জি কে শামীমের অজানা কাহিনী

ছোটখাটো মানুষ হলেও শামীমের ক্ষমতার দাপট ছিল আকাশসমান।

0
166

 

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

http://picasion.com/

ছোটখাটো মানুষ হলেও শামীমের ক্ষমতার দাপট ছিল আকাশসমান।

শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর নিকেতন থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা, অস্ত্র ও মাদকসহ আটক হন যুবলীগ নেতা জি কে শামীম। তার অফিস থেকে নগদ ১.৮০ কোটি টাকা ও ১৬৫. ২৭ কোটি টাকার এফডিআর উদ্ধার করে পুলিশ।

এই ঘটনার পর থেকে সবার মনে একটাই প্রশ্ন, কে এই জি কে শামীম? ছোটখাটো মানুষ হলেও শামীমের ক্ষমতার দাপট ছিল আকাশসমান।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌ*ন সমস্যার (যৌ*ন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহ*বাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্য*পাত, মেহ-প্রমেহ) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) 01762240650, 01834880825
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবো, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় জি কে শামীম প্রভাবশালী ঠিকাদার হিসেবে পরিচিত। গণপূর্ত ভবনের বেশির ভাগ ঠিকাদারি কাজই জি কে শামীম নিয়ন্ত্রণ করেন। বিএনপি-জামায়াত শাসনামলেও গণপূর্তে শামীম ছিলেন ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণকারী ব্যক্তি।

জানা যায়, নারায়ণগঞ্জের সন্মানদী ইউনিয়নের দক্ষিণপাড়া গ্রামে জি কে শামীমের জন্ম। তার বাবা আফসার উদ্দিন হরিহরদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন।

শামীমের বাবা বর্তমানে জীবিত নেই। তার তিন ছেলের মধ্যে শামীম মেজো। বড় ভাই গোলাম হাবিব নাসিম ঢাকায় জাতীয় পার্টির রাজনীতি করেন।। শামীমের জন্মস্থান সন্মানদী ইউনিয়নের বাসিন্দারা জানান, প্রাইমারি স্কুল ও হাইস্কুল পাশ করার পর শামীমকে আর গ্রামে দেখা যায়নি।

নারায়নগঞ্জ জেলার সোনারগাঁও উপজেলার একজন স্কুল মাস্টারের ছেলে হয়ে ওঠেন আন্ডারওয়ার্ল্ডের ডন। অস্ত্রধারী দেহরক্ষী নিয়ে চলাফেরা ও রাজনীতির অন্তরালে হাজার কোটি টাকার মালিক বনে যান তিনি।

গত বুধবার ক্যাসিনো চালানোর অভিযোগে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ আটক হওয়ার পর আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সন্ধানে বেরিয়ে আসে শামীমের নাম। এর প্রেক্ষিতে শুক্রবার ৭ দেহরক্ষীসহ তাকেও আটক করা হয়।

এদিকে, শামীমকে আটক করার পর যুবলীগের পক্ষ থেকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি হিসেবে পরিচয় দেওয়ায় নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গনের সর্বত্র তোলপাড় শুরু হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের কোন সভা-সমাবেশে তাকে দেখা না গেলেও নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হিসেবে কেন্দ্রীয় যুবলীগের পক্ষ থেকে বিবৃতি আসায় এ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনার সৃষ্টি হয়।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হাই জানান, “ডা: সেলিনা হায়াত আইভী নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি। জি কে শামীম জেলা আওয়ামীলীগের কোন পদেই নেই।”

নারায়নগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভূইয়া বলেন, “জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ বাদল জি কে শামীমকে সহ-সভাপতি করার প্রস্তাব দিলে মেয়র আইভীসহ অন্যান্যদের বিরোধীতায় তা বাতিল হয়ে যায়।”

এদিকে যুবলীগের কেন্দ্রীয় প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ বাবলু দাবি করেন, “যুবলীগে শামীমের কোনো পদ নেই। তিনি নিজেই নিজেকে সমবায় বিষয়ক সম্পাদক বলে বেড়ান। এ নিয়ে যুবলীগে কয়েকবার আলোচনাও হয়েছে। তাকে কয়েকবার এমন মিথ্যা প্রচারণা থেকে বিরত থাকতে বলাও হয়েছে।

বাবলু আরও দাবি করেন, “জিকে শামীম এক সময় যুবদলের সাবেক সহ-সম্পাদক ছিলেন। কিন্তু এখন তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি হিসেবে আছেন বলে শুনেছি।”

প্রকাশিত : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
156 জন পড়েছেন
http://picasion.com/