পর্নো জগতে সেরা ১২ জন

0
746

 

চাঁদপুর রিপোর্ট ডেস্ক :

http://picasion.com/

 

পর্নফিল্মের দুনিয়া নিয়ে অনেকেরই ধারণা স্পষ্ট নেই। এটুকু সবাই জানে যে, একটা ছবি তৈরি হয়। যা নগ্ন, যাতে যৌনতা মাত্রাতিরিক্ত। কিন্তু সেই ছবিরও যে একটা আলাদা ফ্যান ফলোয়িং আছে, তার অভিনেতা অভিনেত্রীরাও মেইনস্ট্রিম ছবির মতো বিখ্যাত, সে কথা কয়জন জানেন ?

কার্টার ক্রুস
মাত্র দু’বছর আগে এই মেয়ে ছিলেন একজন কলেজ স্টুডেন্ট। তখনই নাকি তিনি বুঝেছিলেন, পড়াশোনা তাঁর জন্য নয়। সেমিস্টারের পর তিনি কার্টার ক্রুস ব্র্যান্ড লঞ্চ করেন। ব্র্যান্ডের জন্য তিনি নিজে টপলেস ফোটোশুট করেন। এই টপলেস হয়ে ফোটোশুট করতে যখন আর অস্বস্তি থাকল না, পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে আসার কথা ভাবলেন ক্রুস। খুব তাড়াতাড়ি তাঁর জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। গত বছর একটি পর্নো সাইটের তরফে সেরা পপুলার পর্নস্টারের খেতাবও পান তিনি।

রিলেয় রেইড
সোশাল মিডিয়ায় এই পর্নস্টারের খ্যাতি দেখলে অবাক হয়ে যেতে হয়। প্রতিদিন টুইট করে আর ভিডিও শেয়ার করে নিজের ফ্যানেদের এন্টারটেন করেন তিনি। তাঁর বেশিরভাগ ছবি ও ভিডিও নগ্ন অবস্থায় শুট করা। ২০১৪-তে তিনি একটি পর্নো সাইটের তরফে পারফর্মার অফ দা ইয়ারের সম্মান পান। তারপর থেকে ঝড়ের গতিতে এগোতে থাকে তাঁর ক্যারিয়ার। ২০১৫-তেও তিনি দু’টি পর্নো সাইটের থেকে পারফর্মার অফ দা ইয়ারের খেতাব পান।

gif maker

আইদ্রা ফক্স
আঠারো বছর বয়সেই পর্নো ইন্ডাস্ট্রিত যোগ দেন আইদ্রা ফক্স। এক বছরের মধ্যেই তিনি খ্যাতি পান। পেন্ট হাউজ়ের পেট অফ দা মান্থ খেতাব পান তিনি। এখন তাঁর বয়স ২০ বছর। গত বছর ১৩টি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন ফক্স। তিনি জানিয়েছেন, ভবিষ্যতে তিনি পরিচালনায় আসতে চান। তবে এখন ক্যামেরার সামনেই থাকতে চান তিনি।

আন্নিকা অ্যালব্রিতে
পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে গত বছর পাঁচ বছর কমপ্লিট করেছেন আন্নিকা অ্যালব্রিতে। গত বছর তিনি দু’টি পর্নো সাইটের থেকে পারফর্মার অফ দা ইয়ারের খেতাব পান। তবে পর্নো ছবিতে অভিনয়ের পাশাপাশি তিনি ক্যামেরার পিছনেও কাজ করেন। লস অ্যাঞ্জেলস উইকলি তাঁকে নেক্সট জেনা জেমসন (দা কুইন অফ পর্ন) খেতাব দিয়েছে।

ডানা ভেসপোরিল
২০১৪ সালটা ডানা ভেসপোরিলের জন্য ছিল খুব ভালো। সে বছর তিনি “দা ডার্টি ডজ়ন” হয়েছিলেন। শুধু অভিনেত্রী নন, পর্ন ফিল্মমেকার হিসেবেও ভেসপোরিলের যথেষ্ট নাম আছে। অ্যাডাল্ট ফিল্ম স্টুডিও এভিল অ্যাঞ্জেলের হয়ে তিনি ছবি পরিচালনা করেছেন। ২০১৫ সালে তিনি ১২টি পুরস্কার জিতেছিলেন।

gif maker

স্কিন ডায়মন্ড
লুইস ভুইটোন ও অ্যামেরিকান অ্যাপারেলের প্রাক্তন মডেল ছিলেন স্কিন ডায়মন্ড। সেখানে থেকেই তাঁর পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে আসা। ইন্ডাস্ট্রিতে আসার পর, খুব কম সময়ের মধ্যেই তিনি অন্যতম সেরা পারফর্মার হিসেবে খ্যাতি পান। গত বছর তিনি ১১টি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়েছিলেন। শুধু পারফর্মার নন, তিনি তাঁর লুকস ও ফ্যাশন সেন্সের জন্যও পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে সুপরিচিত।

