : ৩১ আগষ্ট ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

চাঁদপুর রিপোর্ট-এমকেজেড

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
70 জন পড়েছেন