গৃহবধূর গোসলের দৃশ্য ভিডিও করে টাকা দাবি : তিন যুবক গ্রেফতার

0
3869

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে এক গৃহবধূর গোসলের দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয় তিন যুবক।

মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন

এ সময় মোটা অংকের টাকা দাবি করার অভিযোগে তিন যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই গৃহবধূর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের চান্দুলিয়া ও কোটবহুরিয়া গ্রাম থেকে তাদের গ্রেফতার করে মির্জাপুর থানা পুলিশ।

নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌন সমস্যার (যৌন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহবাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্যপাত, মেহ-প্রমেহ) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) 01762240650, 01834880825
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

গ্রেফতাররা হলেন উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের চান্দুলিয় গ্রামের মোবারক হোসেনের ছেলে বরকত, একই গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে সোলাইমান এবং কোট বহুরিয়া গ্রামের বদর উদ্দিনের ছেলে আব্দুল আলীম।

পুলিশ জানায়, গ্রেফতাররা বেশ কিছুদিন আগে ওই গৃহবধূর নির্মাণাধীন বাড়িতে দিন মজুরের কাজ করত। সেই সুবাদে একদিন ওই গৃহবধূর গোসলের দৃশ্য মোবাইলে ভিডিও করে ও ছবি তুলে। পরে ওই গৃহবধূকে ফোন করে বিষয়টি জানিয়ে মোটা অংকের টাকা দাবি করে। এতে গৃহবধূ সাড়া না দিলে গোসেলর কয়েকটি ছবি গৃহবধূর ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে পাঠায়।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার ওই গৃহবধূ থানায় অভিযোগ দিলে ওইদিন রাতেই পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে।

মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সায়েদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গ্রেফতার তিনজনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হবে।

 

 

ধর্ষণের সময় স্বামীকে ধরে ফেললেন স্ত্রী

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় ঘরে ঢুকে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। গত বৃহস্পতিবার (১২ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে উপজেলার খাসকররা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। শুক্রবার বিকেলে ওই গৃহবধূ এ ঘটনায় অভিযুক্ত প্রতিবেশী শরিফুলের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে গেছে, ঘটনার দিন ওই গৃহবধূর স্বামী ব্যক্তিগত কাজে ঝিনাইদহে গিয়ে আটকে যান। তিনি বাড়ি ফিরতে না পেরে ঝিনাইদহে রাতযাপন করেন। ওই গৃহবধূ বাড়িতে একা থাকার সুযোগে প্রতিবেশী শরিফুল ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণ করে।

এদিকে রাতে ঘর থেকে শরিফুল বের হয়ে দীর্ঘক্ষণ না আসায় তার স্ত্রী স্বামীকে খুঁজতে বের হন। এরপর প্রতিবেশীর ঘরে স্বামীর ধর্ষণের দৃশ্য দেখে ফেলেন তিনি। এ সময় ভুক্তভোগী গৃহবধূ এবং শরিফুলের স্ত্রীর হৈ চৈ শুনে প্রতিবেশীরা এসে শরিফুলকে আটক করে। তারপর ভুক্তভোগী গৃহবধূ থানায় আসতে চাইলে প্রতিবেশীরা তাকে আসতে দেয়নি। এমনকি শরিফুলকেও ছেড়ে দেয় তারা। অবশেষে শুক্রবার বিকেলে দিকে ওই গৃহবধূ থানায় এসে শরিফুলের নামে মামলা করেন।

আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান মুন্সি জানান, খাসকররা গ্রামের হবিবর রহমান সর্দারের ছেলে শরিফুলকে আসামি করে থানায় মামলা হয়েছে। শনিবার ওই গৃহবধূকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

