চাঁদপুরে জুনিয়র-সিনিয়র নিয়ে সংঘর্ষে আহত ৬ : আটক ২

0
421

নিজস্ব প্রতিনিধি :
চাঁদপুর জেলার হাইমচর উপজেলার চরভাঙ্গা গ্রামে জুনিয়র সিনিয় নিয়ে সংঘর্ষে একই পরিবারের ৩ জন সহ ৬ জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

http://picasion.com/

সংঘর্ষ থামাতে গিয়ে হাইমচর থানার এএসআই মোবারক হোসেনও আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় রক্তমাখা হকিস্টিকসহ ২জনকে আটক করেছে হাইমচর থানা পুলিশ। এ নিয়ে হাইমচর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ডায়াবেটিস প্রতিরোধ ও প্রতিকারে সম্পূর্ণ পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ামুক্ত ভেষজ ঔষধ পেতে যোগাযাগ করুন- হাকীম মিজানুর রহমান : 0162-240650, 01777988889, ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, চাঁদপুর। যোগাযোগ : সকাল দশটা হতে রাত দশটা। নামাজের সময় ব্যতীত। এছাড়াও যৌ*ন সমস্যা, শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), হার্টের ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়, গত কয়েকদিন ধরে চরভাঙ্গা গ্রামের খলিল সাবের ৮ম শ্রেণী পড়–য়া ছেলে ফয়েজ (১৬) এলাকার অপর এক ছেলের সাথে জুনিয়র সিনিয়র নিয়ে তর্ক হয়। এ নিয়ে পাশ্ববর্তী ইউনুছ পাটওয়ারীর কলেজ পড়ুয়া ছেলে ফুয়াদের সাথে তার বাগবিতন্ডা হয়।

রোববার বেলা ১২ টায় ফয়েজ মাদরাসা হতে ৮ম শ্রেনীর মডেল টেস্ট পরীক্ষা দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে তাকে মারধর করে ফুয়াদ। পুনরায় ফুয়াদ দলবল ও দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে ফয়েজদের বাড়িতে হামলা করে। হামলায় ফয়েজের বাবা খলিল সাব(৫৫), চাচা জহির সাব(৩৫), ফয়েজ (১৬)। সংঘর্ষে ফুয়াদ পাটওয়ারী (২২), শুভ পাটওয়ারী (২২), এমরান (২৮) আহত হয়েছেন। সংঘর্ষের সংবাদ পেয়ে হাইমচর থানার এএসআই মোবারক হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে এএসআই মোবারকও আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ২জনকে রক্তমাখা হকিস্টিক সহ আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে হাইমচর থানা এএসআই মোবারক হোসেন চাঁদপুর রিপোর্টকে জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণ করি। ঘটনাস্থল থেকে আমি রক্তামাখা হকিস্টিকসহ ২জনকে আটক করি এবং আহতদের চিকিৎসার জন্য উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানোর ব্যবস্থা করি। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আহত খলিলের ছোট ভাই মিজান চাঁদপুর রিপোর্টকে বলেন, ফুয়াদ তার দলবলসহ অস্ত্র নিয়ে আমাদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। আমার ভাইকে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক আহত করে তার কাছে থাকা ১লাখ ৬৫ হাজার টাকা নিয়ে যায়। তাদের হামলায় আমার ছোট ভাই জহির ও ভাতিজাসহ বাড়ির ৬/৭জন আহত হয়েছে। আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী তাই হাইমচর থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
272 জন পড়েছেন
http://picasion.com/