nayika

জনপ্রিয় নায়িকার দেহব্যবসা, এইডসে ভুগে করুণ মৃত্যু

বিনোদন ডেস্ক

ভাগ্য কখন কাকে কোথায় নিয়ে দাঁড় করায় সেটা বোঝা বড় মুশকিল। আজ যাকে ঘিরে চারদিকে ভালোবাসার ভিড় কাল তিনি একা। কোথাও কেউ নেই। আজ যাকে মানুষ অবহেলা করে গেল কাল সে সম্মানিত। সবই আসলে প্রকৃতির খেলা।

সম্প্রতি ভাগ্য পরিবর্তনের এক করুণ গল্প জানালো ভারতীয় গণমাধ্যম। সেখানে বলা হয়েছে একজন তুমুল জনপ্রিয় নায়িকা কীভাবে সব হারিয়ে মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হয়ে নিঃসঙ্গ জীবন কাটিয়ে গেলেন। এ গল্প ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

Night King Sex Update
নারী-পুরুষের যে কোনোা যৌ*ন সমস্যার (যৌ*ন দুর্বলতা, সন্তান না হওয়া, সহ*বাসে ব্যর্থতা, দ্রুত বীর্য*পাত, মেহ-প্রমেহ) সমাধানে ‘নাইট কিং’ ও ‘নাইট কিং গোল্ড’ কার্যকরী। বাংলাদেশের যে কোনো জেলা বা উপজেলায় কুরিয়ার সার্ভিসযোগে ‘নাইট কিং’ পেতে যোগাযোগ করুন :
হাকীম মিজানুর রহমান
ইবনে সিনা হেলথ কেয়ার, যোগাযোগ করুন : (সকাল ১০টা থেকে রাত ০৮ টা (নামাজের সময় ব্যতীত) 01762240650, 01834880825
এছাড়াও শ্বেতী রোগ, ডায়াবেটিস, অশ্ব (গেজ, পাইলস, ফিস্টুলা), ব্লকেজ, শ্বেতপ্রদর, রক্তপ্রদর ইত্যাদি রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়।

দীপিকা পাডুকোন বা প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মতো হয়তো সবাই এক নামে তাকে চিনবে না।তবে দক্ষিণী ফিল্মে আশির দশকের জনপ্রিয় অভিনেত্রী ছিলেন নিসা নুর। তার জনপ্রিয়তা আঁচ করা যায় এটা জেনে, নিসার সঙ্গে অভিনেত্রী করতে নিজেরাই আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন তামিল সুপারস্টার রজনীকান্ত ও কমল হাসান।

বালাচন্দন, বিষু, চন্দ্রশেখরের মতো এককালের নামকরা সব পরিচালকের সঙ্গে কাজ করেছেন নিসা নুর। ‘কল্যানা আগাথিগাল’, ‘লায়ার দ্য গ্রেট’, ‘টিক! টিক! টিক!’-এর মতো প্রচুর হিট ফিল্মে অভিনয় করেছেন। মূলত তামিল এবং মালায়লম সিনেমাতেই অভিনয় করতেন তিনি।

এমন হিট নায়িকার জীবন কিন্তু ছিল হতাশায় ভরা, শেষ জীবনে অর্থকষ্টে রাস্তায় কাটাতে হয়েছে তাকে। গায়ে পোকা, মাছি বসে থাকত। শেষে এইডসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় তার।

ক্যারিয়ার তুঙ্গে থাকা অবস্থায় অপ্রত্যাশিতভাবেই আচমকা ইন্ডাস্ট্রি থেকে হারিয়ে যান তিনি। শোনা যায়, সে সময় নাকি এক নাম করা প্রযোজকের খপ্পরে পড়ে গিয়েছিলেন নিসা। ওই প্রযোজক তার সঙ্গে প্রতারণা করেছিলেন। তাকে যৌন পেশায় নামতে বাধ্য করেছিলেন।

এই খবর ছড়িয়ে পড়ার পর ইন্ডাস্ট্রি তার থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল। কেউই তার সঙ্গে কাজ করতে চাইছিলেন না। বাধ্য হয়েই ইন্ডাস্ট্রি থেকে নিজেকে গুটিয়ে নেন নিসা নুর।কাজ হারিয়ে ক্রমে আর্থিক দুরবস্থার মধ্যে পড়েন তিনি। দিনের পর দিন খেতে পেতেন না। এই সময়ে তার পাশে দাঁড়ানোরও কেউ ছিল না।

অনেক বছর পর ২০০৭ সালে চেন্নাইয়ের একটি দরগার বাইরে রাস্তায় তাকে পড়ে থাকতে দেখা যায়। কঙ্কালসার চেহারা, মলিন পোশাক, গায়ে পোকা, মাছি ঘুরে বেড়াচ্ছিল। তিনি এতটাই শীর্ণ ছিলেন যে মাছি তাড়ানোরও শক্তি ছিল না দেহে। দেখে বোঝার কোনো উপায়ই ছিল না যে তিনিই সেই নিসা নুর।

তাকে চিনতে পেরে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়। সেখানে চিকিৎসায় ধরা পড়ে তিনি এইচআইভি-তে আক্রান্ত। অবশেষে ২০০৭ সালের ২৩ এপ্রিল মাত্র ৪৪ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

প্রকাশিত: ০১:০০ পিএম, ০৭ অক্টোবর ২০১৯

720 জন পড়েছেন
শেয়ার করুন