ক্যানেল প্রেস্টোন
শুরু থেকেই ডার্টি ডজ়নে নিজের ফ্যানবেস তৈরি করে নিয়েছেন ক্যানেল প্রেস্টোন। কনস্ট্যান্ট পারফর্মার হিসেবে তাঁর চাহিদা আছে পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে। নেকেড উইথ ক্যানেল নামে একটি ওয়েব সিরিজ়ও হোস্ট করেন তিনি। সেখানে অ্যামেরিকার সেক্সুয়ালিটি নিয়ে অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হয়। তিনি অ্যাডাল্ট পারফর্মার অ্যাডভোকেসি কমিটির বোর্ডের সদস্যও। অনেক মেনস্ট্রিম প্রোগ্রামেও তাঁকে দেখা যায়।

জিলিয়ান জ্যানসন
হাইস্কুলে পড়াকালীনই জ্যানসনের পর্নো ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল। মাই ফ্রি ক্যামসের ওয়েবমডেল হিসেবে তাঁর আত্মপ্রকাশ। তাঁর ১৮তম জন্মদিনের মাস তিনেক বাদেই তিনি এক এজেন্টের থেকে অফার পান। জ্যানসনের ক্যারিয়ার জানাজানি হয়ে যাওয়ার পর তাঁকে নিগৃহীত হতে হয়। ফলে পড়াশোনায় ইতি দেন জ্যানসন। পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে ঢোকার বছর দু’য়েকের মধ্যেই তিনি খ্যাতি পেতে শুরু করেন। গত বছর তিনি আটটি পুরস্কার জেতেন।

ভিকি চাসে
ভিকিই একমাত্র পর্নো তারকা, যিনি একটি খাতনামা ব্যাঙ্কিং ইনস্টিটিউশনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। সেখানে চাকরি করতেন তিনি। প্রথম ছ’বছর তাঁর ক্যারিয়ারের গ্রাফ তেমন ওঠেনি। কিন্তু, ২০১৪-তে সনস অফ অ্যানাকেইয়ের পর থেকে তিনি খ্যাতি পেতে শুরু করেন। সেখানে তিনি একটি ক্যামিও চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। গত বছর আটটি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হন তিনি।

রোমি রেইন
রেইনের ক্ষেত্রে অ্যাডাল্ট এন্টারটেনমেন্ট ইন্ডাস্ট্রিতে আসা যেন ফ্যামিলি ট্র্যাডিশন। তাঁর মাও এই ইন্ডাস্ট্রিতেই ছিলেন। তিনি পারফর্মার হিসেবে তেমন খ্যাতি পাননি। কিন্তু মেয়ে পেয়েছেন। ওয়েবক্যাম মডেলে নগ্ন মডেল হিসেবে তিনি ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। তারপর অ্যাডাল্ট ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি প্রবেশের চেষ্টা করেন। তিনি যে খুব ভুল ক্যারিয়ার নির্বাচন করেননি, তা গত বছর সাতটি পুরস্কারের মনোনয়নই বলে দেয়।

কেইশা গ্রে
মাত্র দু’বছর হয়েছে পর্নো ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছেন কেইশা গ্রে। আর এর মধ্যেই যথেষ্ট খ্যাতি পেয়েছেন তিনি। গত বছর তিনি সাতটি নমিনেশন পেয়েছিলেন।পর্নো ইন্ডাস্ট্রির এই পারফর্মারের শখ মিউজ়িক। চেলো ও বাজ় গিটার বাজাতে পারেন তিনি।

মিক ব্লু
২০১৪-তে একটি পর্নো সাইট তাঁকে মেল পারফর্মার অফ দা ইয়ার পুরস্কার দিয়েছিলেন। গত বছর তিনি তিরিশেরও বেশি নমিনেশন পান। অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত এই পারফর্মার ২০০০ সাল থেকে পর্নো ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত। ২০১৪-তে তিনি পর্নোস্টার আন্নিকা অ্যালব্রিতেকে বিয়ে করেন।

প্রকাশিত : ১৬ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার :

চাঁদপুর রিপোর্ট : এমআরআর/

ফেসবুকে মন্তব্য করুন
218 জন পড়েছেন
http://picasion.com/