বিয়ের খবরে নাতির পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন দাদি

প্রেমিক নাতির বিয়ের খবরে ক্ষিপ্ত হয়ে রাতে ঘরে ডেকে নিয়ে পুরুষাঙ্গ কেটে দিলেন দাদি। গুরুতর অবস্থায় নাতিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামে সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) রাতে এ ঘটনা ঘটে। রাতেই গুরুতর অবস্থায় নাতিকে আলমডাঙ্গা শহরের শেফা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

শেফা ক্লিনিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গুরুতর অবস্থায় নাতিকে ক্লিনিকে আনা হয়। নাতির কেটে ফেলা পুরুষাঙ্গে আটটি সেলাই দেয়া হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় মঙ্গলবার বিকেলে আলমডাঙ্গা থেকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত মামলা হয়নি।

স্থানীয় সূত্র জানায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের এক ব্যক্তি দুই সন্তান ও স্ত্রীকে রেখে ১১ মাস আগে বিদেশ যান। এ সুযোগে প্রতিবেশী নাতির সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন প্রবাসীর স্ত্রী। প্রেমের সম্পর্ক দাদি-নাতির শারীরিক সম্পর্কে রূপ নেয়।

এরই মধ্যে অবিবাহিত প্রেমিক নাতির বিয়ে দিনক্ষণ ঠিক হয়। নাতির বাড়িতে চলছিল বিয়ের আয়োজন। বিয়েতে প্রেমিক নাতির সম্মতি ছিল। এতে রাগে-ক্ষোভে ফেটে পড়েন দাদি। সোমবার রাতে প্রেমিক নাতিকে মোবাইল ফোনে শারীরিক সম্পর্ক করার জন্য ডেকে নেন দাদি। পরে শারীরিক সম্পর্কের সময় ব্লেড দিয়ে নাতির পুরুষাঙ্গ কেটে দেন দাদি। এতে গুরুতর আহত হন প্রেমিক নাতি। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় চিকিৎসার জন্য নাতিকে আলমডাঙ্গা শেফা ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। পরে কেটে ফেলা পুরুষাঙ্গে আটটি সেলাই দেয়া হয়।

শেফা ক্লিনিকের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের কারণে ওই ব্যক্তির অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান মুন্সি বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। কেউ এ ব্যাপারে অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেব।

ভাবিকে ধর্ষণের অভিযোগে দেবর গ্রেফতার

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার বারশত ইউনিয়নে রাতের অন্ধকারে ঘরের বেড়া কেটে ঢুকে ধারালো কিরিচের ভয় দেখিয়ে ভাবিকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দেবরের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় দেবর মোহাম্মদ ইলিয়াছ ইলুকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে বারশত ইউনিয়নের বোয়ালিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মোহাম্মদ ইলিয়াছ ইলু বোয়ালিয়া গ্রামের কোরবান আলীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ধর্ষিতা ওই গৃহবধূ ইলিয়াছের জেঠাতো ভাইয়ের স্ত্রী। প্রবাসী স্বামীর অবর্তমানে চার সন্তান-সন্ততি নিয়ে তিনি নিজ ঘরে একাই থাকতেন। বেশ কিছুদিন ধরে গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন ইলিয়াছ ইলু। এসব ঘটনার প্রতিবাদ করেও লাভ হয়নি। সম্প্রতি বিষয়টি জানাজানি হলে ইলিয়াছ ওই গৃহবধূর ওপর আরও ক্ষুব্ধ হন।

গত রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ইলিয়াস ঘরের বেড়া কেটে ঢুকে ধারালো কিরিচের ভয় দেখিয়ে তার ভাবিকে ধর্ষণ করেন। একপর্যায়ে ওই গৃহবধূর চিৎকারে আশপাশের মানুষ এগিয়ে এলে ইলিয়াছ পালিয়ে যান।

আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, গতকাল মঙ্গলবার ধর্ষিতা নিজে বাদী হয়ে তাকে ধর্ষণের অভিযোগে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রাতে ইলুকে গ্রেফতার করা হয়।

এএম/জেআইএম

অপরাধ বিবাহ বিয়ে

প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
410 জন পড়েছেন